প্লে অফের পথ কঠিন হলো মুস্তাফিজদের

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:৫১

প্রথম ওভারে ৯ রান খরচা করেও দারুণভাবে ফিরেছিলেন মোস্তাফিজ। দ্বিতীয় স্পেলে দারুণ এক স্লোয়ারে প্রিয়ামকে রিটার্ন ক্যাচে ফিরিয়ে দিয়ে ম্যাচে এনেছিলেন উত্তাপ। ডেথ ওভারের বোলিংয়ে ভরসা দিয়েছেন এই ম্যাচেও।

শেষ স্পেলের শেষ ২ বল বাদ দিয়ে কি দারুণই না বোলিং করেছেন এই ম্যাচে। বলে-কয়ে স্লোয়ার দিতে পারেন, তা জানিয়ে দিয়ে ৪৯% ডেলিভারি দিয়েছেন স্লোয়ার। দিয়েছেন কাটারও।

৩-৩-০-২৬-১, টোয়েন্টি-২০তে এই বোলিংটা হাততালি পাবার দাবি রাখে। তবে মোস্তাফিজের এমন বোলিংয়ের পরও ১৬৫ চেজ করে ৯ বল হাতে রেখে ৭ উইকেটে জিতেছে সানরাইজার্স হায়দারাবাদ।

দুবাইয়ে টসে জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়ে রাজস্থান রয়েলস ১৬৪/৫ স্কোর করেছে অধিনায়ক সানজু স্যামসাং-এর ব্যাটিং ঝড়ে (৫৭ বলে ৭ চার, ৩ ছক্কায় ৮২)। রাজস্থানের স্কোরটা প্রত্যাশিত হতে দেননি সানরাইজার্স বোলার সিদ্ধার্থ কাউল (২/৩৬), রশিদ খান (১/৩১)।

১৬৫ রানের টার্গেটে জবাব দিতে এসে পর পর ২ পার্টনারশিপের ৫৭ করে রান, ব্যাটিং পাওয়ার প্লে-তে ৬৩/১-এ জয়ের আবহ পায় সানরাইজার্স। ওপেনার জেসন রয় এর ৪২বলে ৬০ এবং অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনের ৪১ বলে হার না মানা ৫১ রানে ৯ বল হাতে রেখে জয়ের বন্দরে নোঙ্গর করে সানরাইজার্স।  

শেষ ২৪ বলে টার্গেট যখন ২৬, তখন জয়ের আশা ছেড়ে দেয়ার কথা রাজস্থানের। ১৭তম ওভারে মোস্তাফিজ মাত্র ৪ রান খরচা করলে ম্যাচটি জমিয়ে ফেলে রাজস্থান। কিন্তু ১৮তম ওভারে সাকারিয়া ১৬ রান খরচা করলে ম্যাচ হাতছাড়া হড় রাজস্থানের। ১৯তম ওভারে যখন মোস্তাফিজের হাতে দেয়া হয়েছে বল, তখন ১২ বলে দরকার মাত্র ৬। প্রতিপক্ষ সানরাইজার্স হায়দারাবাদের জয় যখন শুধুই আনুষ্ঠানিকতা মাত্র, তখন বোলিংয়ে ক্যারিশমা দেখাবেন কি করে মোস্তাফিজ। পর পর ২ বলে বাউন্ডারিতে দলে জিতিয়ে কেন উইলিয়ামস প্রকারান্তরে সেটাই জানিয়ে দিয়েছেন।

রাজস্থানকে এদিনও হতাশ করেছে ১৬ কোটি রূপীর বোলার ক্রিস মরিস (৩-০-২৭-০)। এই ম্যাচে হেরে রাজস্থান রয়েলস-এর সংগ্রহ ১০ ম্যাচে ৮ পয়েন্ট। সমসংখ্যক ম্যাচে সানরাইজার্সের সংগ্রহ সেখানে ৪ পয়েন্ট।

 রাজস্থান রয়েলস : ১৬৪/৫ (২০.০ ওভারে)

সানরাইজার্স হায়দারাবাদ : ১৬৭/৩ (১৮.৩ ওভারে)

ফল : সানরাইজার্স ৭ উইকেটে জয়ী।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ : জেসন রয় (সানরাইজার্স)।

এবিএন/শংকর রায়/জসিম/পিংকি

এই বিভাগের আরো সংবাদ
ksrm