শ্রীলঙ্কা-মালদ্বীপ ম্যাচ গোলশূন্য ড্র

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১:২৩ | আপডেট : ০৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:৩৬

প্রথমার্ধের দাপুটে মালদ্বীপ দ্বিতীয়ার্ধে কিছুটা ঘায়েল। মালদ্বীপের সেই দাপট রুখে শ্রীলঙ্কার দ্বিতীয়ার্ধের লড়াই। দুই দলের এমন গোলশূন্য সমতার ম্যাচ আগেভাগে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের সেমিফাইনালে তুলে দিয়েছে ভারতকে।

বি গ্রুপ থেকে এই শ্রীলঙ্কা প্রথম ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে বড় ব্যবধানে হেরেছিল। এই ম্যাচে ড্র করায় একটি পয়েন্ট হল তাদের। এই গ্রুপের শেষ ম্যাচ ৯ সেপ্টেম্বর। ওই ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে মালদ্বীপ ড্র করতে পারলেই সেমিতে চলে যাবে।

বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে শ্রীলঙ্কা এদিন রক্ষণাত্মক ফুটবল খেলে থেকে থেকে কাউন্টার অ্যাটাকে উঠেছে। দ্বিতীয়ার্ধে তাদের আক্রমণগুলো বেশ ভয়ঙ্কর ছিল। শেষ দিকে তাদের ভালো কয়েকটি আক্রমণ প্রতিহত করে দেন মালদ্বীপের গোলরক্ষক মোহামেদ ফাইসাল। দুই অর্ধ মিলিয়ে মালদ্বীপ বল দখলের লড়াইয়ে অনেক এগিয়ে থেকেও গোল বের করতে পারেনি।

মালদ্বীপ ম্যাচের সহজতম সুযোগটি নষ্ট করে দ্বিতীয়ার্ধের ৫৭তম মিনিটে। গোলমুখের মাটিকামড়ানো বলে পুশ করতে পারলেই গোল পেতেন আলী ফাসির। ডাইভ দিয়ে সেই চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন তিনি।

৬৬তম মিনিটে শ্রীলঙ্কার আসিকুমার রহমানের দূরপাল্লার শট দারুণ দক্ষতায় গ্রিপ করেন মোহামেদ ফাইসাল। নিজের বাঁদিকে বাতাসে শরীর ভাসিয়ে বল ধরতে সক্ষম হন তিনি।

৭৪তম মিনিটে শ্রীলঙ্কার আরেকটি সুযোগ নষ্ট হয়। কাভিন্দু ইশান দূর থেকে শট নিলে সেটি বারের অল্প উপর দিয়ে চলে যায়।

৮৬তম মিনিটে রিহাম আব্দুল গণির ‘বোকামি’তে নিশ্চিত একটি গোল বাতিল হয়ে যায় মালদ্বীপের। আলী ফাসির দারুণ দক্ষতায় বল নিয়ে বক্সে ঢুকে পড়েন। আক্রমণভাগের অন্য সতীর্থ সেই বল ফাঁকা গোলে প্লেস করেন। অফসাইডে দাঁড়িয়ে ছিলেন গণি। তিনি বলে পা দিয়েই বিপদ ডেকে আনেন। নিয়মানুযায়ী, অফসাইডে দাঁড়ানো খেলোয়াড় বলের দিকে মুভ না করলে কিংবা পা না দিলে সেটি অফসাইড হয় না। গণি বলটি ছেড়ে দিলেও গোলে চলে যেত।

সাফের এটি ১২তম আসর। আগের ১১ বারের মধ্যে সাতবার শিরোপা জিতেছে ভারত। শ্রীলঙ্কা, মালদ্বীপ, বাংলাদেশ এবং আফগানিস্তান জিতেছে একবার করে। আফগানিস্তান এবছর খেলছে না।

এবিএন/মমিন/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ