সিরাজগঞ্জে নয় মাসে ২৮টি ট্রান্সফরমার চুরি : গ্রেপ্তার ২

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৫ অক্টোবর ২০২১, ১৯:০৭

সিরাজগঞ্জের চলনবিল এলাকার তাড়াশ উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ২৮টি বৈদ্যুতিক ট্রান্সফরমার চুরি হয়েছে। প্রায় ৯ মাসে সেচ ও আবাসিক সংযোগের এ ট্রান্সফরমার চুরি হওয়ায় জনমনে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। অবশ্য পুলিশ এ চুরির ঘটনায় ২ জনকে গ্রেপ্তার করেছে।

 তাড়াশ জোনাল পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন কর্মকর্তা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসের প্রথম থেকে সংঘবদ্ধ চোরেরা ওই উপজেলার বিভিন্ন স্থানের সেচ কাজে ব্যবহৃত ২৮টি ট্রান্সফরমার চুরি করে নিয়ে যায়। এরমধ্যে ৫টি আবাসিক বৈদ্যুতিক ট্রান্সফরমারও রয়েছে। তবে জুলাই, আগষ্ট ও সেপ্টেম্বর মাসে এ চুরির ঘটনা বেশি ঘটে। বিশেষ কৌশলে ট্রান্সফরমার গুলো অনায়াসে চুরি করে নিয়ে যায় চোরেরা।

 এসব ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট থানায় একাধিক মামলাও রয়েছে। এসব মামলায় তেমন প্রতিকার না হওয়ায় কৃষকেরা অসন্তোষ। কারণ ট্রান্সফরমার চুরি হলে নতুন ট্রান্সফরমার ক্রয় ও স্থাপনের খরচ বহন করতে হয় গ্রাহকের। অন্যস্থায় আবাসিক সংযোগ গ্রহনকারীদের থাকতে হবে অন্ধকারে এবং সেচের আওতাভুক্ত জমি থাকবে অনাবাদি। এসব ট্রান্সফরমার চুরির ঘটনার পর এ পর্যন্ত ৭/৮টি আবেদন পাওয়া গেছে। তবে নভেম্বর ও ডিসেম্বরে মৌসুমী ইরি বোরো চাষাবাদ শুরুর আগে আবেদন করতে পারে ভ’ক্তভোগী কৃষক। এদিকে ১০ সেপ্টেম্বর রাতে ওই উপজেলার পারির বড়ইচড়া গ্রামের কৃষক কাদের ও ছোরমান আলীর সেচ কাজে ব্যবহৃত দুটি ট্রান্সফরমার চুরি হয়। সর্বশেষ এ দুটি চুরির ঘটনা নিয়ে ক্ষুব্ধ কৃষকেরা।

এ বিষয়ে তাড়াশ থানার ওসি ফজলে আশিক বলেন, ট্রান্সফরমার চুরির ঘটনায় কয়েকটি অভিযোগ পাওয়া গেছে। এসব অভিযোগ তদন্ত শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যেই সংঘবদ্ধ চোরের ২ সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং তাদের গেফতারের পর এলাকায় এ চুরির ঘটনা ঘটেনি বলে তিনি উল্লেখ করেন।


এবিএন/এস.এম তফিজ উদ্দিন/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ
ksrm