বর্তমান নির্বাচন কমিশন অযোগ্য: মওদুদ

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১১ মে ২০১৮, ২১:১৫

নোয়াখালী, ১১ মে, এবিনিউজ: বিএনপির স্থায়ী কমিটির অন্যতম সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেছেন, বর্তমান নির্বাচন কমিশন অদক্ষ, অথর্ব, অযোগ্য, এ নির্বাচন কমিশনের কোন মেরুদণ্ড নেই। অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে হলে, নির্বাচন কমিশনকে পুনর্গঠন করতে হবে। আজ শুক্রবার দুপুর ১২টায় নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় সিরাজপুর ইউনিয়নে নিজ বাসভবনে সিরাজপুর ইউনিয়ন বিএনপির নব-নির্বাচিত কমিটি শুভেচ্ছা বিনিময়কালে মওদুদ সাংবাদিকদেরকে এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, বর্তমান সরকার ২০১৪ সালের আদলে নির্বাচন করতে চায়। এই জন্য তারা বিএনপির নেতাকর্মীদের ওপর হামলা, মামলা গুম, খুন চালিয়ে যাচ্ছে। যাতে বিএনপির কর্মীরা হতাশ হয়ে পড়ে। সরকারকে সমঝোতাই যেতে হবে। আগামী নির্বাচন নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে হবে।
 
 এসময় তিনি বলেন, আমি আমার নির্বাচনী এলাকায় আসলে বিএনপির নেতা-কর্মীদের নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করা হয়। এজন্য আমি আমার নির্বাচনী এলাকায় এবার খুব দেরিতে এসেছি। বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি অচিরেই হবে। আগামী জুন মাসের প্রথম সপ্তাহে তিনি বের হয়ে আসবেন। তিনি যখন মুক্তি পাবেন তখন বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী হিসেবে বের হয়ে আসবেন।
 
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, উনার নির্বাচনী এলাকায় বিরোধী দলীয় নেতাকর্মীরা সভা-সমাবেশ করতে পারে না, স্বাধীনভাবে চলতে পারে না, মামলা হামলা করে বিরোধী দলীয় নেতা-কর্মীদেরকে এলাকা ছাড়া করেন।আগে তার এলাকায় বিরোধী দলকে সভা-সমাবেশ করতে দিতে হবে, মামলা হামলা বন্ধ করতে হবে, তাহলে তিনি হবেন জাতীয় নেতা।
 
বিএনপির সিনিয়র এ নেতা আরও বলেন, আজ আমি আমার নিজ এলাকায় এসেছি। নেতা-কর্মীরা আমার সাথে দেখা করতে এসেছে। পুলিশ বলছে, স্লোগান দেওয়া যাবে না, মিছিল করা যাবে না, আমি এ এলাকায় ৪০ বছর যাবত রাজনীতি করছি। এখন আমাদেরকে সভা-সমাবেশ করতে দেওয়া হয় না। আমি আসলে নেতাকর্মীরা তো অবশ্যই আসবে।

তিনি আরও বলেন, গাজীপুরে গণ-জোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। যিনি হাইকোর্টে রিট করেছেন তিনি সাভাবের শিমুলীয়া ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান। তার বাড়ি গাজীপুর জেলায় নয়, অন্যজেলায়। খুলনাতে বিএনপি আরও বেশি জনপ্রিয়, সেখানে বিএনপি প্রার্থীর ২শ' জন এজেন্ট এর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করেছে। তাদের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে গ্রেফতার করা হচ্ছে ও হুমকি দেওয়া হচ্ছে।
 
ওই মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, উপজেলা যুবদলের সভাপতি আবদুল মতিন লিটন, উপজেলা ছাত্রদলের সম্পাদক জাহিদুর রহমান রাজন, সিরাজপুর ইউনিয়ন বিএনপির নব-নির্বাচিত সভাপতি আনোয়ার হোসেন শামীম ও সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক মেম্বার, চরহাজারী ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, ছাত্রনেতা আতোয়ার হোসেন পাভেল প্রমুখ।

এবিএন/মমিন/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ