বুন্দেসলিগায় করোনার ধুম, ফুটবল বন্ধ হওয়ার আশঙ্কা

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২০ অক্টোবর ২০২০, ১০:১৯

জাতীয় দলের হয়ে ম্যাচ খেলে বিদেশি খেলোয়াড়েরা ফিরে আসছেন জার্মানির বুন্দেসলিগায়। আর সঙ্গে বয়ে আনছেন করোনাভাইরাস। সংবাদ সংস্থা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস সোমবার জানিয়েছে, গত শনিবার ডর্টমুন্ডের সঙ্গে হফেনহেইমকে খেলতে হয়েছে আন্দ্রেই ক্রামারিচ ও কাসিম অ্যাডামসকে ছাড়াই।

কারণ ক্রোয়েশিয়া ও ঘানার এ দুই খেলোয়াড় জাতীয় দলের হয়ে খেলে এসে করোনা পরীক্ষায় পজিটিভ হয়েছেন। চেক রিপাবলিকের ডিফেন্ডার পাভেল কাদেরাবেককে কোয়ারেন্টিনে যেতে হয়েছে পরিবারের এক সদস্যের কারণে।

ডর্টমুন্ডের কাছে ম্যাচটি ১-০ গোলে হেরে হফেনহেইমের ফুটবল পরিচালক আলেক্সান্ডার রোজেন ক্ষুব্ধ হয়ে বলেছেন ফুটবলারদের আবার আন্তর্জাতিক ম্যাচে খেলতে অনুমতি দেওয়ার বিষয়টি তারা ভেবে দেখবেন। ‘ক্লাবগুলোই খেলোয়াড়দের টাকা দেয় এবং সবার সঙ্গে সঙ্গতি রেখে চলে যাতে সবকিছু ঠিকঠাকমতো হয়। আর এখন আপনার ধারণা এমন, জাতীয় অ্যাসোসিয়েশনগুলো এসব পাত্তাই দেয় না।’

কোভিড-১৯ পজিটিভ শুধু হফেনহেইমের খেলোয়াড়ই হয়নি, ডর্টমুন্ডেরও হয়েছে। সুইজারল্যান্ডের হয়ে উয়েফা নেশনস লিগে খেলে আসার পর তাদের ডিফেন্ডার ম্যানুয়েল আকাঞ্জিরও করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে।

সংক্রমণের এই উর্ধ্বমুখী সংখ্যার দিকে তাকালে আপনাকে অবাক হয়ে ভাবতে হবে পরবর্তী বিরতিতে আপনি এটা (ফুটবলারদের ছাড়া) বন্ধ করবেন কি না’-বলেছেন লাইপজিগের ক্রীড়া পরিচালক। তার দল অবশ্য অগসবুর্গের মাঠে গিয়ে ২-০ গোলে জিতেছে। এই দলটিও আমাদু হায়দারাকে ছাড়াই খেলেছে। মালির মিডফিল্ডার তুরস্কে অনুষ্ঠিত প্রীতি ম্যাচে ঘানার বিপক্ষে ৩-০ গোলে জেতা মালির হয়ে খেলে এসেই করোনা পজিটিভ হয়েছেন। হার্থা বার্লিনের মাতেও গেন্দুজি ফ্রান্স অনূর্ধ্ব-২১ দলের হয়ে খেলে ফিরেছেন ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে।

করোনাভাইরাস শনাক্তের খবর যেভাবে পাওয়া যাচ্ছে তাতে দ্বিতীয় সংক্রমণের ঢেউ ঠেকাতে জার্মানি আবারও ফুটবল বন্ধ করে দিতে পারে। জার্মানির রোগনিয়ন্ত্রণ কেন্দ্র গত শনিবার দিয়েছে ৭,৮৩০ টি নতুন সংক্রমণের তথ্য। টানা তৃতীয় দিনের জন্য যা নতুন রেকর্ড।

দ্বিতীয় বিভাগের ক্লাব নুরেমবার্গের দুই ফুটবলার করোনা পজিটিভ হয়েছেন বুধবার। ওসনাব্রুক ও ডার্মস্টাডের ম্যাচটি বাতিল হয়েছে, কারণ ওসনাব্রুকের দুজন খেলোয়াড় করোনা পজিটিভ হওয়ায় তাদের গোটা দলটিই ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে গেছে।

ডর্টমুন্ড কোচ লুসিয়েন ফাব্রের ভয়, খেলোয়াড়দের মধ্যে সংক্রমণ ছড়াতে পারে আরও বেশি করে এবং আবারও স্থগিত হয়ে যেতে পারে লিগ। প্রসঙ্গত, গত মার্চ মাসে করোনাভাইরাস মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়ার পর দুই মাস জার্মানিতে বন্ধ ছিল ফুটবল।

তারপরও ফাব্রে যতটা পারা যায় ফুটবল চালিয়ে যাওয়ার পক্ষে, যদিও বলছেন এই পরিস্থিতিতে ভ্রমণটাই বিপজ্জনক। জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মের্কেল ভাইরাসের বিস্তৃতি রোধে জনসাধারণকে যথাসম্ভব ভ্রমণ এড়িয়ে যতটা পারা যায় ঘরে থাকার আহ্বান জানিয়েছেন।

এর মধ্যেই চ্যাম্পিয়নস লিগ শুরু হচ্ছে মঙ্গলবার। দলগুলো বিমানযোগে গোটা মহাদেশ ঘুরেই খেলবে। ডর্টমুন্ড রোমে গিয়ে খেলবে লাৎসিওর সঙ্গে। মস্কোতে গিয়ে লোকোমোটিভ মস্কোর সঙ্গে খেলবে চ্যাম্পিয়নস বায়ার্ন মিউনিখ।

এবিএন/শংকর রায়/জসিম/পিংকি

এই বিভাগের আরো সংবাদ