সরকারের প্রস্তুতিতে আম্পানের ক্ষয়ক্ষতি এড়ানো সম্ভব হয়েছে : প্রধানমন্ত্রী

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৪ মে ২০২০, ১৯:৪২ | আপডেট : ২৪ মে ২০২০, ১৯:৫৭

জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ছবি : পিআইডি
সরকারের নেওয়া প্রস্তুতির কারণে প্রলয়ংকরী ঘূর্ণিঝড় আম্পানে জানমালের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি এড়ানো সম্ভব হয়েছে বলে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে ইতোমধ্যেই ত্রাণসামগ্রী বিতরণ ও ঘরবাড়ি মেরামতের কাজ শুরু হয়েছে।

আজ রোববার (২৪ মে) সন্ধ্যায় ঈদুল ফিতর উপলক্ষে জাতির উদ্দেশ্যে দেওয়া ভাষণে প্রধানমন্ত্রী একথা জানান।

বক্তব্যের শুরুতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের জনগণসহ দেশ ও বিশ্ববাসীকে ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানান। পাশাপাশি তিনি গভীর শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। শ্রদ্ধা জানান জাতীয় চার নেতার, স্মরণ করেন মুক্তিযুদ্ধের ৩০ লাখ শহীদ এবং ২ লাখ নির্যাতিত মা-বোনকে। শ্রদ্ধা জানান সব বীর মুক্তিযোদ্ধাকে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, কথায় আছে ‘বিপদ কখনও একা আসে না’। করোনা ভাইরাসের এই মহামারির মধ্যে গত বুধবার রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগসহ উপকূলীয় জেলাগুলোতে প্রলয়ংকরী ঘূর্ণিঝড় ‘আম্পান’ আঘাত হানে।

সরকারের আগাম প্রস্তুতির কারণে আম্পানে ক্ষয়ক্ষতি কম হয়েছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আল্লাহর অশেষ রহমত এবং আমাদের আগাম প্রস্তুতির কারণে জানমালের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি এড়ানো সম্ভব হয়েছে। ঘূর্ণিঝড়ে যাতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি না হয়, সেজন্য বিভিন্ন দ্বীপ, চরাঞ্চল ও সমুদ্র-উপকূলে বসবাসকারী ২৪ লাখেরও বেশি মানুষকে এবং প্রায় ৬ লাখ গবাদিপশু আমরা ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্রে নিয়ে আসার ব্যবস্থা করি।

‘সর্বাত্মক প্রস্তুতি সত্ত্বেও গাছ ও দেওয়াল চাপায় বেশ কয়েকজন মানুষ মারা গেছেন এবং বহু ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। আমি তাদের রুহের মাগফিরাত কামনা করছি। ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে আমরা ইতোমধ্যেই ত্রাণসামগ্রী বিতরণ শুরু করেছি এবং ঘরবাড়ি মেরামতের কাজ শুরু হয়েছে।

ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে তিনি বলেন, মুসলমানদের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর উপলক্ষে আমি বাংলাদেশের জনগণসহ বিশ্ববাসীকে আন্তরিক শুভেচ্ছা জানাই। ঈদ মোবারক।

 


 

এবিএন/জনি/জসিম/জেডি

এই বিভাগের আরো সংবাদ