গেইল ঝড়ের দিনে নায়ক রয়-রুট

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১১:১৭

বার্বাডোজের ব্রিজটাউন শহরের কেনসিংটন ওভাল স্টেডিয়াম। ইতিহাসের আরও একটি থ্রিলার ওয়ানডে ম্যাচের সাক্ষী হয়ে রইল। জন্ম দিল ৭২৪ রানের একটি শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচের।

যে ম্যাচের পরতে পরতে জড়িয়ে থাকল রোমাঞ্চ আর শ্বাসরুদ্ধকর উত্তেজনা। যে ম্যাচের শুরুতে ক্রিস গেইলের ঝড় দেখল বিশ্ব। এর পর দেখল গেইলের সেই ঝড় ম্লান করে দিয়ে ইংল্যান্ডের দুই ব্যাটসম্যান জেসন রয় আর জো রুটের দুটি বিধ্বংসী ইনিংস।

ব্রিজটাউনে আগে ব্যাটিং করে গেইলের ১৩৫ রানের ইনিংসে ভর করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৮ উইকেটে ৩৬০ রান তোলে। জবাবে ওয়ানডের এক নম্বর দল ৬ উইকেট হাতে রেখে জয়ের বন্দরে নোঙর ফেলে। নিজেদের সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ডও গড়েছে ইংলিশরা। 

ইংল্যান্ডের হয়ে সেঞ্চুরি পেয়েছেন জেসন রয় ও জো রুট। ৮৫ বলে ১২৩ রানের ঝোড়া ইনিংস খেলেন রয়। টেস্ট অধিনায়ক রুটের ব্যাট থেকে আসে ৯৭ বলে ১০২ রান। দুজন ২০৫ রানের জুটি গড়ে দলকে জয়ের ভিত গড়ে দেন। এর পর অধিনায়ক এউইন মরগ্যানের ৬৫ রানে সহজেই জয় পায় সফরকারীরা। এ জয়ে ৫ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল ইংল্যান্ড।

ওয়ানডে বিশ্বকাপের পর অবসরে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন গেইল। এ ম্যাচ দিয়েই ফেরেন জাতীয় দলে। ব্যাটিংয়ে নেমে গেইলের শুরুটা ছিল মন্থর। ৩৬ বলে করেছিলেন মাত্র ১২ রান। কিন্তু নিজের খোলস থেকে বের হওয়ার পর তাকে আটকানো যায়নি। ১২৯ বলে করেন ১৩৫ রান। ১২ ছক্কা ও মাত্র ৩ চারে সাজান নিজের ইনিংসটি।

পয়েন্টে ৯ রানে গেইলের ক্যাচ ছাড়েন রয়। দ্বিতীয় জীবন পেয়ে তুলে নেন ক্যারিয়ারের ২৪তম সেঞ্চুরি। এ ইনিংস খেলার পথে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সর্বোচ্চ ৪৭৭টি ছক্কা হাঁকানোর রেকর্ডও গড়েছেন গেইল। শীর্ষে উঠতে পেছনে ফেলেছেন শহীদ আফ্রিদিকে। গেইলের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে ব্যাটিং করেছেন শাই হোপ। ৬৫ বলে ৬৪ রান করেন ডানহাতি ব্যাটসম্যান। দুজন ১৩১ রানের জুটি গড়েন।

ওয়েস্ট ইন্ডিজকে বিশাল সংগ্রহ এনে দিতে শেষ দিকে বড় ভূমিকা রেখেছেন ড্যারেন ব্রাভো ও আশলে নার্শ। ব্রাভো ৩০ বলে ৪ ছক্কা ও ২ চারে ৪০ রান এবং নার্শ ৮ বলে ৩ ছক্কা ও ১ চারে করেন ২৫ রান। ইংল্যান্ডের হয়ে বল হাতে ৩টি করে উইকেট নেন বেন স্টোকস ও আদিল রশিদ।

৩৬১ রানের লক্ষ্য ৮ বল বাকি থাকতে পেরিয়ে যায় ইংল্যান্ড। ওয়ানডেতে এটি তৃতীয় সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জয়। আর ইংল্যান্ডে সর্বোচ্চ। ২০১৫ সালে নটিংহ্যামে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সাড়ে তিনশ রানের লক্ষ্য তাড়া করে জয় পেয়েছিল ইংল্যান্ড।

মূল মাঠে নামার আগে বোর্ড চ্যান্সেলর একাদশের বিপক্ষে সেঞ্চুরি পেয়েছিলেন রুট, রয়। সেই ফর্ম নিয়ে এসেছিলেন প্রথম ওয়ানডেতে। রুট ১০২ রানের ইনিংস খেলার পথে চতুর্থ ইংলিশ ক্রিকেটার হিসেবে ওয়ানডে ৫০০০ রানের কীর্তি গড়েছেন। কোনো ছয়ের মার না থাকলেও মাটি কামড়ে নয়বার বল সীমানার বাইরে পাঠিয়েছেন রুট। ম্যাচসেরা নির্বাচিত হওয়া রয় ১৫ চার ও ৩ ছক্কায় সাজান ১২৩ রানের ইনিংস।

একই মাঠে ২২ ফেব্রুয়ারি দ্বিতীয় ওয়ানডে অনুষ্ঠিত হবে।

এবিএন/সাদিক/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ
well-food