চাঁদার হিসাব না করে জনকল্যাণে কাজ করুন : প্রধানমন্ত্রী

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৩ নভেম্বর ২০১৯, ১৪:৩৭ | আপডেট : ২৩ নভেম্বর ২০১৯, ১৬:২৭

যুবলীগের সংগ্রেসে যুবসমাজকে মাদক, সন্ত্রাস ও দুর্নীতি থেকে দূরে থাকার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একইসঙ্গে যুবলীগের নেতাকর্মীদের চাঁদার হিসাব না করে জনকল্যাণে কাজ করার নির্দেশ দিয়ে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেছেন, ‘কতটুকু পেলাম, কী পেলাম না এটা নয়, কতটুকু কাজ করতে পারলাম সেটাই হতে হবে রাজনীতিবিদের চিন্তা। এই চিন্তা মাথায় রেখে যারা রাজনীতি করে তারাই সফল হবে। ’

আজ শনিবার (২৩ নভেম্বর) রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে যুবলীগের সপ্তম কংগ্রেসে (সম্মেলন) প্রধান অতিথি হিসেবে দেওয়া বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি এসব কথা বলেন। দুপুর দেড়টার দিকে প্রধানমন্ত্রী বক্তব্য রাখেন। এর আগে বেলা ১১টায় তিনি সম্মেলনের উদ্বোধন করেন।  

যুবসমাজকে মাদক, সন্ত্রাস ও দুর্নীতি থেকে দূরে থাকার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একইসঙ্গে যুবলীগের নেতাকর্মীদের চাঁদার হিসাব না করে জনকল্যাণে কাজ করার নির্দেশ দিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি।

সম্প্রতি বেশ কিছু নেতাকর্মীর দুর্নীতি, টেন্ডারবাজি ও বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের জন্য সমালোচিত হয় যুবলীগ। ইতিমধ্যে অনেকে গ্রেপ্তারও হয়েছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে।

তাদের দিকে ইঙ্গিত করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দুর্নীতি করে কেউ টাকা বানাতে পারে, এই টাকা দিয়ে জৌলুস করতে পারে, চাকচিক্য বাড়াতে পারে, আন্তর্জাতিক বড় বড় ব্র্যান্ডের জিনিস পরতে পারে। কিন্তু তাতে সম্মান পাওয়া যায় না। মানুষ হয়তো অবাক হয়ে তাদের দিকে তাকাতে পারে। কিন্তু মর্যাদা পাওয়া যায় না। এটাই হচ্ছে বাস্তবতা।’

এর আগে বেলা ১১টার দিকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে কংগ্রেসের প্রথম অধিবেশনের সভাস্থলে পৌঁছান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এসময় প্রধানমন্ত্রীকে ফুল ও ক্রেস্ট দিয়ে এবং উত্তরীয় পরিয়ে বরণ করে নেন যুবলীগ নেতারা। পরে শান্তির প্রতীক পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে কংগ্রেসের উদ্বোধন করেন সংগঠনটির সাংগঠনিক নেত্রী শেখ হাসিনা।

পদ প্রত্যাশীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘নেতৃত্বে আসতে হলে ত্যাগের মনোভাব থাকতে হবে। যুবসমাজকে মাদক, সন্ত্রাস ও দুর্নীতি থেকে দুরে থাকতে হবে। একটা দেশকে যুবশক্তিই উন্নত করতে পারে।’

তিনি বলেন, ‘দেশ গড়তে প্রয়োজন যুবসমাজের মেধা কাজে লাগানো। কিন্তু ৭৫ এর পর যুবসমাজকে বিপথে ঠেলে দেওয়া হয়। ২১ বছর পর আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে মানুষের কল্যাণে কাজ করতে শুরু করে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যুবসমাজকে বঙ্গবন্ধুর 'কারাগারের রোজনামচা' ও 'অসমাপ্ত আত্মজীবনী' মনোযোগ দিয়ে পড়তে হবে। তাহলেই লোভ-লালসার ঊর্ধ্বে ওঠে কীভাবে দেশ ও মানুষের জন্য কাজ করা যায় শিখতে পারবেন। আমাদের সবাইকে এ কথাটা মনে রাখতে হবে-ভোগে নয় ত্যাগেই হচ্ছে মহত্ত। কী পেলাম না পেলাম সেটা বিবেচ্য নয়। কতটুকু দেশ ও মানুষের জন্য কাজ করতে পারলাম সেটাই দেখার বিষয়।’

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘মানুষের কল্যাণে কী করতে পারলাম সেই চিন্তা যাদের মাথায় থাকে তারা রাজনীতিতে সফল হতে পারেন।’

কংগ্রেসে সভাপতিত্ব করেন জাতীয় কংগ্রেস প্রস্তুতির আহ্বায়ক ও প্রেসিডিয়াম সদস্য চয়ন ইসলাম। সভা পরিচালনা করেন সদস্য সচিব ও সাধারণ সম্পাদক হারুন-অর-রশিদ ।

এবিএন/জনি/জসিম/জেডি

এই বিভাগের আরো সংবাদ