আজকের শিরোনাম :

মানবদেহে প্রথম ব্রেইনচিপ ইমপ্লান্টের পর ধাক্কা খেলো নিউরালিংক

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৩ মে ২০২৪, ১৫:৫৯

মানবদেহে প্রথম ইমপ্লান্টের পর অপ্রত্যাশিত সমস্যার সম্মুখীন হয়েছে ইলন মাস্কের ব্রেইন-চিপ নিউরালিংক। কারণ ডিভাইসটি রোগীর মাথার খুলি থেকে বিচ্ছিন্ন হতে শুরু করেছে- ক্যাপচার করা ডেটার পরিমাণও হ্রাস হতে শুরু করেছে।

নিউরালিংকের ব্রেইন-কম্পিউটার ইন্টারফেস, যা বিসিআই নামে পরিচিত, জানুয়ারিতে ২৯ বছর বয়সী রোগী নোল্যান্ড আরবাগের মস্তিষ্কে স্থাপন করা হয়েছিল। চিপটি প্যারালাইসিস রোগীদের শুধুমাত্র তাদের মন ব্যবহার করে বাহ্যিক প্রযুক্তি নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করার জন্য ডিজাইন করা হয়েছে। আরবাগ- যিনি আট বছর আগে একটি গাড়ি দুর্ঘটনার কারণে কাঁধ থেকে পক্ষাঘাতগ্রস্ত হয়েছিলেন-ডিভাইসের নিরাপত্তা পরীক্ষা করার জন্য নিউরালিংকের ছয় বছরের ট্রায়ালে অংশগ্রহণ করছেন। 

মাত্র গত মাসে, নিউরালিংক আরবাগের নয় মিনিটের একটি ভিডিও লাইভ স্ট্রিম করেছে যা দেখায় যে বিসিআই প্রযুক্তি কীভাবে কাজ করে। তাকে ভিডিও গেম খেলতে দেখা গেছে এবং আরবাগ ব্যাখ্যা করেছেন যে, কম্পিউটারের কার্সারটিকে তিনি যেখানে নিয়ে যেতে চান সেখানে হাত ব্যবহার না করেই সেটি নির্দিষ্ট স্থানে চলে যায়। নিউরালিংকের চিপে ৬৪টি ‘থ্রেড’ জুড়ে ১০২৪টি ইলেক্ট্রোড রয়েছে- যা মানুষের চুলের স্ট্র্যান্ডের চেয়ে পাতলা-এটি মস্তিষ্কের স্নায়বিক কার্যকলাপ সম্পর্কে ডেটা সংগ্রহ করার জন্য প্রোগ্রাম করা হয়েছে এবং চিন্তাগুলিকে রূপান্তরিত করার জন্য ডিকোডিংয়ের জন্য সেই ডেটা কোম্পানির কম্পিউটারে পাঠায়। 

ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের রিপোর্ট মোতাবেক, ‘আরবাগের মস্তিষ্ক থেকে বেশ কিছু থ্রেড বিচ্ছিন্ন হতে শুরু করেছে, যার ফলে কার্যকর ইলেক্ট্রোডের সংখ্যা কমে গেছে। ফলস্বরূপ, নিউরালিংক তার ইলেক্ট্রোড এবং থ্রেডের সিস্টেম কতটা কার্যকরভাবে কাজ করছে তা পরিমাপ করতে সক্ষম হয়নি।’

কতগুলি থ্রেড বিচ্ছিন্ন হয়েছে তা এখনো স্পষ্ট নয়। নিউরালিংক জানিয়েছে, ‘এই পরিবর্তনের প্রতিক্রিয়া হিসাবে আমরা নিউরাল জনসংখ্যার সংকেতগুলির প্রতি আরও সংবেদনশীল হওয়ার জন্য রেকর্ডিং অ্যালগরিদমকে সংশোধন করেছি, এই সংকেতগুলিকে কার্সার মুভমেন্টে অনুবাদ করার কৌশলগুলিকে উন্নত করেছি এবং ব্যবহারকারীর ইন্টারফেসকে উন্নত করেছি।’ 

নিউরালিংক যোগ করেছে যে, এই পরিমাপটি কার্সারের বিট প্রতি সেকেন্ডে (বিপিএস) নিয়ন্ত্রণ করার আরবাগের ক্ষমতার নির্ভুলভাবে বাড়িয়ে তুলবে। বিপিএস কোম্পানির মতে, ‘গতি এবং নির্ভুলতার জন্য আদর্শ পরিমাপ।’ যদিও নিউরালিংক ইমপ্লান্টটি অপসারণ করার কথা বিবেচনা করেনি কোম্পানি, কিন্তু সমস্যাটি আরবাগের নিরাপত্তার জন্য সরাসরি ঝুঁকি তৈরি করেনি বলে জার্নাল রিপোর্ট করেছে।

একজন রোবট সার্জন আরবাগের মস্তিষ্কে ইমপ্লান্ট প্লাগ করার সময় তিনি মাস্ক-মালিকানাধীন কোম্পানির তৈরি চিপের প্রথম মানব পরীক্ষার বিষয় হয়ে ওঠেন। অন্য কতজন বিচারে অংশ নেবেন বা কোথায় তাদের রাখা হবে তা তাৎক্ষণিকভাবে পরিষ্কার ছিল না।

আরবাগ দিনে প্রায় আট ঘন্টা এবং সপ্তাহান্তে ১০ ঘন্টার মতো নিউরালিংকের বিসিআই সিস্টেম ব্যবহার করছেন বলে জানা গেছে। তিনি মার্চ মাসে লাইভস্ট্রিমে বলেছিলেন, এখন আমি আক্ষরিক অর্থেই বিছানায় শুয়ে থাকতে পারি এবং আমার হৃদয়ের বিষয়বস্তু নিয়ে খেলতে পারি। নিউরালিংক, ২০১৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রযুক্তি এবং মানবিক পরীক্ষাগুলি সম্পর্কে বেশিরভাগ তথ্যই গোপন রেখেছে কোম্পানি। ইউএস ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন গত বছর ব্রেইন চিপের মানব ট্রায়াল গ্রিনলাইট করেছে যখন সংস্থাটি প্রাণীদের উপর শত শত পরীক্ষা করেছে এবং প্রক্রিয়াটিতে প্রাণী অধিকার গোষ্ঠীগুলির প্রতিক্রিয়ার মুখোমুখি হয়েছিল। যদিও এতো বিতর্কের পরও আরবাগ মনে করেন, নিউরালিংক বিশ্বকে পরিবর্তন করতে চলেছে।

এবিএন/জেডি

এই বিভাগের আরো সংবাদ