খুব দ্রুত মাঠে নামবেন স্মিথ

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২২ আগস্ট ২০১৯, ০০:৫৬

স্টিভ স্মিথ! এমন একটি নাম যার সাথে জড়িয়ে আছে কলঙ্ক। এমন কলঙ্ক যার কারণে ক্রিকেটে নিষিদ্ধ ছিলেন এক বছর। টেস্ট ক্রিকেট থেকে দূরে ছিলেন দেড় বছর বা ১৮ মাস। রাজসিক প্রত্যাবর্তনের পরে বুঝিয়ে দিলেন ব্যাটে মরচে পড়েনি এতটুকু। চিড় ধরেনি তার মেজাজেও। ফিরে এসেছেন আরো দুর্দান্ত ভাবে।

অ্যাশেজের প্রথম টেস্টের দুই ইনিংসে সেঞ্চুরি করা স্মিথ দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম ইনিংসেও অজিদের ত্রাণকর্তা হিশেবে আবির্ভূত হন। ব্যাটসম্যানদের আসা যাওয়ার মিছিলে একমাত্র স্মিথ বুক চিতিয়ে দাঁড়িয়ে লড়াই করেন। কিন্তু জোফরা আর্চারের একটা বাউন্সার স্মিথের মাথায় আঘাত করলে আর ক্রিজে থাকতে পারেননি স্মিথ। লর্ডস টেস্টের প্রথম ইনিংসে ঘাড়ে আঘাত পাওয়ায় দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে পারেননি স্টিভ স্মিথ। ব্যথা পেলেও প্রথম ইনিংসে চিকিৎসা নিয়ে মাঠে নেমে খেলেছিলেন ৯২ রানের ইনিংস।

সেই চোটের পরে দেশের সেরা ব্যাটসম্যানকে নিয়ে একদম ঝুঁকি নিতে চাইছে না অস্ট্রেলিয়া। যে কারণে অ্যাশেজের তৃতীয় টেস্টে খেলানো হচ্ছে না তাঁকে। এ সময়টায় মাথার চোট সারিয়ে আস্তে ধীরে খেলায় ফিরবেন স্মিথ। আর এই খেলায় ফিরতে হয়তো বেশি দিন অপেক্ষা করা লাগবে না তাঁর। সামনের সপ্তাহে ডার্বিশায়ারের বিপক্ষে তিন দিনের প্রস্তুতি ম্যাচেই দেখা যেতে পারে স্মিথকে, জানিয়েছেন খোদ অস্ট্রেলিয়ার কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার।

লর্ডস টেস্টে নিজেদের প্রথম ইনিংসের ৭৭তম ওভারে আর্চারের এক বাউন্সার খেলতে গিয়ে একটু গড়বড় করে ফেলেন স্মিথ। বল গিয়ে আঘাত করে বাঁ কানের নিচে। সরাসরি উন্মুক্ত স্থানে ওভাবে বল আঘাত হানায় উইকেটের ওপর হুমড়ি খেয়ে পড়েন। দলের ডাক্তার সঙ্গে সঙ্গে ছুটে এসে পরীক্ষা করে দেখেন স্মিথকে। একটু পরে দাঁড়িয়ে উঠে আবার খেলার ইচ্ছে জানিয়েছিলেন স্মিথ। কিন্তু অত বড় ঝুঁকি নেননি ডাক্তার রিচার্ড শ। মাঠ ছেড়ে চলে আসতে হয় সিরিজের সবচেয়ে সফল অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যানকে।

লর্ডস আর হেডিংলি টেস্টের মধ্যে ব্যবধান মাত্র তিন দিনের। এই তিন দিনে তাড়াহুড়ো করে মাথায় আঘাত প্রাপ্ত স্মিথকে মাঠে নামিয়ে দিতে চায়নি অস্ট্রেলিয়া। অন্তত এই টেস্টে স্মিথ বিশ্রাম নেক, এমনটাই সিদ্ধান্ত হয়েছে, ‘আমরা অপেক্ষা করছিলাম স্মিথের সুস্থ হওয়ার। কিন্তু শেষে দেখা গেল ওকে এই টেস্টে বসিয়ে রাখলেই বরং ভালো হবে। ও এখনো পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠতে পারেনি। ও এখন আগের থেকে অনেক ভালো বোধ করছে। কিন্তু ম্যাচ ফিটনেসের দিক দিয়ে এখনো অনেক পিছিয়ে আছে সে’, জানিয়েছেন ল্যাঙ্গার।

তবে অস্ট্রেলিয়ার কোচ আশাবাদী, তৃতীয় থেকে চতুর্থ টেস্টের মাঝামাঝি সময়ে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া তিন দিনের প্রস্তুতি ম্যাচে স্মিথকে খেলানো যাবে। অস্ট্রেলিয়া খেলবে ডার্বিশায়ারের বিপক্ষে, ২৯ থেকে ৩১ আগস্ট হবে ম্যাচটা। আর নেটে পেসারদের মোকাবিলা করার চেয়ে প্রস্তুতি ম্যাচ খেললে বরং স্মিথের প্রস্তুতি ভালো হবে বলে মনে করছেন ল্যাঙ্গার, ‘নেটে পেসারদের বিপক্ষে খেলার চেয়ে এই ম্যাচে খেললে স্মিথের জন্যই ভালো হবে। আমি নিশ্চিত, প্রস্তুতি ম্যাচটা খেলার জন্য প্রয়োজনীয় ফিটনেস পরীক্ষায় পাশ করবে সে।’

এবিএন/শংকর রায়/জসিম/পিংকি

এই বিভাগের আরো সংবাদ