পেঁয়াজের সংকট ‘কৃত্রিম’, দামবৃদ্ধি অবৈধ সরকারের ‘ব্যর্থতা’: রিজভী

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৬:৩৭

হঠাৎ করে বাজারে পেঁয়াজের সংকটকে ‘কৃত্রিম’ দাবি করে রাতারাতি নিত্যপ্রয়োজনীয় এই কাঁচা পণ্যটির ‘অকল্পনীয় মূল্যবৃদ্ধিকে’ বর্তমান ভোটারবিহীন অবৈধ সরকারের ব্যর্থতার বহিঃপ্রকাশ বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী।

নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যসহ পেঁয়াজের এই অগ্নিমূল্যে স্বল্প আয়ের মানুষের নাভিশ্বাস উঠেছে- এমন অভিযোগ করে বিএনপি এই শীর্ষ নেতা বলেন, ‘প্রতিদিনই লাফিয়ে লাফিয়ে পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি পাচ্ছে। এক সপ্তাহ আগে প্রতি কেজি পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ৩০/৪০ টাকায়। গত দু’দিন আগেও পেঁয়াজের দাম ছিল ৫০/৫৫ টাকা, আর আজকে পেঁয়াজের দর সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছে।’ 

বুধবার (১৬ সেপ্টেম্বর) নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

ভোটারবিহীন গণবিরোধী সরকার দেশবাসীর দৈনন্দিন জীবনের সুখ-শান্তি একের পর এক কেড়ে নিচ্ছে মন্তব্য করে রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘জোর-জবরদস্তিমূলকভাবে ক্ষমতা দখলকারীদের দৌরাত্ম্যে রাজনৈতিক সংকটের পাশাপাশি গুম, খুন ও ধর্ষণের ঘটনায় গোটা রাষ্ট্র মনুষ্যত্বহীন চেহারা ধারণ করে জনগণকে নিষ্পেষিত করছে। এই দুঃসময়ে জনগণের স্বাভাবিক বাঁচা-মরারও গ্যারান্টি নেই। দেশে সীমাহীন বেকারত্ব, কর্মসংস্থানের অভাব ও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধিতে সরকারের কোনও দায়দায়িত্ব নেই।’

তিনি বলেন, ‘অগণতান্ত্রিক জবাবদিহিতাহীন সরকারের জনগণের কষ্টের প্রতি ভ্রুক্ষেপ নেই। হঠাৎ করে বাজারে লাফ দিয়ে পেঁয়াজের দামের অসহনীয় মূল্যবৃদ্ধি আবারও প্রমাণ করে যে, সরকার জনগণের প্রাণের বিনিময়ে অবৈধভাবে ক্ষমতায় টিকে থাকাকেই বড় করে দেখছে। দেশের মানুষ ক্ষুধায়, অর্ধাহারে-অনাহারে থাকলেও তাদের কিছু যায়-আসে না। শুধুমাত্র অবৈধ ক্ষমতার মসনদকে ধরে রাখাই বর্তমান সরকারের একমাত্র কাজ।’

রিজভী আরও বলেন, ‘এমনিতেই নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের মূল্যবৃদ্ধিতে মানুষ দিশেহারা, তার ওপর এখন পেঁয়াজের এই অকল্পনীয় মূল্যবৃদ্ধি বর্তমান ভোটারবিহীন অবৈধ সরকারের ব্যর্থতারই বহিঃপ্রকাশ। সরকার সমর্থিত দলের সিন্ডিকেটই পেঁয়াজের মূল্যবৃদ্ধির পৃষ্ঠপোষক। আমদানিকারক ও ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের কারসাজিতেই পেঁয়াজের এই মূল্যবৃদ্ধি।’

তিনি বলেন, ‘ভারতে ইলিশ মাছ উপহার হিসেবে প্রেরণ করার সঙ্গে সঙ্গেই বাংলাদেশে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করে দিয়েছে ভারত সরকার। বাংলাদেশ এই সংবাদ পৌঁছানোর সঙ্গে সঙ্গেই বাজার সিন্ডিকেটের হোতারা তেলেসমাতি শুরু করে দেয়। বাজার অস্থির হয়ে পড়ে। দেশে পেঁয়াজ মজুদ থাকলেও বিক্রি কমিয়ে দিয়েছেন অসাধু ব্যবসায়ীরা। ফলে বাজারে পেঁয়াজের তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে, এই সংকট কৃত্রিম।’  

রিজভী বলেন, ‘এর আগেও সরকারপ্রধান নিজেও “পেঁয়াজ বিমানে উঠে গেছে, আর কোনও সমস্যা নাই’’ বলে জনগণের সাথে তামাশা করেছেন। যা মানুষ ভুলে যায়নি।’

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব আরও বলেন, ‘মূলত: ভোটারবিহীন সরকারের দুর্নীতি, টাকা পাচার, লুটপাটের মাধ্যমে পাহাড় সমান সম্পদ অর্জনের ফলশ্রুতিতে তারা দেশের সাধারণ মানুষের প্রতি উদাসীন। জনগণ বাঁচলো কি মরলো সেটি তাদের বিবেচ্য নয়। অদ্ভুত এক আঁধার নেমে এসেছে এদের আমলে। সরকার এখনও পর্যন্ত কোনও প্রমাণই দিতে পারেনি যে, তারা জনকল্যাণে কোনও কাজ করেছে অথবা তাদের কোনও নীতি ন্যায়সঙ্গত।’

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি পেঁয়াজের এই অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করছে। আমি অবিলম্বে পেঁয়াজের মূল্য স্বাভাবিক করতে বাজার নিয়ন্ত্রণে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের আহ্বান জানাচ্ছি।’  

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ ও টাঙ্গাইল জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট ফরহাদ ইকবাল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এবিএন/মমিন/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ