তদন্ত ছাড়াই উপাচার্যের পদত্যাগ চান শাবিপ্রবি শিক্ষার্থীরা

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২১ জানুয়ারি ২০২২, ০০:৪৩

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন কিংবা রাষ্ট্র কারো মাধ্যমে তদন্ত চান না শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। তাদের একমাত্র দাবি, উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের পদত্যাগ। এই দাবিতেই আমরণ অনশনে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। কোনো ধরনের তদন্ত না করেই উপাচার্যের পদত্যাগের দাবি জানান তারা।

শিক্ষার্থীরা জানায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়ম অনুযায়ী প্রশাসনের অনুমতি ছাড়া পুলিশ ক্যাম্পাসে ভেতরে অবস্থান কিংবা শিক্ষার্থীদের ওপর লাঠিচার্জ করতে পারে না। তাই শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশের হামলার দায়ভার উপাচার্যকেই নিতে হবে। একই সঙ্গে দ্রুত পদত্যাগ করতে হবে।

আজ বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারি) দুপুরে আন্দোলনরতদের সঙ্গে আলোচনা করাতে আসেন শিক্ষকদের একটি প্রতিনিধি দল। এ সময় শিক্ষকদের কাছে এমন অভিযোগ করেন আন্দোলনকারীরা। তবে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে উপাচার্য বিরোধী আন্দোলনে একাত্মতা পোষণ না করায় শিক্ষকদের ফিরিয়ে দিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। পরে বেলা আড়াইটায় পুনরায় শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনা করতে আসেন শিক্ষকদের প্রতিনিধি দল। তখনও শিক্ষকদেরকে ফিরিয়ে দেন শিক্ষার্থীরা।

এর আগে, গতকাল বুধবার রাত ৮টা ৪৫ মিনিট থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনার চেষ্টা করেন শতাধিক শিক্ষক। তাদের প্রস্তাবও ফিরিয়ে দেন শিক্ষার্থীরা।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে উপাচার্যের বাসভবনের সামনে অনশন ও প্রতিবাদরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয় কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক আনোয়ারুল ইসলামের নেতৃত্বে একদল শিক্ষক আসেন।

এ সময় তারা উপস্থিত শিক্ষার্থীদের নিয়মতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় আলোচনার মাধ্যমে এ সমস্যা সমাধানে আহ্বান জানাতে চাইলে শিক্ষার্থীরা তাদেরকে উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে একমত না হলে কোনো প্রস্তাবে আলোচনায় বসতে অস্বীকৃতি জানান। প্রায় আধা ঘণ্টা ঘটনাস্থলে অবস্থান করে স্থান ত্যাগ করেন শিক্ষকরা।

পরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলোচনাকালে কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, তদন্তের মাধ্যমে উপাচার্যের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হলে তখন শিক্ষকরাও তাদের সঙ্গে আন্দোলনে যোগ দেবেন। কোনো স্বৈরাচারী উপাচার্যের জায়গা এ ক্যাম্পাসে হবে না। তদন্তে যেই দায়ী হবে, উপাচার্য হলেও তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি। শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশি হামলার সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে তা বেরিয়ে আসুক। এ সময় সার্বিক বিষয়ে তদন্তের জন্য প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতি বরাবর আবেদন করেন কোষাধ্যক্ষ।

কোষাধ্যক্ষ আরো বলেন, আলোচনার মাধ্যমে সব সমস্যা সমাধান করা সম্ভব। আমরা জানি, আমাদের ওপর শিক্ষার্থীদের ক্ষোভ রয়েছে, আমাদেরও অনেক দুঃখ রয়েছে। আমরা খুব দ্রুত শিক্ষার্থীদের নিয়ে ক্লাসে ফিরে যেতে চাই। তবে এসময় শিক্ষার্থীরা বলেন, শিক্ষকদের ওপর আমাদের কোনো ক্ষোভ নেই। আমরা শিক্ষার্থী বান্ধব উপাচার্য চাই, যে উপাচার্য নিজ সন্তানদের ওপর গুলি চালায়, আমরা তাকে চাই না। আমরা তার পদত্যাগ চাই। এসময় শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সঙ্গে সংহতি প্রকাশের জন্য শিক্ষকদেরকে আহ্বান জানান আন্দোলনকারীরা।

উল্লেখ্য, গত রবিবার বেগম সিরাজুন্নেসা হলের প্রভোস্টের পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালায় পুলিশ। এরপর ওই হলের প্রভোস্ট অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে পদত্যাগ করলেও পুলিশি হামলার প্রতিবাদ জানিয়ে উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলন শুরু করেন শিক্ষার্থীরা।

এবিএন/শংকর রায়/জসিম/পিংকি

এই বিভাগের আরো সংবাদ