কালীগঞ্জে গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে শ্বশুর আটক

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০২ আগস্ট ২০২১, ১৭:২২

লালমনিরহাটের কালীগঞ্জে মর্জিনা বেগম (২৪) নামে এক গৃহবধুকে পিটিয়ে হত্যা ও মুখে বিষ ঢেলে দিয়ে পালিয়েছে স্বামীসহ পরিবার। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গৃহবধূর শ্বশুর আজিজারকে আটক করেছে পুলিশ।

সোমবার (২ আগস্ট) সকালে উপজেলার গোড়ল ইউনিয়নের দুলালী গ্রামে নিজ বাড়ি থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। তিনি ওই গ্রামের শফিকুল ইসলামের স্ত্রী।
 
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, লালমনিরহাট সদর  উপজেলার হারাটি ইউনিয়নের বালাটারী গ্রামের মজিবর রহমানের মেয়ে মর্জিনা বেগমের সাথে ৫ বছর আগে বিয়ে হয় শফিকুল ইসলামের।  বিয়ের পরে তাদের সংসারে কিরণ বালা (৪) নামে  এক মেয়ের জন্ম হয়। সেই মেয়ে কিরণ বালা রোববার বিকেলে বাড়ির উঠানে পায়খানা করে। যা পরিস্কার করতে বিলম্ব হওয়ায় গৃহবধূ মর্জিনাকে গালমন্দ করেন শ্বাশুরী ও দেবর। এ নিয়ে বাকবিতন্ডা বাঁধে তাদের পরিবারে।

ওই দিন সন্ধ্যায় তাদের বিতন্ডায় যুক্ত হন মর্জিনার স্বামী শফিকুল ইসলাম। এতে শফিকুলের লাঠির আঘাতে গুরুতর আহত হন মর্জিনা বেগম। তাকে আশংকাজনক অবস্থায় হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হলে বাড়িতে মরদেহ রেখে মুখে বিষ ঢেলে দিয়ে ঘরের আসবাবপত্র নিয়ে রাতেই পালিয়ে যায় তার পরিবার। স্থানীয়দের মাধ্যমে মৃত মর্জিনার বাবা খবর পেয়ে কালীগঞ্জ থানায় মেয়েকে হত্যার অভিযোগ দায়ের করেন।

কালীগঞ্জ থানা পুলিশ সোমবার সকালে মরদেহ উদ্ধার করে লালমনিরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। এ ঘটনায় সন্দেজনক ভাবে মৃত মর্জিনার শ্বশুর আজিজার রহমানকে আটক করে পুলিশ।

মৃত মর্জিনার বাবা মজিবর রহমান বলেন, আমার মেয়েকে তুচ্ছ ঘটনায় পিটিয়ে হত্যা করে মুখে বিষ ঢেলে বাড়ির সবাই পালিয়েছে। আমি মেয়ের হত্যার সুষ্ঠ বিচার চাই।

কালীগঞ্জ থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আরজু মোঃ সাজ্জাদ হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মৃতদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। সন্দেহজনকভাবে মৃতের শ্বশুরকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

এবিএন/আসাদুজ্জামান সাজু/গালিব/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ