আইপিএল থেকে পর্যায়ক্রমে চীনা স্পন্সর সরানোর দাবি

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০২ জুলাই ২০২০, ০১:০৭

পর্যায়ক্রমে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) থেকে চীনের স্পন্সর সরানোর দাবি জানিয়েছেন কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের অন্যতম ফ্র্যাঞ্চাইজি মালিক নেস ওয়াদিয়া।

গত কয়েক মাস ধরে চীনের সঙ্গে যুদ্ধ পরিস্থিতি বিরাজ করছে ভারতের। ৬ জুন উভয়পক্ষের প্রথম দফা বৈঠকে কোনো ফল আসেনি। ১৬ জুন চীন ও ভারতের সেনা সদস্যদের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয়। সেই সংঘর্ষে ভারতীয় ২০ জওয়ান নিহত হন। চীনেরও কয়েকজন সেনাও নিহত হন।

তারপর থেকেই উভয় দেশের সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি হতে থাকে। ১৬ জুনের সেই সংঘর্ষকে কেন্দ্র করেই চীনের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার জন্য জোর দাবি উঠেছে ভারতে।

এ দিকে, আইপিএল থেকে পর্যায়ক্রমে চীনের স্পন্সর বাতিলের দাবি জানিয়ে নেস ওয়াদিয়া বলেছেন, দেশের স্বার্থে চীনের প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক ছিন্ন করা উচিত। সবার আগে দেশ। টাকা এখানে গৌন। আর এটা তো ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ, চাইনিজ প্রিমিয়ার লিগ তো নয়। উদাহরণ স্থাপন করা উচিত আমাদের। রাস্তা দেখানো উচিত।

গালওয়ান উপত্যকায় সংঘর্ষকে কেন্দ্র করে ইতোমধ্যেই চীনের ৫৯টি অ্যাপ নিষিদ্ধ করেছে ভারত সরকার। নরেন্দ্র মোদি সরকারের এমন সিদ্ধান্তের পর আইপিএল থেকে চীনের স্পন্সর সরানোর দাবি জানিয়েছেন কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের অন্যতম মালিক।

নেস ওয়াদিয়া বলেন, শুরুতে স্পন্সর খুঁজে পাওয়া মুশকিল। তবে আমি নিশ্চিত যে ওদের বিকল্প হয়ে ওঠার মতো প্রচুর ভারতীয় কোম্পানি রয়েছে। সরকারের প্রতি দেশের মানুষের শ্রদ্ধা থাকা উচিত। এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ, সেনাদের প্রতি শ্রদ্ধা থাকা উচিত।

নেস ওয়াদিয়া আরও বলেছেন, আমি যদি ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের (বিসিসিআই) সভাপতি হতাম, তবে আসন্ন মৌসুমে ভারতীয় স্পন্সর খোঁজা শুরু করতাম। ভারতীয় কোম্পানিদের এবার এগিয়ে আসতে হবে। আইপিএল বিশ্বের সেরা টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট, চীনের কোম্পানিগুলো আইপিএল থেকে সুবিধা নেয়ার জন্য যেভাবে তাকায়, ভারতীয় কোম্পানি মালিকদেরও সেভাবে দেখতে হবে। চীনের স্পন্সর সরিয়ে দেওয়ার জন্য সময়ের প্রয়োজন।

প্রসঙ্গত, ভারতের জনপ্রিয় ক্রিকেট টুর্নামেন্ট আইপিএলে ২০২২ সাল পর্যন্ত টাইটেল স্পন্সর হয়েছে চীনের মোবাইল ফোন কোম্পানি ভিভো। প্রতি বছর ভিভো থেকে ৪৪০ কোটি টাকা করে পায় বিসিসিআই।

এবিএন/শংকর রায়/জসিম/পিংকি

এই বিভাগের আরো সংবাদ