বড় জয়ে প্লে অফের আশা বাঁচল রংপুরের

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৪ জানুয়ারি ২০২০, ০০:১০

বঙ্গবন্ধু বিপিএলের ৩২তম ম্যাচে জয়ের দেখা পেল রংপুর রেঞ্জার্স। টুর্নামেন্টের সিলেট পর্বে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে স্বাগতিক সিলেট থান্ডারকে ৩৮ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে শেন ওয়াটসনের দল। এটি টুর্নামেন্টে রংপুরের চতুর্থ জয়। এ জয়ে প্লে অফের আশা বেঁচে রইল রংপুরের।

রংপুরের দেওয়া ২০০ রানের বিশাল লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ভালো সূচনা এনে দিতে ব্যর্থ হয় রংপুরের দুই ওপেনার। তৃতীয় ওভারের শেষ বলে ২৭ রানেই অধিনায়ক আন্দ্রে ফ্লেচার আউট হন। তাসকিন আহমেদের বলে গ্রেগরিকে ক্যাচ দিয়ে  ১২ বলে ১৯ রান করে সাজঘরে ফেরেন তিনি। এরপর ৫০ রানে গ্রেগরির বলে সরাসরি বোল্ড আউট হয়ে ফেরেন আরেক ওপেনার আব্দুল মজিদ। আউট হওয়ার আগে তিনি করেন ১১ বলে ৭ রান।

দুই উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকা সিলেটের হাল ধরেন মোহাম্মদ মিথুন ও শেরফান রাদারফোর্ড। ২২ বলে ৩০ রান করে মিথুন আউট হলে ভাঙে এ জুটি। ম্যাচে বাকি সময় রাদারফোর্ড ঝড় তুললেও তাকে যোগ্য সঙ্গ দিতে পারেনি কেউই। বাকিদের আসা-যাওয়ার মিছিলে একা লড়াই চালান তিনি। রান আউট হওয়ার আগে এ ক্যারিবিয়ান ব্যাটসম্যান খেলেন ৩৭ বলে ৬০ রানের দুর্দান্ত ইনিংস। তবে দলকে জয় এনে দিতে পারেননি রাদারফোর্ড। পাঁচ বল বাকি থাকতেই শেষ হয় রংপুরের ইনিংস। অলআউট হওয়ার আগে ১৬১ রান করে স্বাগতিকরা। ফলে ৩৮ রানে বড় জয় পায় রংপুর।

রংপুরের পক্ষে এদিন দুর্দান্ত বল করেন মুস্তাফিজ, তাসকিন ও গ্রেগরি। প্রত্যেকেই দুটি করে উইকেট শিকার করেন। এছাড়া মোহাম্মদ নবী ও ক্যামেরন ডেলপোর্ট শিকার করেন একটি করে উইকেট।  

এর আগে, টস হারা রংপুরের হয়ে ব্যাটিং উদ্বোধন করেন মোহাম্মদ নাঈম ও শেন ওয়াটসন। তাদের দুইজনের ব্যাটে দুর্দান্ত শুরু পায় রংপুর। ওপেনিং জুটিতে ৮ ওভার ৩ বলে ৭৭ রান তুলে দলকে বড় রানের ভিত গড়ে দেন নাঈম-ওয়াটসন। ৩৩ বলে ৪২ রান করে মনির হোসেনের বলে সাজঘরে ফেরেন নাঈম।
 
নাঈমের বিদায়ের পরপরই যুদ্ধংদেহী হয়ে ওঠেন গত কয়েক ম্যাচে রানখরায় থাকা ওয়াটসন। ক্যামেরন ডেলপোর্টকে সঙ্গে সিলেটের বোলারদের উপর তাণ্ডব চালাতে থাকেন তিনি।

১৩৮ রানের মাথায় জোড়া আঘাতে কিছুটা ব্যাকফুটে চলে যায় রংপুর। ইনিংসের ১৫তম ওভারে পরপর দুই বলে ডেলপোর্ট ও ওয়াটসনকে সাজঘরে পাঠান এবাদত হোসেন। ৩৬ বলে ৬৮ রানের দুর্দান্ত একটি ইনিংস উপহার দেন ওয়াটসন। ইনিংসে ৬টি চারের পাশাপাশি ছিলো ৫টি ছয়ের মার। ডেলপোর্ট করেন ১৮ বলে ২৫ রান।

জোড়া আঘাতের পর রংপুরের রানের গতি হয়ে যায় শ্লথ। ক্রিসমার সান্টোকির শেষ ওভারে মোহাম্মদ নবীর ব্যাক টু ব্যাক ছক্কায় শেষ পর্যন্ত ৬ উইকেটে ১৯৯ রান তোলে রংপুর। নবী ১৭ বলে করেন ২৩ রান।  ৮ বলে ১৬ রানে অপরাজিত থাকেন ফজলে মাহমুদ

সিলেটের সফলতম বোলার এবাদত হোসেন ৩০ রান খরচায় নেন ২ উইকেট।

এবিএন/শংকর রায়/জসিম/পিংকি

এই বিভাগের আরো সংবাদ