‘ভোটের দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তাদের ভয়ের ঊর্ধ্বে গিয়ে কাজ করতে হবে’

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ২১:১৫

ভোটে দায়িত্বপালনকারী কর্মকর্তাদের ভয়ের ঊর্ধ্বে গিয়ে সাহসের সঙ্গে কাজ করার পরামর্শ দিয়েছেন নির্বাচন কমিশনার বেগম রাশেদা সুলতানা। আজ সোমবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন। 

গত ১২ অক্টোবর গাইবান্ধা-৫ আসনে উপনির্বাচনে চরম অনিয়মের অভিযোগ ভোট শেষের দেড় ঘণ্টা আগেই বন্ধ ঘোষণা করে কাজী হাবিবুল আউয়াল কমিশন। পরে ১২৫ জন প্রিসাইডিং কর্মকর্তাসহ ভোটের দায়িত্বে থাকা রিটার্নিং কর্মকর্তার দায়িত্ব অবহেলার প্রমাণ পাওয়ায় কমিশন তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করে। সে ক্ষেত্রে নতুন করে যারা এই ভোটের দায়িত্ব নেবে তাদেরকেই ভয়ের ঊর্ধ্বে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন এই কমিশনার। 

রাশেদা সুলতানা বলেন, ‘আমি সরকারি কর্মচারী। এটা আমার রাষ্ট্রীয় দায়িত্ব। আমাকে ভয় পেলে চলবে না। ভয়ের ঊর্ধ্বে থাকতে হবে। সাহসটুকু তো তার ভেতর রাখতে হবেই।’ 

গাইবান্ধা-৫ আসনের উপনির্বাচনের পুনরায় ভোটগ্রহণ খুব শিগগিরই হবে বলে জানান এই নির্বাচন কমিশনার। তিনি জানান, চলতি সপ্তাহের মধ্যেই দিনক্ষণ ঠিক হবে। আর আগামী জানুয়ারির মধ্যেই ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। 

এদিকে নির্বাচন কমিশনের একটি সূত্র বলছে মঙ্গলবার কমিশনের দশম সভায় স্থগিত থাকা এই উপনির্বাচনটির বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। 

গাইবান্ধা ভোটে অনিয়মের সঙ্গে জড়িতদের কোনো অবস্থায় আর দায়িত্ব দেওয়া হবে না বলে জানান ইসি রাশেদা সুলতানা। তিনি বলেন, ‘যারা দোষী হয়েছে তাদের আনার আর সুযোগ নেই। প্রিসাইডিং অফিসার নিয়োগে আইনে যা বলা আছে, ওই আইন অনুযায়ী যদি পাওয়া যায় ওই উপজেলায় না হয় অন্য আশপাশের উপজেলা থেকে আনতে হবে।’ 

একই সঙ্গে এই উপনির্বাচনে নতুন রিটার্নিং কর্মকর্তা কে হবেন সে বিষয়েও কালকের কমিশন সভায় সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানান ইসি রাশেদা সুলতানা। 

গাইবান্ধায় সুষ্ঠু সুন্দর ভোট হবে আশা প্রকাশ করে এই কমিশনার বলেন, ‘গাইবান্ধার পরে যে কয়টা ভোট করেছি কোথাও কোনো ঝামেলা হয়নি। আশা করি এবারও হবে না। একটা ভালো নির্বাচনই করে ফেলতে পারব।’ 

এবিএন/আব্দুর রাজ্জাক/জসিম/এআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ