প্রথম ইনিংসে টাইগারদের সংগ্রহ ৩২৪

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৩ নভেম্বর ২০১৮, ১০:২৩

চট্টগ্রাম টেস্টের দ্বিতীয় দিনের খেলার আগে সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে গেলেন বাংলাদেশ এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজের খেলোয়াড়রা। তাদের সঙ্গে ম্যাচ অফিশিয়ালরাও। এক মিনিট নীরবতা পালনের পর ব্যাট হাতে মাঠে নামেন তাইজুল ইসলাম ও নাঈন হাসান। প্রথম দিন ম্যাচের শেষ দিকে নাঈম ভালো খেললেও দ্বিতীয় দিন বেশী দূর যেতে পারেনি।ব্যাক্তিগত ২৬ রান করে জোমেল ওয়ারিকেনের বলে হোপের কাছে ক্যাচ দিয়ে সাজ ঘরে ফিরে আসেন।নাঈমের চলে যাবার পর ক্রিজে আসেন মুস্তাফিজুর রহমান। ওয়ারিকেনের সেই ওভারে এলবিডব্লিউইয়ের ফাঁদে পড়ে আউট হলে ৩২৪ রানে থেমে যায় টাইগারদের ইনিংস।এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ১ ওভারে বিনা উইকেটে শুন্য রান। ব্যাটিং করছেন ক্রেইগ ব্রাথওয়েট ও কাইরন পাওয়েল।

এর আগে, কি কারণে শোক পালন করা হলো? পরে জানা গেল, ম্যাচ রেফারি ডেভিড বুনের মা পরলোকগমন করেছেন। চট্টগ্রাম টেস্টের দায়িত্ব থেকে তাকে বিশ্রাম দিয়েছে আইসিসি। এই ম্যাচের জন্য তার জায়গায় স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন বাংলাদেশের শিপর আহমেদ।

মুমিনুল হকের সেঞ্চুরির সুবাদে প্রথম দিনে ৮ উইকেটে ৩১৫ রান সংগ্রহ করেছিল বাংলাদেশ। দ্বিতীয় দিনে প্রথম তিন ওভার নির্বিঘ্নেই কাটিয়ে দিয়েছেন দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান তাইজুল আর নাঈম। এই রিপোর্ট খেলা পর্যন্ত ৮ উইকেটে ৩২৩ রান তুলেছে টাইগাররা। তাইজুল ৩৯ আর নাঈম ২৫ রানে ক্রিজে আছেন।

বৃহস্পতিবার (২২ নভেম্বর) সকালে চট্টগ্রামে জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নামে বাংলাদেশ। কুয়াশা ভেজা পিচে শুরুটা যেমন দরকার ছিল, তেমন হয়নি টাইগারদের। মাঠে নেমেই শূন্য রানে ফিরেছেন বাঁহাতি ওপেনার সৌম্য সরকার। ইনিংসের প্রথম ওভারের তৃতীয় বলে ক্রেমার রোচের শিকার হন তিনি।

দলের দেড়শো পেরোতেই ফিরেছেন মিথুন। একের পর এক যোগ্য সঙ্গীর অভাব হলেও একপাশ থেকে মুমিনুল বীরত্বে সামনে এগিয়েছে বাংলাদেশ। চা বিরতির আগে ৩ উইকেটে ২১৬ রান নিয়ে মাঠ ছাড়েন সাকিব-মুমিনুল। ক্যারিয়ারের ৮ম টেস্ট শতক তুলে নেন তিনি। যার ফলে তামিমের সঙ্গে দেশের হয়ে যৌথভাবে সর্বোচ্চ শতকের মালিক হন কক্সবাজারের এই তরুণ। নিজের শহরে এটি মুমিনুলের ৫ম শতক।

চা বিরতির পর ৪০০ রানের দলীয় ইনিংসকে যখন বেশ অনুমেয় মনে হচ্ছিল তখনই ধ্বসে পড়ে বাংলাদেশের ব্যাটিং লাইনআপ। বিশেষত বাংলাদেশের ব্যাটিং লাইনআপকে ধসিয়ে দিয়েছেন গ্যাব্রিয়েল। ৮ রানের মধ্যে ফিরিয়ে দিয়েছেন মুমিনুল ও মুশফিককে। বিশু ফিরিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে। এর কিছু পরেই সাকিবকে সরাসরি বোল্ড করে ফিরিয়ে দেন গ্যাব্রিয়েল। মুমিনুল করেন ১২০ রান। এছাড়া রিয়াদ ৩ ও মুশফিক ব্যক্তিগত ৪ রানেই ফিরে যাম। সাকিব করেন ৩৪ রান। ফলে মুহূর্তেই ৩ উইকেটে ২১৬ থেকে ৭ উইকেটে ২৩৫ এ পরিণত হয় বাংলাদেশ।

অভিষিক্ত নাইম হাসানকে সঙ্গী করে আড়াইশোর কোটা পার করেন মিরাজ। ব্যক্তিগত ২২ রানে ওয়ারিক্যানের বলে বোল্ড হন মিরাজ। এরপরই মূলত হাল ধরেন নাঈম ও তাইজুল। তাদের অপরাজিত ৫৬ রানের জুটির উপর ভর করে ৮ উইকেটে ৩১৫ রানে দিন শেষ করেছে বাংলাদেশ। নাঈম ২৪ ও তাইজুল ৩২ রানে অপরাজিত থেকে কাল ব্যাট শুরু করবেন।

উইন্ডিজের পক্ষে গ্যাব্রিয়েল ৪ উইকেট এবং ওয়ারিক্যান ২ উইকেট নেন। রোচ ও বিশ্যু একটি করে উইকেট দখল করেন।

এবিএন/শংকর রায়/জসিম/পিংকি

এই বিভাগের আরো সংবাদ
well-food