মুক্তিযুদ্ধ প্রতিদিন : ২২ জুলাই, ১৯৭১

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২২ জুলাই ২০২১, ১৮:২৩ | আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ১৬:৫৩

১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য কিছু ঘটনা নিয়ে ‌‘মুক্তিযুদ্ধ প্রতিদিন’ নামের এই আয়োজন।

এবিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডট কম পাঠকদের জন্য মুক্তিযুদ্ধের আজকের দিনে (২২ জুলাই) ঘটে যাওয়া কিছু ঘটনার বিবরণ তুলে ধরা হল-

  • স্বাধীন বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম ২১ জুলাই মুজিবনগর থেকে জাতিসংঘের মহাসচিব এবং বিশ্বের বিভিন্ন রাষ্ট্রনেতার কাছে পাঠানো এক তারবার্তায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং তাঁর পরিবারের সদস্যদের মুক্তির ব্যবস্থা করার জন্য তাঁদের হস্তক্ষেপ কামনা করেন। যুক্তরাষ্ট্র ও সোভিয়েত ইউনিয়নের প্রেসিডেন্ট এবং ব্রিটেন, ভারত, কানাডা, চীন ও অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রীর কাছে তারবার্তায় তিনি এ আবেদন জানান।
  • বাংলাদেশ ছাত্রলীগ মুক্তাঞ্চল থেকে সংবাদপত্রে পাঠানো এক বিবৃতিতে পশ্চিম পাকিস্তানের সামরিক জেলে বন্দী শেখ মুজিবের মুক্তির জন্য ইয়াহিয়া খানের সরকারের ওপর চাপ সৃষ্টি করার জন্য বিশ্বের ছাত্র ও যুবসমাজের কাছে আবেদন জানায়।
  • গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের অর্থমন্ত্রী ক্যাপ্টেন (অব.) এম মনসুর আলী বিশ্বের বিভিন্ন দেশ এবং সাহায্য সংস্থা পাকিস্তানকে অর্থনৈতিক সাহায্য বন্ধ করায় তাদের অভিনন্দন জানান। তিনি বলেন, পাকিস্তান ও বাংলাদেশ এখন স্বতন্ত্র দুই রাষ্ট্র। কেবল সাড়ে সাত কোটি বাঙালির নির্বাচিত প্রতিনিধিদের মাধ্যমেই বাংলাদেশে বৈদেশিক সাহায্য আসতে পারে।
  • ভারতের রাজধানী দিল্লিতে এই দিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন মুখপাত্র সাংবাদিকদের জানান, বাংলাদেশ সীমান্তের দুই পাশে জাতিসংঘের উদ্যোগে পর্যবেক্ষক মোতায়েন করার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের প্রস্তাব ভারত অগ্রাহ্য করেছে। ভারত সংশ্লিষ্ট সবাইকে বলেছে, ভারতে শরণার্থীশিবিরগুলোতে এবং বাংলাদেশে সীমান্তের দিকে তথাকথিত পাকিস্তানি অভ্যর্থনা কেন্দ্রগুলোতে কিছু পর্যবেক্ষক বসিয়ে বাংলাদেশের গণহত্যা বন্ধ করা যাবে না। বরং বাংলাদেশ পরিস্থিতি সম্পর্কে দুনিয়ায় আত্মতৃপ্তির মনোভাব গড়ে তোলা হবে।
  • ভারতীয় মুখপাত্র আরও বলেন, ভারত বাংলাদেশের মুক্তিবাহিনীকে সব রকম সাহায্য এবং প্রয়োজনে অস্ত্রও দেবে। মুক্তিবাহিনীর জন্য ভারত তার সমর্থন কখনো লুকায়নি, এখনো লুকানোর কারণ নেই।
  • ভারত সফররত অস্ট্রেলিয়ার লেবার পার্টির এমপি ম্যানফেড ক্রস কলকাতায় সাংবাদিকদের বলেন, সব দেশেরই পাকিস্তানকে সব রকম অস্ত্র সাহায্য বন্ধ করে দেওয়া উচিত। এ ছাড়া বাংলাদেশের দুস্থ মানুষদের জন্য সব রকম সাহায্য আন্তর্জাতিক তদারকিতে পাঠানো দরকার।
  • বাংলাদেশের অধিবাসীদের নিশ্চিহ্ন করার পাকিস্তানি সেনা অভিযানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ইসরায়েল এই দিন বিশ্বের রাষ্ট্রগুলোর কাছে আবেদন জানায়।
  • ইসলামিক সেক্রেটারিয়েটের মহাসচিব টুংকু আবদুর রহমান চার দিনের সফরে করাচি থেকে ঢাকা এসে পৌঁছান। পূর্ব পাকিস্তানের শরণার্থী এবং সাহায্য ও পুনবার্সনকাজ পরিচালনা সম্পর্কিত প্রেসিডেন্টের বিশেষ সহকারী আবদুল মোত্তালিব মালিক বিমানবন্দরে তাঁকে স্বাগত জানান। টুংকু আবদুর রহমানের সঙ্গে ছিলেন জর্দানের রাষ্ট্রদূত কামাল আল শরিফ, পাকিস্তানে কুয়েত দূতাবাসের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স সোলায়মান আবু গাউস, ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি রেজা তাকাভি এবং মহাসচিবের বিশেষ সহকারী আলী বিন আবদুল্লাহ।
  • পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) চেয়ারম্যান জুলফিকার আলী ভুট্টো লাহোরে সাংবাদিকদের বলেন, প্রেসিডেন্টের ক্ষমতা হস্তান্তরসংক্রান্ত পরিকল্পনা তিনি গ্রহণ করেছেন। ২৮ জুন প্রচারিত প্রেসিডেন্টের ঘোষণাটি দুই ভাগে ভাগ করা যেতে পারে। এর এক অংশে রয়েছে ক্ষমতা হস্তান্তরের পরিকল্পনা; আরেক অংশে প্রেসিডেন্টের নিজের মতামত। পরিকল্পনার কিছু বিষয়ে তাঁদের ভিন্নমত আছে; কিছু বিষয়ে তাঁরা একমত। প্রেসিডেন্টের সঙ্গে তাঁর মতামত সম্পর্কে আলোচনা চলছে।
  • মুক্তিবাহিনীর চতুর্থ ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টের একদল যোদ্ধা ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পাকিস্তান সেনাবাহিনীর শালদা নদী অবস্থানে অতর্কিত আক্রমণ চালান। এ আক্রমণে কয়েকজন পাকিস্তানি সেনা হতাহত হয়। দেড় ঘণ্টা যুদ্ধের পর মুক্তিযোদ্ধারা অবস্থান ছেড়ে নিরাপদে নিজ ঘাঁটিতে ফিরে যান।
  • একদল মুক্তিযোদ্ধা চাঁদপুর থেকে আশিকাটির দিকে আসা পাকিস্তানি বাহিনীর একটি বড় টহল দলকে আক্রমণ করে। তাদের অ্যামবুশে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর তিনটি গাড়ির যথেষ্ট ক্ষতি এবং কয়েকজন সেনা হতাহত হয়। পাকিস্তানি সেনারা গাড়ি থেকে নেমে পাল্টা আক্রমণের চেষ্টা চালিয়েও প্রচণ্ড গুলির মুখে টিকতে না পেরে পিছু হটে যায়। পরে মুক্তিযোদ্ধারা অবস্থান ছেড়ে নিরাপদে নিজ ঘাঁটিতে ফিরে আসেন।
  • আরেক দল গেরিলা মুক্তিযোদ্ধা ঠাকুরগাঁয়ে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর টহল দলকে অ্যামবুশ করলে কয়েকজন পাকিস্তানি সেনা হতাহত হয়।
সূত্র: বাংলাদেশের স্বাধীনতাযুদ্ধ: সেক্টরভিত্তিক ইতিহাস, সেক্টর দুই ও সাত; ইত্তেফাক, ২২ জুলাই ১৯৭১; আনন্দবাজার পত্রিকা, ভারত, ২২ ও ২৩ জুলাই ১৯৭১

এবিএন/জনি/জসিম/জেডি

এই বিভাগের আরো সংবাদ