বিশ্বকাপ খেলতে বাংলাদেশকে পেরোতে হবে যাদের বাঁধা

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৮ জুলাই ২০১৯, ০০:৪৩

ফুটবলে শেষ কবে জাতিকে আনন্দের মুহূর্ত উপহার দিতে পেরেছে পুরুষ দল? ইদানিং নারী দলের সাফল্যে এই প্রশ্ন এখন সকল ফুটবল বোদ্ধার মুখে মুখে। অবশেষে সেই প্রশ্নের একটা যুতসই জবাব দিয়ে দিলো বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল।

লাওসকে হারিয়ে ২০২২ কাতার ফুটবল বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের মূল মঞ্চে পা রেখেছে বাংলাদেশ। সঙ্গে এএফসি এশিয়ান কাপ ২০২৩ এর দ্বিতীয় পর্ব নিশ্চিত করেছে জামাল-রবিউলরা। বিশ্বকাপের এশিয়া অঞ্চলের বাছাইপর্বের ৪০ দলের একটি হলো বাংলাদেশ।

৪০ দলকে আটটি গ্রুপে বিভক্ত করে ড্র অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১৭ জুলাই মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরে। সেখানেই বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ নির্ধারিত হবে। প্রতিটি গ্রুপে পাঁচটি করে দল থাকবে। প্রতিটি দল আটটি ম্যাচ পাবে। হোম এবং অ্যাওয়ে হিসেবে ম্যাচগুলো খেলবে।

রাউন্ড রবিন পদ্ধতিতে আট গ্রুপের আটটি দল সঙ্গে চার সেরা গ্রুপ রানার্স আপ দল তৃতীয় রাউন্ডে উন্নীত হবে। বিশ্বকাপের হোস্ট হওয়ায় কাতার সরাসরি বিশ্বকাপে খেলবে। এবং এশিয়ান কাপের হোস্ট হওয়ার দ্বিতীয় রাউন্ড থেকে চীন খেলবে।

তৃতীয় ও চতুর্থ রাউন্ড শেষে শীর্ষ দুই দলই বিশ্বকাপের টিকিট পাবে। বাছাইপর্বের দ্বিতীয় পর্ব শুরু হবে চলতি বছরের সেপ্টেম্বর মাসের ৫ তারিখ থেকে।

বাংলাদেশের ভাগ্য নির্ধারণ হওয়ার কথা বুধবার (১৭ জুলাই)। বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ কারা হচ্ছে আজই জানতে পারার কথা। আর সেপ্টেম্বরের ৫ তারিখ থেকে দ্বিতীয় পর্বের লড়াই শুরু হবে।

২০২২ বিশ্বকাপের মূল বাছাই পর্বে বাংলাদেশের সঙ্গী হয়েছে ভারত ও কাতার। এছাড়া ‘ই’ গ্রুপে আরও আছে আফগানিস্তান ও ওমান।

বুধবার (১৭ জুলাই) মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরে এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশনের (এএফসি) কার্যালয়ে আগামী বিশ্বকাপের বাছাইয়ের ড্র অনুষ্ঠিত হয়। পট অনুযায়ী ৪০টি দলকে ভাগ করা হয় ৮টি গ্রুপে। প্রতি গ্রুপে ৫টি করে দল বাছাই করা হয় লটারির মাধ্যমে। বাংলাদেশ ছিল ৫ নম্বর পটে।

গ্রুপ সঙ্গী বাকি দলগুলোর চেয়ে র‍্যাংকিংয়ে অবশ্য বেশ পিছিয়ে আছে বাংলাদেশ। এর মধ্যে ২০২২ বিশ্বকাপের আয়োজক দেশ কাতার ফিফা র‍্যাংকিংয়ের ৫৫তম স্থানে আছে। ওমান ৮৬তম, ভারত ১০১তম ও আফগানস্তান আছে ১৪৯তম স্থানে।

আগামী ৫ সেপ্টেম্বর থেকে হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে ভিত্তিতে শুরু হবে খেলা। এরপর ২৪টি দেশ মিলে খেলবে এএফসি এশিয়া কাপেও। ফলে বিশ্বকাপের বাছাইয়ে টিকতে না পারলেও সুযোগ থাকবে এশিয়ান কাপের চূড়ান্ত পর্বে খেলার সুযোগ।

গত ১১ জুন বিশ্বকাপ ফুটবলের চূড়ান্ত বাছাই পর্বে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে বাংলাদেশ। প্রাক-বাছাইয়ের দ্বিতীয় লেগে লাওসের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করে জেমি ডে'র শিষ্যরা। ফলে প্রথম লেগে লাওসের বিপক্ষে পাওয়া ১-০ গোলের জয়েই চূড়ান্ত বাছাই পর্ব নিশ্চিত করে লাল-সবুজের দলটি।

২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ ছিল অস্ট্রেলিয়া, জর্ডান, কিরাগিজস্তান ও তাজিকিস্তান। সেবার অবশ্য ৮ ম্যাচ খেলে কোনো জয় পায়নি বাংলাদেশ। ১টি ম্যাচ হয়েছিল ড্র।

এবিএন/শংকর রায়/জসিম/পিংকি

এই বিভাগের আরো সংবাদ