পর্দা নামলো সিজেইএন বাংলাদেশ পঞ্চম নেটওয়ার্কিং কনফারেন্সের

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৫ মে ২০২২, ১৭:৫১

নতুন তথ্য প্রযুক্তি, নতুন ব্যবসায়িক মডেল গ্রহণ এবং দেশের জনগণের আস্থা অর্জনের মাধ্যমে আরও মানসম্পন্ন ও দায়িত্বশীল সাংবাদিকতা চর্চার আহ্বান জানানো হয়েছে সিজেইএন বাংলাদেশ পঞ্চম নেটওয়ার্কিং কনফারেন্সে। 

শনিবার (১৪ মে) এ আহ্বানের মধ্য দিয়ে শেষ হলো বাংলাদেশ পঞ্চম নেটওয়ার্কিং কনফারেন্স ২০২২ এর এবারের আয়োজন।

ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশের (ইউল্যাব) মিডিয়া স্টাডিজ অ্যান্ড জার্নালিজম বিভাগ এবং ডয়েচে ভেলে (ডিডব্লিউ) একাডেমি যৌথভাবে ‘সিজেইএন বাংলাদেশ পঞ্চম নেটওয়ার্কিং কনফারেন্স ২০২২’ শীর্ষক শিরোনামের দুই দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক সম্মেলনটি আয়োজন করে। 

সমাপনী দিনের প্রথম সেশনে এশিয়া সেন্টারের আঞ্চলিক পরিচালক ডা. জেমস গোমেজ ব্যবহারিক শিক্ষার প্রতি গুরুত্ব আরোপ করে বলেন, ব্যবহারিক শিক্ষার বিকল্প নাই, এটাই শেখার অন্যতম মাধ্যম।

সম্মেলনে সমাপনী বক্তব্যে ডয়েচে ভেলে-মিডিয়া সার্ভিসেস জিএমবিএইচের কনফারেন্স প্রোগ্রাম ম্যানেজার ড. এসথার ডর্ন-ফেলারম্যান বলেন, আমারা পারস্পারিক জ্ঞান বিনিময়ের মাধ্যম তৈরি করি, এই মাধ্যম তৈরির অনুঘটক হিসেবে কাজ করি। 

তিনি আরও বলেন, এই ধরণের কনফারেন্সে নিজেদের যুক্ত করতে পেরে আমরা আনন্দিত। 

সম্মেলনটির সমাপনী অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন এমএসজে বিভাগের প্রধান অধ্যাপক জুড উইলিয়াম হেনিলো। তিনি বলেন, সিজেইএন সাংবাদিকতার শিক্ষকদের সেতুবন্ধন হিসেবে কাজ করে এবং শিক্ষকদের নেটওয়ার্ককে আরও শক্তিশালী করতে পারে।

ইউল্যাবের মিডিয়া স্টাডিজ এন্ড জার্নালিজম বিভাগের প্রভাষক আমিনুল ইসলামের সঞ্চালনায় ‘মিডিয়া অ্যান্ড জার্নালিজম এডুকেশন : চ্যালেঞ্জস এহেড, নিডেড রেসপন্স’ বিষয় নিয়ে একটি গবেষণাপত্র উপস্থাপন করার সময় সাংবাদিকতা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. সরকার বারবাক কারমাল, নেটওয়ার্কিং এবং মিডিয়ার নতুন পরিবেশের জন্য নিজেদেরকে প্রস্তুত করার উপায় সম্পর্কে যুক্তি দেন। গবেষণাপত্র উপস্থাপন শেষে একটি প্রশ্নোত্তর পর্ব অনুষ্ঠিত হয়।
 
এরপরে শিক্ষার্থীদের জন্য মোবাইল-ফাস্ট সাংবাদিকতা : সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মের জন্য স্থানীয় বিষয়বস্তু তৈরির উপর একটি কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। কর্মশালাটি পরিচালনা করেন মিডিয়া স্টাডিজ অ্যান্ড জার্নালিজম বিভাগে সহকারী অধ্যাপক ড. আব্দুল কাবিল খান এবং চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক রাজীব নন্দী।

ইউল্যাবের মিডিয়া স্টাডিজ অ্যান্ড জার্নালিজম বিভাগের সিনিয়র প্রভাষক নন্দিতা তাবাসসুম খান, আয়োজক, স্বেচ্ছাসেবক এবং অংশগ্রহণকারীদের ধন্যবাদ জানিয়ে সম্মেলনের সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

সিজেইএন বাংলাদেশ কনফারেন্সের ২০২৩ পরবর্তী আয়োজক খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়।
 

এবিএন/জনি/জসিম/জেডি

এই বিভাগের আরো সংবাদ