স্টেট ডিপার্টমেন্টের সামনে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের বিক্ষোভ

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১:১৯

রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফিরিয়ে নেয়া, বঙ্গবন্ধুর খুনি রাশেদ চৌধুরী ওযুদ্ধাপরাধি আশরাফুজ্জামানকে বাংলাদেশের হাতে তুলে দেয়ার দাবিতে এক বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগ।

গতকাল ১০ই সেপ্টেম্বর সোমবার ওয়াশিংটন ডিসি স্টেট ডিপার্টমেন্টের সামনে বাংলাদেশে অবস্হানরত রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে দ্রুত প্রত্যাবর্তনে সহযোগিতা এবং যুক্তরাষ্ট্রে অবস্হানরত বংঙ্গবন্ধু খুনিদের স্বদেশে ফেরত পাঠানোর দাবিতে এক বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

২০১৭ সালের ২৫শে অগাস্ট মিয়ানমার সেনাবাহিনীর অভিযান শুরু হওয়ার পর প্রায় এগারো লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা সীমান্ত অতিক্রম করে বাংলাদেশে আশ্রয় গ্রহন করে। সমাবেশে বক্তারা মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে তারা হত্যা, গণহত্যা, ধর্ষণ, লুট এবং অগ্নিসংযোগের অভিযোগ আনেন।

সমাবেশে বক্তারা রোহিঙ্গাদের ওপর যে অন্যায় করা হয়েছে, তার বিচারের দাবীতে বিশ্ব সম্প্রদায়কে এগিয়ে আসার জন্য অনুরোধ জানান। গত ১০ সেপ্টেম্বর সোমবার দুপুরে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র সদরদফতরের সামনে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের আয়োজনে মেট্রো ওয়াশিংটন আওয়ামী লীগ, মেরিল্যান্ড ষ্টেট আওয়ামী লীগ, ভার্জিনিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের সহযোগীতায় অনুষ্ঠিত এ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান এবং সভা পরিচালনা করেন ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক আবদুস সামাদ আজাদ।

সভায় বক্তব্য রাখেন, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল হাসিব মামুন, প্রচার সম্পাদক হাজী এনাম, উপ-প্রচার সম্পাদক তৈয়বুর রহমান টনি, কার্যনির্বাহী সদস্য শাহানারা রহমান, সরাফ সরকার, আতাউল গনি আসাদ, খোরশেদ খোন্দকার, উপদেষ্টা ডাঃ মাসুদুল হাসান, মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রফিকুর  রহমান, সাধারন সম্পাদক এমদাদ চৌধুরী, স্টেট আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি শেখ আতিকুল ইসলাম, রফিকুল ইসলাম, শ্রমীক লীগের সভাপতি আজিজুল হক খোকন, ব্রোকলিন আওয়ামী লীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম,পেনসিলভেনিয়া স্টেট আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু তাহের, সাধারন সম্পাদক আবু সাঈদ, সাংগঠনিক সম্পাদক লুতফুর রহমান হিমু, যুবলীগের হুমায়ন আহমেদ চৌধুরী, মেরিল্যান্ড ষ্টেট আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ সেলিম, ভার্জিনিয়ায় ষ্টেট আওয়ামী লীগের শিব্বির আহমেদ, প্রাক্তন সাধারন সম্পাদক জি আই রাসেল, মিসেস রাসেল, আটলান্টিক সিটি আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক কুতুব উদ্দিন ইমরান, ফিলাডেল ফিয়া আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল খায়ের, বাগডিসি সভাপতি মোহাম্মদ আলমগীর সহ আরো অনেকে।

সভায় সভাপতির বক্তব্যে ড. সিদ্দিকুর রহমান বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে আবস্থানরত জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর খুনি ও মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত রাশেদ চৌধুরী ও আশরাফুজ্জানকে ফিরিয়ে দেয়ার দাবি জানানো। বলেন, জাতির জনককে সপরিবারে হত্যার পর দায়ীদের বিচার প্রক্রিয়া থেকে অব্যাহতি দেয়ার জন্য কুখ্যাত ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ জারি করা হয়।  ড. সিদ্দিকুর রহমান আরও বলেন দীর্ঘ ২১ বছর পর ১৯৯৬ সালে বঙ্গবন্ধুকন্যা মানণীয় প্রধানমএী শেখ হাসিনার রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্ব প্রাপ্তির পর ওই কালো আইন বাতিল করা হয় এবং খুনিদের বিচারের সম্মুখীন করা হয়।
ড. সিদ্দিকুর রহমান আরও বলেন বিভিন্ন পর্যায়ে বিচার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার পর ১২ জন আসামিকে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়। ড. সিদ্দিকুর রহমান আরও বলেন আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল ট্রাম বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে ক্রিমিনালদের কোন জায়গা নেই। যদি তাই হয়, তাহলে বঙ্গবন্ধুর খুনিকে পাঠাও না কেন। কিভাবে এদেশে সাজাপ্রাপ্ত একজন যুদ্ধাপরাধী বসবাস করার সুযোগ পায়।

ড. সিদ্দিকুর রহমান আরও বলেন রোহিঙ্গাদের সসম্মানে দেশে ফিরিয়ে দিতে যুক্তরাষ্ট্র যেন বাংলাদেশকে সহায়তা করে সে দাবি জানান তিনি।
ড. সিদ্দিকুর রহমান আরও বলেন ২০১৭ সালের ২৫শে অগাস্ট মিয়ানমার সেনাবাহিনীর অভিযান শুরু হওয়ার পর প্রায় এগারো লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা সীমান্ত অতিক্রম করে বাংলাদেশে আশ্রয় গ্রহন করে।

ড. সিদ্দিকুর রহমান আরও বলেন মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে তারা হত্যা, গণহত্যা, ধর্ষণ, লুট এবং অগ্নিসংযোগের অভিযোগ আনেন এবং রোহিঙ্গাদের ওপর যে অন্যায় করা

এবিএন/জসিম/নির্ঝর

এই বিভাগের আরো সংবাদ