প্রতিমা ভাঙচুরে ৯ জেলায় ২৪ মামলা, গ্রেপ্তার ২ শতাধিক

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৯:০৯

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট, হামলা, ভাঙচুর ও পুলিশকে মারধরসহ দুর্বৃত্তপনার অভিযোগে বিভিন্ন ঘটনায় রাজধানীসহ দেশের ৯ জেলায় ২৪টি মামলা হয়েছে।

জড়িত সন্দেহে গ্রেপ্তার করা হয়েছে দুই শতাধিক ব্যক্তিকে। হামলায় জড়িতদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত থাকার কথা জানিয়েছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। এদিকে চৌমুহনিতে জারি করা হয়েছে ১৪৪ ধারা।

কুমিল্লায় ঘটনার পর দেশের কয়েকটি জেলায় ঘটে হামল ও ভাঙচুরের ঘটনা। শুক্রবারও অনেক জায়গায় হামলা হয়েছে। রাজধানী ঢাকা ছাড়াও নোয়াখালী চট্টগ্রামেও ঘটে ভাঙচুররে ঘটনা। শুক্রবার ছিল বিজয়া দশমী।

শুক্রবার জুম্মার নামাজের পর বায়তুল মোকররম মসজিদ ও আশেপাশে মিছিল সমাবেশ করা হয়। বাধা দিলে পুলিশের ওপর হামলা ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে।

ডিএমপি কমিশনার শফিকুল ইসলাম বলেন, 'মামলা নেওয়া হয়েছে, এ পর্যন্ত দুই-তিনটা মামলা নিছি। যারা ধরা পড়েছে তারাই আছে। আমরা ভিডিও দেখতেছি, ভিডিও ফুটেজ দেখে জড়িতদের সনাক্ত করার চেষ্টা চলছে।'

শুক্রবার নোয়খালীর চৌমুহনীতে হামলা ভাঙচুরের পর শনিবার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে আওয়ামী লীগের একটি প্রতিনিধি দল। 

আওয়ামী লীগের হুইপ ও সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ বলেন, 'এই ঘটনাটি অত্যন্ত সুপরিকল্পিত। লন্ডনে বসে থাকা কথিত প্রধানমন্ত্রীর বিগড়ে যাওয়া সন্তান তার পরিকল্পনায় দেশে ধর্ম ব্যবসায়ী চক্র এই অপকর্মটি করে বাংলাদেশকে অস্থিতিশীল করার ষড়যন্ত্র করেছে।'

পুলিশ বলছে, কুমিল্লা ও চাঁদপুরের হাজিগঞ্জ ও নোয়াখালির চৌমুহনীর ঘটনায় কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। জড়িত সবাইকে গ্রেপ্তার করা হবে।

ডিআইজি মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন বলেন, 'মামলা রুজুর প্রক্রিয়াধীন আছে। আমরা চাই যিনি ক্ষতিগ্রস্ত তার পক্ষ থেকে মামলা হলে ভালো হবে। অভিযোগ যাবে মামলা হবে, যতগুলো ঘটনা ঘটেছে সবগুলোকে কেন্দ্র করে মামলা হবে।'

এছাড়া কক্সবাজারের পেকুয়ায়, কুড়িগ্রামের উলিপুরে মৌলভীবাজারের কুলাউড়া ও কমলগঞ্জে সিরাজগঞ্জে হামলা ভাঙচুরের ঘটনায় মামলার পাশপাশি বেশকজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

এবিএন/মমিন/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ
ksrm