ডেঙ্গু বিষয়ক জনসচেতনতা রাজধানীতে বিএনপি জনসচেতনতামূলক র‌্যালী

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০১ আগস্ট ২০১৯, ১৭:১২

রাজধানীর মহাখালীস্থ ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির সামনে ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপি’র উদ্যোগে ডেঙ্গু প্রতিরোধে এক জনসচেতনতামূলক র‌্যালী অনুষ্ঠিত হয়।

র‌্যালীতে প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে বিএনপি’র সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী বলেন, ডেঙ্গু আতঙ্কে রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশের মানুষের মধ্যে এখন চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে। প্রতিদিনই অসংখ্য মানুষ ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন এবং এদের মধ্যে কারো কারো প্রাণহানিও ঘটছে অথচ এই সংকট মোকাবেলায় জনবিদ্বেষী সরকারের যথাযথ উদ্যোগ নেই। ভয়াবহ দু:শাসনে জর্জরিত মানুষের ভোট চুরি করে ক্ষমতাসীন হওয়ার জন্য জনগণ বর্তমান সরকারকে ঘৃনা করে বলেই সরকার জনগণকে শত্রু বলে মনে করে। জনগণের নিকট সরকারের কোন জবাবদিহিতা নেই এবং রাষ্ট্রক্ষমতার জন্য বর্তমান শাসকগোষ্ঠী জনগণকে প্রয়োজন মনে করে না। সেজন্য দেশের যেকোন প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলায় অবহেলা ও অবজ্ঞা করে থাকে। ডেঙ্গু সমস্যার মতো এতবড় জাতীয় সংকটে সরকারের কোন দায়বদ্ধতা নেই বলেই প্রধানমন্ত্রী এবং স্বাস্থ্যমন্ত্রী এখন বিদেশে অবস্থান করছেন।

আওয়ামী সরকারের রাজনীতি জনকল্যাণমূখী নয়ই বরং জনগণকে চরম দুর্ভোগের মধ্যে ফেলাই এদের রাজনীতির লক্ষ্য। তাই প্রাকৃতিক দুর্যোগে আওয়ামী মন্ত্রী-নেতাদের বাগাড়ম্বর বক্তব্য প্রদান ছাড়া সমস্যা সমাধানে কোন কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ করে না। কিন্তু বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি শুধু মিটিং-মিছিলের রাজনীতি করে না, বিএনপি নেতাকর্মীরা ঝড়-জলোচ্ছাস-বন্যাসহ সংক্রামক ব্যধিজনিত মহামারী মোকাবেলা করতেও জনগণের পাশে থাকে। ডেঙ্গু সমস্যা সমাধানে সরকারের ব্যর্থতাকে দায়ী করে রিজভী আহমেদ বলেন, অবিলম্বে সরকার ডেঙ্গু সমস্যা সমাধানে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপি’র উদ্যোগে ডেঙ্গু মোকাবেলায় জনসচেতনতামূলক র‌্যালী অনুষ্ঠানের জন্য বিএনপি ঢাকা মহানগর উত্তর ও অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দকে ধন্যবাদ জানান।

বিএনপি’র সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব তাঁর বক্তৃতায় আরো বলেন, বিএনপি চেয়ারপার্সন ও চারবারের প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে মিথ্যা ও সাজানো মামলায় সরকার তাঁকে অন্যায়ভাবে কারারুদ্ধ করে রেখেছে। গতকাল বুধবার গোটা দেশবাসী অধীর ও ব্যাকুল হয়ে সর্বোচ্চ আদালতের দিকে তাকিয়ে ছিল, সবাই আশা করেছিল জুলুম ও অন্যায়ের প্রতিকার শেষ আশ্রয়স্থল উচ্চতর আদালত সরকারের নির্জলা সাজানো মিথ্যা মামলায় কারারুদ্ধ দেশনেত্রীকে জামিন দিবেন। কিন্তু গোটা দেশবাসীকে হতাশ করে ৭৪ বছর বয়সী চরম অসুস্থ সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন খারিজ করে দেয়া হয়েছে। এই রায় নিয়ে দেশের জনগণের সাথে আমরাও হতাশ ও উদ্বিগ্ন। জাতীয়তাবাদী শক্তি জনগণকে সাথে নিয়ে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার কারামুক্তিলাভে রাজপথে নামার জন্য জোর প্রস্তুতি নিচ্ছে। বিএনপি’র সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব তাঁর বক্তব্যে আবারও অবিলম্বে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নি:শর্ত মুক্তির জোর দাবি জানান।

র‌্যালিতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী। র‌্যালী অনুষ্ঠানে ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আহসান উল্লাহ হাসান, যুগ্ম সম্পাদক এ জি এম শামসুল হক, সাইফুর রহমান মিহির, দপ্তর সম্পাদক এ বি এম এ রাজ্জাক, বনানী থানা বিএনপি’র সিনিয়র সহ-সভাপতি মিজানুর রহমান মিজান, সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান বাচ্চু, সাংগঠনিক সম্পাদক ইমান হোসেন নুর, তুরাগ থানা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশীদ, বাড্ডা থানা বিএনপি’র সভাপতি মোঃ তাজুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের বাবু, বাটারা থানা বিএনপি’র সিনিয়র সহ-সভাপতি রেজাউল কবির, গুলশান থানা বিএনপি’র সভাপতি মোঃ ফারুক হোসেন, সাধারণ সম্পাদক দ্বীন ইসলাম, রুপনগর থানা বিএনপি’র সভাপতি আব্দুল আউয়াল, সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিঃ মজিবুল হক, মোহাম্মদপুর থানা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক এনায়েত হাফিজ, তিতুমির কলেজ ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দসহ বিএনপি এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

এবিএন/মমিন/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ