আয়া সোফিয়া ও নীল মসজিদ দেখে মুগ্ধ: মিথিলা

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৭ নভেম্বর ২০২১, ২১:১১

দুই বাংলার জনপ্রিয় তারকা রাফিয়াত রশিদ মিথিলা। শুটিং ও ব্যক্তিগত কাজে প্রায়ই দেশের বাইরে যান তিনি। এবার গেলেন তুরস্কে। দেখলেন ঐতিহাসিক স্থাপনা নীল মসজিদ, আয়া সোফিয়াসহ ইস্তাম্বুলের গুরুত্বপূর্ণ সকল স্থাপনা।

বিভিন্ন কাজে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন জনপ্রিয় তারকা রাফিয়াত রশিদ মিথিলা। বেশ কয়েকদিন ধরেই বিদেশে রয়েছেন এই অভিনেত্রী। এবার তিনি গিয়েছিলেন তুরস্কে। দীর্ঘদিন বিদেশের মাটিতে কাজে ব্যস্ত তিনি। তারই মাঝে নিজের জন্য কিছুটা সময় বের করেছেন এই অভিনেত্রী।

মিথিলা বাংলাদেশ রুরাল অ্যাডভান্সমেন্ট কমিটির হয়ে পশ্চিম আফ্রিকার সিয়েরা লিওনে কাজ করেন কয়েক দিন। সিয়েরা লিওন সরকারের সঙ্গে হাতে হাত মিলিয়েই শিশু বিকাশ নিয়ে কাজ করছেন তিনি।

তাই সিয়েরা লিওন থেকে ফেরার সময়ই তিনি যান তুরস্কের বিখ্যাত নগরী ইস্তাম্বুলে। ঘুরে দেখেন ইস্তাম্বুলের ঐতিহাসিক সব স্থাপনা। ইস্তাম্বুলের প্রাচীন ও নান্দনিক মসজিদ আয়া সোফিয়া। যা হাজারো পর্যটক আর মুসল্লির ভিড়ে মুখর থাকে। পাশেই অবস্থিত দৃষ্টিনন্দন ব্লু মসজিদ।

তুরস্কের ঐতিহাসিক স্থাপনা নীল মসজিদের সামনে দাঁড়িয়ে সেলফিও তুলেছেন মিথিলা। আর সেই অভিজ্ঞতার কিছুটা হলেও তার ভক্তদের সঙ্গে শেয়ার করেন এই অভিনেত্রী। যা তিনি প্রকাশ করেছেন তার ইনস্টাগ্রামে। মুগ্ধতা প্রকাশ করে ক্যাপশনে মিথিলা লিখেন, ‘আয়া সোফিয়া ও নীল মসজিদ দেখে মুগ্ধ।’

তিনি ঘুরেছেন বসফরাস প্রণালি। এই প্রণালি মূলত এশিয়া ও ইউরোপ মহাদেশকে বিভক্ত করেছে। প্রতিদিন হাজারো মানুষ এই প্রণালিতে ছোট-বড় জাহাজ ও নৌযানে করে এক পাশে এশিয়া এবং অন্য পাশে ইউরোপের সৌন্দর্য উপভোগ করেন।

প্রত্যেকটা শহরের আলাদা একটা বৈচিত্র্য থাকে। ইস্তাম্বুলও তার ব্যতিক্রম নয়। তাই এই অভিনেত্রী ঘোরাঘুরির পাশাপাশি ইস্তাম্বুলের বিখ্যাত খাবারের স্বাদ নিতে ভুলেননি।

এবিএন/মমিন/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ
ksrm