শিক্ষিকার বিচ্ছিন্ন হাত জোড়া লাগাতে অস্ত্রোপচার শুরু

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১০ মার্চ ২০২০, ২১:২৫

রাজধানীর কাকরাইল উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষক সৈয়দা ফাহিমা বেগমের (৪৮) বিচ্ছিন্ন হওয়া হাতটি জোড়া লাগানোর চেষ্টা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

দুর্ঘটনার পর গুরুতর আহত ফাহিমা বেগমকে হেলিকপ্টারে করে বিকেলে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে নিয়ে আসা হয়। সেখানে আনার পরই চিকিৎসকেরা অস্ত্রোপচারকক্ষে নিয়ে যান তাকে। অধ্যাপক আবুল কালামের নেতৃত্বে অর্থোপেডিক, প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগের সার্জনসহ কয়েকটি বিভাগের চিকিৎসকের সমন্বয়ে এই অস্ত্রোপচার শুরু হয়েছে।

এর আগে গোপালগঞ্জে শিক্ষা সফরে যাওয়ার পথে বাস ও ট্রাকের সংঘর্ষে বাসে থাকা শিক্ষিকা ফাহিমা বেগমের (৫০) বাম হাত বিচ্ছিন্ন হয়। এ সময় ঐ বাসে থাকা অন্তত ১৫ শিক্ষার্থী আহত হয়েছে।

মঙ্গলবার (১০ মার্চ) দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার পাথালিয়া এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

আহতরা সবাই ঢাকার কাকরাইলের উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুল এন্ড কলেজের কলেজ শাখার শিক্ষক ও শিক্ষার্থী। আহতদের মধ্যে ১০ জনকে গোপালগঞ্জ ২৫০শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকীদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার নুর মোহাম্মদ সিকদার জানিয়েছেন, ঢাকার কাকরাইলের উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুল এন্ড কলেজের কলেজ শাখার শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানে সমাধি সৌধে শিক্ষা সফরে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার ঘোনাপাড়া এলাকায় বাস চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা একটি ট্রাকের পিছনে ধাক্কা লাগায়। এতে উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুল এন্ড কলেজের পৌরনীতি বিভাগের শিক্ষিকা ফাহিমা বেগমের বাম হাত শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় ও অন্তত ১৫ শিক্ষার্থী আহত হয়। 

বেলা সাড়ে ৩ টায় হাত বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া ওই শিক্ষিকাকে হেলিকপ্টারে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা ও পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সাইদুর রহমান খানসহ  উর্ধতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল ও হাসপাতালের রোগীদের চিকিৎসার খোঁজ খবর নেন।

এবিএন/মমিন/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ