চলে গেলেন স্যার এভার্টন উইকস

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০২ জুলাই ২০২০, ১২:৪৫

চলে গেলেন থ্রি ডব্লুিউ'জ-এর শেষ সদস্য স্যার এভার্টন উইকস। বুধবার বার্বাডোজে নিজের বাসভবনে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন কিংবদন্তি ক্যারিবিয়ান ব্যাটসম্যান। দীর্ঘদিন বার্ধক্যজনীত রোগভোগের পর ইহলোকের মায়া ত্যাগ করেন উইকস। মৃত্যুকালে তাঁর বসয় হয়েছিল ৯৫ বছর।

থ্রি ডব্লুিউ'জ-এর অপর দুই সদস্য ফ্র্যাঙ্ক ওরেল ১৯৬৭ সালে এবং ক্লাইড ওয়ালকট ২০০৬ সালে প্রয়াত হয়েছেন। বার্বাডোজে কয়েক কিলোমিটার ব্যবধানে থাকতেন তিন তারকা। তিনজনেরই ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে টেস্ট অভিষেক হয় ১৯৪৮ সালে।

মাত্র ২২ বছর বয়সে কেনিংটন ওভালে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক অভিষেক হয় উইকসের। ৪০ ও ৫০-এর দশকে বিশ্বের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান হিসেবে পরিচিত ছিলেন তিনি। বর্ণোজ্জ্বল কেরিয়ারে ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে ৪৮টি টেস্ট খেলেছেন উইকস। ৫৮.৬১ গড়ে করেছেন ৪,৪৫৫ রান।

কেরিয়ারে ১৫টি আন্তর্জাতিক সেঞ্চুরি ও ১৯টি হাফ-সেঞ্চুরি করেছেন উইকস। সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত ইনিংস ২০৭ রানের। ১৯৪৮ সালে পর পর পাঁচটি টেস্ট সেঞ্চুরি করার বিশ্বরেকর্ড গড়েন তিনি। জামাইকায় ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ১৪১ রান করার পর ভারতের বিরুদ্ধে দিল্লিতে ১২৮, মুম্বইয়ে ১৯৪ এবং কলকাতায় ১৬২ ও ১০১ রানের ইনিংস খেলেন উইকস। ঠিক পরের ইনিংসে তিনি ৯০ রান করে রান-আউট হয়েছিলেন।

১৯৫৮ সালে পোর্ট অফ স্পেনে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে কেরিয়ারের শেষ টেস্ট খেলেন উইকস। শেষ টেস্টেও করেন হাফ-সেঞ্চুরি। স্যার ডন ব্র্যাডম্যানের থেকেও দ্রুত টেস্টে ১০০০ রান করেন উইকস। মাত্র ৯টি টেস্টের ১২টি ইনিংসে তিনি ছাড়িয়ে যান হাজার রানের গণ্ডি। এই নিরিখে যুগ্মভাবে রেকর্ডের অধিকারী উইকস।

স্বাভাবিকভাবেই উইকসের প্রয়াণে শোকের ছায়া ওয়েস্ট ইন্ডিজ তথা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটমহলে। ক্যারিবিয়ান বোর্ডের পাশাপাশি উইকসের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছে আইসিসি এবং এমসিসিও।

এবিএন/জনি/জসিম/জেডি

এই বিভাগের আরো সংবাদ