পাকিস্তানের ৩৫৮ রান তাড়া করে জিতল ইংল্যান্ড

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৫ মে ২০১৯, ১১:৪৮

বিশ্বকাপের আগে ইংল্যান্ড ও পাকিস্তান যেন মেতেছে রানোৎসবে। বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হওয়া প্রথম ম্যাচের পর দ্বিতীয় ম্যাচে স্বাগতিক ইংল্যান্ড করে ৩৭৩ রান, জবাবে পাকিস্তান গিয়ে থামে ৩৬১ রানে।

গতকাল (মঙ্গলবার) আগে ব্যাট করল পাকিস্তান। ইমাম উল হকের ক্যারিয়ার সেরা ১৫১ রানের ইনিংসে ৩৫৮ রানের পাহাড়ে চড়েছিল তারা। কিন্তু এত বড় সংগ্রহকে তুড়ি মেরে উড়িয়ে দিল স্বাগতিকরা। জনি বেয়ারস্টোর সেঞ্চুরিতে তারা যখন জয়ের বন্দরে পৌঁছায়, তখনো বাকি ছিল ৩১টি বল! এই জয়ে পাঁচ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল স্বাগতিকরা।

এ নিয়ে তৃতীয়বারের মতো ৩৫০+ রানের লক্ষ্য তাড়া করল তারা, যার সবকয়টিই ২০১৫ সালের বিশ্বকাপের পর। সবচেয়ে বেশিবার ৩৫০+ রানের লক্ষ্য তাড়া করে জয়ের তালিকায় ভারতের পাশেই নাম লেখাল ইংলিশরা। সব মিলিয়ে ওয়ানডে ক্রিকেটে সাড়ে তিনশর বেশি রান তাড়া করে জয়ের দশম নজির এটি।

৩৫৯ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতেই ১৫৯ রানের জুটি গড়ে দলের জয়ের পথ সহজ করেন দুই ওপেনার জেসন রয় ও জনি বেয়ারস্টো। একের পর এক বাউন্ডারি হাঁকিয়ে যাওয়া জেসন রয় ফেরেন ৫৫ বলে ৮টি চার ও চারটি ছক্কায় ৭৬ রান করে।

এর পর তিনে ব্যাটিংয়ে নামা জো রুটকে সঙ্গে নিয়ে ফের ৭৫ রানের জুটি গড়েন বেয়ারস্টো। এই জুটি গড়ার পথে ক্যারিয়ারের সপ্তম সেঞ্চুরি করেন বেয়ারস্টো। মাত্র ৯৩ বলে ১৫টি চার ও পাঁচটি ছক্কায় ১২৮ রান করে আউট হন তিনি। তবে সাজঘরে ফেরার আগে ইংল্যান্ডের জয়ের পথটি তৈরি করে দিয়ে যান তিনি। ৩৬ বলে ৪ চার ও ১ ছক্কায় ৪৩ রান করেন জো রুট।

এর পর মঈন আলিকে সঙ্গে নিয়ে চতুর্থ উইকেটে ৪৬ রানের জুটি গড়তেই আউট বেন স্টোকস। ফেরার আগে ৩৮ বলে ৩৭ রান করেন তিনি। ছয় নম্বর পজিশনে ব্যাটিংয়ে নেমে মঈন আলির সঙ্গে অবিচ্ছিন্ন ৩৫ রানের জুটি গড়ে দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন অধিনায়ক উইয়ন মরগান। ব্যক্তিগত ৪৬ রানে অপরাজিত ছিলেন মঈন আলী। তার সঙ্গে ১৭ রানে অপরাজিত থেকে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন থাকেন মরগান।

এর আগে টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে ইমাম-উল-হকের ব্যাটিং তাণ্ডবের ম্যাচে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৩৫৮ রানের পাহাড় গড়ে পাকিস্তান। ইমাম-উলের সেঞ্চুরির দিনে ইংলিশদের বিপক্ষে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রানের ইনিংস গড়েছে পাকিস্তান। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ১৫১ রান করেন ইমাম। ওয়ানডেতে ইংল্যান্ডের মাটিতে কোনো পাকিস্তানি ব্যাটসম্যানের এটাই সর্বোচ্চ রানেই ইনিংস। তার সঙ্গে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৫২ রান করেন আসিফ আলী। শেষ দিকে ৯ বলে ১ চার ও ২ ছক্কায় ১৮ বলে অপরাজিত ছিলেন হাসান আলী।

এবিএন/সাদিক/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ