শ্রীলংকাকে প্রথমবারের মত হোয়াইটওয়াশ করতে চায় ইংল্যান্ড

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২২ নভেম্বর ২০১৮, ২১:২৭

প্রথম দুই ম্যাচে দাপট দেখিয়েই শ্রীলংকার বিপক্ষে জয় তুলে নেয় সফরকারী ইংল্যান্ড। ফলে তিন ম্যাচের সিরিজ জয় নিশ্চিত করে ২-০ ব্যবধানে লিড নেয় ইংলিশরা। সেই সাথে শ্রীলংকাকে হোয়াইটয়াশের সুযোগও তৈরি করে ফেলেছে ইংল্যান্ড। আগামীকাল থেকে শুরু হওয়া তৃতীয় ও শেষ টেস্ট জিতলেই শ্রীলংকাকে হোয়াইটওয়াশের লজ্জা দিবে ইংল্যান্ড। এর আগে কখনোই শ্রীলংকাকে হোয়াইটওয়াশ করতে পারেনি ইংল্যান্ড। অপরদিকে, ইংল্যান্ডের আশা ধুলিসাৎ করে সিরিজের শেষ ম্যাচে সান্তনার জয় চায় শ্রীলংকা। কলম্বোতে সকাল সাড়ে ১০টায় শুরু হবে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টেস্ট।

চলতি বছর তিনটি সিরিজ খেলে কোনটিতেই হারেনি শ্রীলংকা। অপরদিকে, তিনটি সিরিজ খেলে একটিতে হার মানে ইংল্যান্ড। এমন পরিসংখ্যান নিয়ে তিন ম্যাচের সিরিজ শুরু করে শ্রীলংকা ও ইংল্যান্ড। সফরকারী হিসেবে খেলতে সিরিজে প্রথম ম্যাচেই চমক দেখিয়েছে ইংল্যান্ড। ২১১ রানের বড় ব্যবধানে শ্রীলংককে বিধ্বস্ত করে ইংলিশরা। দুর্দান্ত জয়ে বাহ-বা কুড়িয়েছে জো রুটের দল।

এরপর দ্বিতীয় ম্যাচেও শ্রীলংকাকে হারিয়েছে ইংল্যান্ড। ৫৭ রানের জয়ে সিরিজ নিশ্চিত করে ফেলে ইংলিশরা। সিরিজ জয়ের স্বাদটা অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ ইংল্যান্ডের জন্য। কারণ ১৭ বছর পর শ্রীলংকার মাটিতে সিরিজ জিততে সক্ষম হলো রুট-এন্ডারসনরা। সিরিজ জয়ের মত বড় সাফল্যকে আরও বেশি রাঙ্গিয়ে দেয়ার সুযোগ তৈরি হয়েছে ইংল্যান্ডের সামনে। আর সেটি হলো- প্রথমবারের মত শ্রীলংকাকে হোয়াইটওয়াশ করা।

১৯৮২ সাল থেকে শ্রীলংকার সাথে দ্বিপক্ষীয় টেস্ট সিরিজে অংশ নেয় ইংল্যান্ড। কিন্তু দুই বা তিন ম্যাচের সিরিজে লংকানদের কখনো হোয়াইটওয়াশ করতে পারেনি ইংলিশরা। এবার সেই বন্ধ্যাত্ব ঘোচাতে চান ইংল্যান্ডের মঈন আলী, ‘আমাদের প্রথম লক্ষ্য পূরণ হয়েছে। সিরিজ জয়ই ছিলো আমাদের প্রধান লক্ষ্য। তবে সিরিজ জয়ের লক্ষ্য পূরণ যে, এত সহজে হবে আমরা ভাবতে পারিনি। এবার আমরা শ্রীলংকাকে হোয়াইটওয়াশ করতে চাই। আরও একটি লক্ষ্য পূরণ করতে চাই।’
সিরিজ হেরে যাওয়ায় মনমরা শ্রীলংকা। তাই সিরিজের শেষ ম্যাচ জিতে নিজেদের চাঙ্গা করতে চাইছেন শ্রীলংকার ওপেনার দিমুথ করুনারতেœ, ‘এভাবে নিজেদেও মাঠে সিরিজ হারাটা সত্যিই হতাশাজনক। তবে আমরা ঘুড়ে দাঁড়াতে মুখিয়ে আছি। একটি জয় দলের আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে দিবে। জয় দিয়ে সিরিজ শেষ করতে চাই আমরা।’ বাসস

এবিএন/মমিন/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ