মৌলভীবাজারে আগামিকাল ৬৫৭ পরিবার পাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর উপহার

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৯ জুন ২০২১, ১৯:২৩

'আশ্রয়নের অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার' - এই  স্লোগানকে সামনে রেখে দ্বিতীয় পর্যায়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় ৫৩ হাজার ৩৪০টি পরিবারকে বিনামূল্যে দুই শতক জমি ও সেমিপাকা ঘর দেয়া হচ্ছে। আগামীকাল রবিবার (২০ জুন) এর শুভ উদ্বোধন করবেন মাননীয়  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

জেলা প্রশাসন সুত্র জানায়, মুজিববর্ষে ‘বাংলাদেশের একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না’- মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এ নির্দেশনা বাস্তবায়নে দেশের সব ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদান কার্যক্রম চলমান রয়েছে। ইতোমধ্যে চলতি বছরের ২৩ জানুয়ারি প্রথম পর্যায়ে  ৬৯ হাজার ৯০৪টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে বিনামূল্যে জমিসহ গৃহ প্রদান কার্যক্রম উদ্বোধন করেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আগামীকাল ২০ জুন তিনি দ্বিতীয় পর্যায়ে ৫৩ হাজার ৩৪০টি পরিবারকে বিনামূল্যে জমিসহ গৃহ প্রদান কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন করবেন।

জেলা প্রশাসন সুত্র জানায়, মৌলভীবাজার  জেলায়      প্রথম পর্যায়ে ১১২৬টি এবং দ্বিতীয় পর্যায়ের ১১৫১টিসহ মোট বরাদ্দপ্রাপ্ত ঘরের সংখ্যা ২২৭৭টি। আগামীকাল  ২০ জুন দ্বিতীয় পর্যায়ের ১১৫১টির মধ্যে ৬৫৭টি ঘর উপকারভোগীদের মাঝে হস্তান্তর করা হবে। অবশিষ্ট ৪৯৪টি ঘরও মাটি ভরাট করে নির্মাণ করা হচ্ছে। নির্মান কার্যক্রম শেষে ধারাবাহিকভাবে গৃহগুলো উপকারভোগীদের নিকট হস্তান্তর করা হবে।

জেলা প্রশাসন আরো জানায়, জেলার ৭টি উপজেলায় ৬৫৭টি ঘর কাল হস্তান্তর করা হবে। এর মধ্যে সদর উপজেলায় ৩৭টি, রাজনগরে ৪২টি, শ্রীমঙ্গলে ১৫৮টি, কমলগঞ্জে ১৫২টি, কুলাউড়ায় ৮৩টি, জুড়ীতে ৮০টি, বড়লেখায় ১০৫টি ঘর উপকারভোগীদের নিকট হস্তান্তর করা হবে। প্রতিটি পরিবারের অনুকূলে ২ শতাংশ করে জমি, নির্মিত গৃহে দুইটি কক্ষ, একটি রান্নাঘর, একটি ল্যাট্রিন ও একটি স্টোর রুম থাকবে।  সরবরাহকৃত ফোল্ডারে কবুলিয়ত, নামজারি খতিয়ান, সনদপত্র ও নামজারী ডিসিআর থাকবে।

জেলা প্রশাসন সুত্র জানায়,  শ্রীমঙ্গলের মাইজদিহি আশ্রয়ন প্রকল্প থেকে আগামীকাল  ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাথে সরাসরি সংযুক্ত থাকবে শ্রীমঙ্গল উপজেলা। সেখানে স্থানীয় সংসদ সদস্য, জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী অফিসার,  এসি ল্যাণ্ড, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা, সুধীবৃন্দ, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, জনপ্রতিনিধি, প্রকল্প বাস্তবায়ন ও প্রকল্প মনিটরিং কমিটির সদস্যবৃন্দ  এবং  উপকারভোগীরা উপস্থিত থাকবেন।

সুত্র জানায়, ‘মাইজদিহি এলাকার 'আশ্রয়ন প্রকল্প’ যেন প্রধানমন্ত্রীর 'আমার গ্রাম আমার শহর' ধারনার প্রতিফলন।  প্রকল্প এলাকায় ইন্টারনেট, বিদ্যুৎ সংযোগ ও ৮টি গভীর নলকুপ স্হাপন করা হয়েছে। এখানে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়, একটি মসজিদ ও একটি মন্দির নির্মান করা হচ্ছে। এছাড়া পুরো এলাকা সবুজায়নের লক্ষ্যে বিভিন্ন প্রজাতির কয়েক হাজার গাছের চারা রোপণের কাজ চলছে। এতে আশ্রয়ন প্রকল্পটি ছায়াঘেরা অপরুপ সৌন্দর্যময়  গ্রামে পরিণত হবে।

এবিএন/আতাউর রহমান/জসিম/জুয়েল

এই বিভাগের আরো সংবাদ