৩ দিনব্যাপী জাতীয় উন্নয়ন মেলা উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০২ অক্টোবর ২০১৮, ১১:০০

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী বৃহস্পতিবার সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে রাজধানীসহ দেশের সব জেলা ও উপজেলায় ৩ দিনব্যাপী উন্নয়ন মেলা উদ্বোধন করবেন।

বর্তমান সরকারের গৃহীত উন্নয়ন কার্যক্রম জনগণের কাছে তুলে ধরতে আগামী ৪ থেকে ৬ অক্টোবর রাজধানী ঢাকাসহ একযোগে দেশের সব জেলা ও উপজেলায় ৪র্থ জাতীয় উন্নয়ন মেলা অনুষ্ঠিত হবে।

২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের ও ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশ হিসাবে গড়ে তুলতে সরকারের উন্নয়ন কর্মকা- এবং বিভিন্ন খাতের সাফল্য তুলে ধরাই এ উন্নয়ন মেলার প্রধান লক্ষ্য।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল ও দূরদৃষ্টিসম্পন্ন নেতৃত্বে সাম্প্রতিক বছরগুলোয় বিভিন্ন খাতে অর্জিত দেশের অভূতপূর্ব উন্নয়ন মেলায় তুলে ধরা হবে।

এ ছাড়া সেবা প্রদান সহজীকরণে বিভিন্ন উদ্ভাবনী প্রকল্প প্রদর্শনসহ বিভিন্ন সরকারি দপ্তর প্রতিশ্রুত সেবা ‘ওয়ান স্টপ’ সার্ভিসের মাধ্যমে এ মেলা হতে সরাসরি জনগণকে প্রদান করা হবে।

রাজধানী ঢাকায় আগারগাঁওয়ে আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার মাঠে এ মেলা আয়োজন করা হবে ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ১০টি বিশেষ উদ্যোগ এবং আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি ও সাফল্য, রূপকল্প ২০২১ ও ২০৪১- এর মাধ্যমে উন্নত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা, তথ্যপ্রযুক্তি, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট, পদ্মা সেতু, রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রসহ বিভিন্ন মেগাপ্রকল্প এবং দেশে বিনিয়োগ সম্ভাবনা উন্নয়ন মেলায় তুলে ধরা হবে।

বিদেশে বাংলাদেশ দূতাবাসমূহেও এ মেলার আয়োজন করা হবে।

ঢাকার আগারগাঁওয়ে আয়োজিত উন্নয়ন মেলায় তথ্য মন্ত্রণালয়ের ১১টি স্টল থাকবে। প্রতিটি সুসজ্জিত স্টলের আকার হবে ১০০ বর্গফুট। মেলায় বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধ, গণমাধ্যমসহ দেশের উন্নয়নে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অবদান এবং বর্তমান সরকারের সময়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের উন্নয়ন ও সাফল্যের বিষয়ে জনগণকে অবহিত করা হবে।

গণযোগাযোগ অধিদপ্তর সারাদেশে ৬৪টি জেলায় জেলা তথ্য অফিসের মাধ্যমে সরকারের সাফল্য চিত্র তুলে ধরবে। বাংলাদেশ বেতারের ১২টি আঞ্চলিক অফিসসহ মন্ত্রণালয়াধীন সব দপ্তর বা সংস্থা তাদের উন্নয়ন কার্যক্রম মেলায় তুলে ধরবে। এ ছাড়া যে সব দপ্তর বা সংস্থার বই অথবা সচিত্র প্রকাশনা রয়েছে তারা মেলায় সেগুলো বিক্রি অথবা বিনামূল্যে বিতরণ করবে।

জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের সার্বিক আয়োজনে জেলা ও উপজেলার বিভিন্ন সরকারি দপ্তর বা সংস্থা ব্যাংক, বীমা ও অন্যান্য আর্থিক প্রতিষ্ঠান মেলায় অংশগ্রহণ করবে।

মেলায় শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে ‘রিয়েলিটি শো’, রচনা প্রতিযোগিতা, চিত্রাঙ্কনসহ বিভিন্ন প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হবে।
খবর বাসস

এবিএন/সাদিক/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ