নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচন জানুয়ারিতে: ইসি সচিব

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৭ নভেম্বর ২০২১, ২১:০৮ | আপডেট : ২৭ নভেম্বর ২০২১, ২১:৪৩

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন জানুয়ারিতেই সম্পন্ন হবে। এক প্রশ্নের জবাবে নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব মো. হুমায়ুন কবীর খোন্দকার বলেন, জানুয়ারির মধ্যে সব নির্বাচন সম্পন্ন করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। আগামী সপ্তাহে কমিশনের আরেকটি বৈঠক রয়েছে। সেখানে, নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনের বিষয়ে আলোচনা হবে এবং এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ২২ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন সম্পন্ন হয় এবং কর্পোরেশনের প্রথম মিটিং হয় ৮ ফেব্রুয়ারি। সে হিসেবে এটির মেয়াদ শেষ হবে আগামী ৭ ফেব্রয়ারি।

বর্তমান নির্বাচন কমিশনের মেয়াদ শেষ হবে আগামী বছরের ফেব্রয়ারির মাঝামাঝি সময়ে। অপরদিকে, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়াদ শেষ হবে ৭ ফেব্রুয়ারি। সে ক্ষেত্রে বর্তমান কমিশন নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচন সম্পন্ন করে যাবে বলে জানা গেছে।

শনিবার (২৭ নভেম্বর) সকালে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নূরুল হুদার সভাপতিত্বে কমিশনের নব্বইতম সভার মূলতবি সভা শেষে পঞ্চম দফা ইউপি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয় এবং এসব তথ্য জানানো হয়।

নির্বাচন ভবনের মিডিয়া সেন্টারে অনুষ্ঠিত সংবাদ ব্রিফিংয়ে ইসির অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ, এনআইডি ডিজি এ কে এম হুমায়ুন কবীর, যুগ্মসচিব ফরহাদ আহাম্মদ খান ও জনসংযোগ পরিচালক এসএম আসাদুজ্জামান উপস্থিত ছিলেন।

সভা শেষে নির্বাচন কমিশন সচিব জানান, তফসিল অনুযায়ী সাধারণ সদস্য ও সংরক্ষিত নারী সদস্যপদে ৭ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন। মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই হবে ৯ ডিসেম্বর। আপিল ১০ থেকে ১২ ডিসেম্বর, নিষ্পত্তি ১৩ ও ১৪ ডিসেম্বর। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার ১৫ ডিসেম্বর, প্রতীক বরাদ্দ ১৭ ডিসেম্বর।

আর পঞ্চম ধাপে মোট ৭০৭টি ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন হবে আগামী ৫ জানুয়ারি। প্রতিটি কেন্দ্রে নিয়োজিত আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর মধ্যে ৫ জন পুলিশ, ২ জন আনসার বাহিনীর সদস্যের কাছে অস্ত্র থাকবে।

কমিশন সচিব আরও জানান, আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে অতিরিক্ত ফোর্স প্রয়োজন হলে, জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তাসহ সংশ্লিস্টরা যদি বলেন, তবে নির্বাচন কমিশন অতিরিক্ত ফোর্স দেবে।

সচিব জানান, এখনও পর্যন্ত ইউপি নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক ও উৎসবমূখর হয়েছে। রোববারও (২৮ নভেম্বর) তাই হবে। কোনো আশংকা নেই। নির্বাচনের কারণেই যে সহিংসতা হচ্ছে, তা নয়। পূর্ব শত্রুতার কারণে বা এলাকাভিত্তিক প্রভাবে হয়ে থাকে।

উল্লেখ্য, এর আগে গত ২১ জুন ও ২০ সেপ্টেম্বর প্রথম ধাপের দুই দফায় ৩৬৯টি, ১১ নভেম্বর দ্বিতীয় ধাপে ৮৩৩টি ইউপি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। রোববার (২৮ নভেম্বর) তৃতীয় ধাপে এক হাজার ৭টি এবং চতুর্থ ধাপে আগামী ২৩ ডিসেম্বর ৮৪০টি ইউপি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এরপর ষষ্ঠ ধাপে বাকি ইউপি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হবে।

এবিএন/মমিন/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ
ksrm