আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে পটিয়ায় শ্রমিকলীগ নেতার জায়গায় গৃহনির্মাণ

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৬ নভেম্বর ২০২২, ১৩:১৩

চট্টগ্রামের পটিয়া পৌর সদর আলম শাহ সড়ক সংলগ্ন এলাকায় রাতে অন্ধকারে পটিয়া পৌরসভা জাতীয় শ্রমিকলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি কলিমুর রহমানের আদালতে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে কোটি টাকার জায়গা দখল ও গৃহ নির্মাণ করছে প্রতিপক্ষরা। 

এ ঘটনায় কলিমুর রহমান বাদী হয়ে খানমোহনা এলাকার মোহাম্মদ হোসাইন, বদরুছ মেহের বাড়ির মো. দেলোয়ার হোসেন ও মাহমুদুর রহমানের বিরুদ্ধে পটিয়া থানায় ও পৌর মেয়র বরাবরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। 

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, কলিমুর রহমানের দীর্ঘদিনের  মৌরশী ও খরিদা ভোগদখলীয়  জায়গা প্রতিপক্ষরা দেলোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে এলাকার চিহ্নিত ৫০/৬০ জনের  ক্যাডার  ও কিশোর গ্যাং সদস্যরা দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র সজ্জিত হয়ে গত ১৬ নভেম্বর বুধবার রাতে ১৮ নভেম্বর শুক্রবার ভোরে সীমানা প্রাচীর দিয়ে দখলের চেষ্টা করে। এতে কলিমুর রহমান বাধা দিলে তাকে গলায় ধাক্কা মেরে ফেলে দেয় এবং হত্যার হুমকি দেন। এছাড়াও উক্ত বিরোধীয় জায়গায় নিয়ে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালত (চট্টগ্রাম দক্ষিণ) মিস মামলা নং ৩৪/১৮ চলমান থাকা অবস্থায় চলতি বছরের ৮ নভেম্বর  বিবাদীগণের বিরুদ্ধে স্থায়ী নিষেধাজ্ঞার আদেশ দেন। এর পরেও প্রতিপক্ষরা আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে গায়ে জোরে দখলের চেষ্টা চালাচ্ছে ভুক্তভোগী কলিমুর রহমান জানান। এনিয়ে  দখল-বেদখলকে  কেন্দ্র করে এলাকায়   দু’পক্ষের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে, যেকোন মুহূর্তে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা করছে স্থানীয়রা।
 
এ ব্যাপারে পটিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত ওসি রাশেদুল ইসলাম  দৈনিক জনতাকে জানান, আদালতের নিষেধাজ্ঞা ও থানায় অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে উভয় পক্ষকে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য নোটিশ দেওয়া হয়েছে, কেউ শান্তি শৃঙ্খলা ভঙ্গ করলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান। এছাড়াও ১৬ নভেম্বর কলিমুর রহমান বাদী হয়ে চট্টগ্রাম অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ১৪৫ ধারা আইনে মিস মামলা দায়ে করে এতে বিবাদী করা হয় দেলোয়ার হোসেন, আবদুর রহিমসহ ৬ জনকে। 

আদালতের নির্দেশ পেয়ে পটিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত ওসি রাশেদুল ইসলামের নির্দেশ এসআই মোশারফ হোসেন উভয় পক্ষকে বিরোধীয় জায়গা দখল-বেদখল এবং জায়গার শ্রেণী পরিবর্তন থেকে বিরত থাকার নোটিশ দেওয়া হয়। 

ভুক্তভোগী কলিমুর রহমান জানান, থানার নোটিশ আইওয়াইশ ছাড়া কিছুই নয়। থানার সহযোগিতায় দেলোয়ার হোসেন গং বর্তমানে গৃহনির্মাণ এবং সীমানার প্রাচীর করছে। আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে চলছে সন্রাসী কিশোর গ্যাং ভাড়া করে এসমস্ত কাজ করছে বলে তিনি অভিযোগ তুলেন। 

এ ব্যাপারে কলিমুর রহমান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও চট্টগ্রাম পুলিশ কমিশনার, জাতীয় সংসদের হুইপ আলহাজ শামসুল হক চৌধুরীর সৃষ্টি কামনা করেছেন।

এবিএন/সেলিম চৌধুরী/জসিম/গালিব 

এই বিভাগের আরো সংবাদ