অভাবে গরুর বদলে লাঙ্গল টানছেন দুই বৃদ্ধ

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৩ মার্চ ২০২১, ১৪:২৯

দিনমজুর কৃষক নূর ইসলাম (৬৫) ও আব্দুল জব্বার (৭০)। পেটের দায়ে বৃদ্ধ বয়সেও কাজ করেন দৈনিক ভিত্তিতে অন্যের কৃষি জমিতে। কারণ কাজ করলেই মিলবে অর্থ। আর সেই অর্থেই পরিবারের কপালে জুটবে খাবার। নয়তো অভুক্ততই থাকতে হবে পরিবার নিয়ে। কিন্তু পরিশ্রমী এই দুই বৃদ্ব এবার ‍গরুর পরিবর্তে নিজেরাই কৃষি জমিতে লাঙ্গল ঘাড়ে নিয়ে হাল চাষ করেছেন আলুর খেতে। 

আজ মঙ্গলবার (২৩ মার্চ) সকালে কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার পাঁচগাছী ইউনিয়নের উত্তর নওয়াবস গ্রামে এ দৃশ্য দেখা যায়। এই দু’জন কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার পাঁচগাছী ইউনিয়নের উত্তর নওয়াবস গ্রামের বাসিন্দা।

নূর ইসলাম ও আব্দুল জব্বার দু’জনই দিনমজুর হিসেবে কাজ করে সংসার চালান। সকালে  তারা এক কৃষকের আলুর খেতে কাজে আসেন। কিন্তু যে কৃষকরে কাজে তারা এসেছেন তার গরু নাই। গরু না থাকাতেই এই দুই বৃদ্বই ঘাড়ে তুলে নেন লাঙল!  নিজেরাই লাঙল টেনে করছেন হাল চাষ।

বৃদ্ধ আব্দুল জব্বার বলেন, কাজ করেলে টাকা পাবো। না হলে তো  খাবার জুটবে না! তাই  দিন মজুর হিসাবে আলুর খেতে লাঙল দিয়ে হাল চাষ করছি। এই কাজ করে  ৩শ টাকা পাবো। যা দিয়ে পরিবারের খাবার জুটবে।

আরেক বৃদ্ধ নূর ইসলাম বলেন, যার খেতের কাজ আমরা করছি তার গরু নাই। তাই আমরা নিজেরাই ঘাড়ে করে লাঙ্গল টানছি। কাজ না করলে খাবো কি? পরিবারকে কি খাওয়াবো কি? তাই এই কাজ করছি।

একই বিষয়ে কুড়িগ্রাম সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোছা. নিলুফা ইয়াসমিন বলেন, এখন এই আধুনিক যুগে হাল চাষ তো হয় না। তারপরও আমরা বিষয়টা খোঁজ নিবো।

এই ঘটনার বিষয়ে কুড়িগ্রাম কৃষি অধিদফতরের কৃষি কর্মকর্তা মো. আমিনুল ইসলাম জানান,  দুই বৃদ্ব অভাব-অনটনের কারণে কাজে এসেছেন। তবুও  দুই বৃদ্ধকে দিয়ে হাল চাষ করে অমানবিক কাজ করছেন ওই কৃষক।  তবে তাদের দিয়ে এ কাজ করা মোটেও ঠিক হয়নি।

এবিএন/শংকর রায়/জসিম/পিংকি

এই বিভাগের আরো সংবাদ