বুকারজয়ী লেখক গীতাঞ্জলি শ্রীর বই নিয়ে অভিযোগ, বাতিল অনুষ্ঠান

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ৩১ জুলাই ২০২২, ১০:৫৭

বুকারজয়ী ভারতীয় লেখক গীতাঞ্জলি শ্রী। ছবি: টুইটার
প্রথম ভারতীয় হিসেবে বুকার পুরস্কারজয়ী লেখক গীতাঞ্জলি শ্রীর একটি সম্মাননা অনুষ্ঠান বাতিল করা হয়েছে। শনিবার উত্তর প্রদেশের হাতরাস জেলার আগ্রায় অনুষ্ঠানটি হওয়ার কথা ছিল। তাঁর লেখা ‘রেত সমাধি’ উপন্যাসে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করার মতো বিষয় আছে—এমন অভিযোগ ওঠার পর অনুষ্ঠানটি বাতিল করা হয়। আজ রোববার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস, দ্য প্রিন্ট ও স্ক্রল ডট ইন। 

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস জানিয়েছে, সন্দীপ কুমার পাঠক নামের এক ব্যক্তি গত ২১ জুলাই গীতাঞ্জলি শ্রীর নামে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানার অভিযোগ এনে শাদাবাদ থানায় অভিযোগ পত্র দিয়েছেন। এ খবর জানার পর গীতাঞ্জলি শ্রী সম্মাননা অনুষ্ঠানে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। পরে আয়োজক প্রতিষ্ঠান রঙ্গলীলা ও আগ্রা থিয়েটার অনুষ্ঠানটি বাতিল করে। 

শনিবার হাতরাস পুলিশ বলেছে, তারা অভিযোগটি খতিয়ে দেখছে। তবে এখন পর্যন্ত কোনো মামলা দায়ের করা হয়নি। 

রঙ্গলীলা সংগঠনের প্রধান অনিল শুক্লা বলেছেন, ‘আমরা অনির্দিষ্টকালের জন্য অনুষ্ঠান স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। অনুষ্ঠানে যাঁদের অংশ নেওয়ার কথা ছিল, তারা পরবর্তী করণীয় নিয়ে এখন মিটিং করছেন।’ অনুষ্ঠানে বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, লেখক, কবি ও বুদ্ধিজীবীদের উপস্থিত থাকার কথা ছিল বলেও জানিয়েছেন অনিল শুক্লা। 

এদিকে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় অভিযোগকারী সন্দীপ কুমার পাঠক বলেছেন, ‘রেত সমাধি উপন্যাসের ২২২ পৃষ্ঠায় কিছু আপত্তিকর কথা রয়েছে। আমি মনে করি এ উপন্যাসে হিন্দু ধর্মের অনুসারীদের অসম্মান করা হয়েছে।’ 

সন্দীপ দাবি করেছেন, গীতাঞ্জলি তাঁর উপন্যাসে দেবতা শিব ও পার্বতী সম্পর্কে আপত্তিকর ভাষা ব্যবহার করেছেন। এ সব ভাষা তাঁর ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করেছে। তিনি বলেন, ‘খুবই অশ্লীল ভাষা...আমি এ জন্য হাতরাসের সাদাবাদ থানায় অভিযোগপত্র জমা দিয়েছি। এমনকি সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে মুখ্যমন্ত্রীর পোর্টালেও অভিযোগ জানিয়েছি। তবে কোনো মামলা করিনি।’ 

শাদাবাদ স্টেশন হাউস অফিসার (এসএইচও) আশিস কুমার সিং বলেছেন, ‘আমরা অভিযোগ খতিয়ে দেখছি এবং তদন্ত চলছে। এখন পর্যন্ত এ ব্যাপারে কোনো এফআইআর দায়ের করা হয়নি।’ 

ভারতীয় লেখক গীতাঞ্জলি শ্রীর জন্ম দেশটির উত্তর প্রদেশের মণিপুরী শহরে। হিন্দু ভাষায় লেখা তাঁর উপন্যাস ‘রেত সমাধি ইংরেজিতে অনূদিত হয়ে ‘টুম্ব অব স্যান্ড’ নামে যুক্তরাজ্য থেকে প্রকাশিত হওয়ার পর ইন্টারন্যাশনাল বুকার প্রাইজ-২০২২ অর্জন করেন গীতাঞ্জলি শ্রী। হিন্দি ভাষায় ‘রেত সমাধি’ প্রথম প্রকাশিত হয়েছিল ২০১৮ সালে। 
 

এবিএন/জনি/জসিম/জেডি

এই বিভাগের আরো সংবাদ