বিভেদ ভুলে দেশের জন্য ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করুন : তথ্যমন্ত্রী

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৮ জুলাই ২০১৯, ২০:১৬

সকল ভেদাভেদ ভুলে প্রবাসীদের দেশের জন্য ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহবান জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

শনিবার সন্ধ্যায় ব্রাসেলসে ব্রিজ ইউনিভার্সিটি অব ব্রাসেলসের মিলনায়তনে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এই আহবান জানান।
আওয়ামী লীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বেলজিয়াম আওয়ামী লীগ এই আলোচনা সভার আয়োজন করে।

প্রবাসীদের ভোটাধিকার নিশ্চিত করার জন্য বাংলাদেশ সরকার ব্যাবস্থা নিচ্ছে জানিয়ে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘প্রত্যেক প্রবাসী বিদেশে বাংলাদেশের প্রতিনিধি। দেশপ্রেমই তাদেরকে ঐক্যবদ্ধ রাখতে পারে। আর সকল ভেদাভেদ ভুলে দেশের জন্য কাজ করার মধ্যেই জীবনের সার্থকতা।’

সভায় ব্রিজ ইউনিভার্সিটি অব ব্রাসেলসের প্রাক্তন শিক্ষার্থী ও সে বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক ছাত্র সংগঠনের সাবেক সভাপতি ড. হাছান মাহমুদকে নাগরিক সম্বর্ধনাও দেয়া হয়।

বেলজিয়াম আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল হকের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর চৌধুরী রতনের সঞ্চালনায় সভায় রাষ্ট্রদূত শাহাদাত হোসেন এবং সর্ব ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সভাপতি এম নজরুল ইসলাম, সর্ব ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান, ফ্রান্স আওয়ামী লীগের সভাপতি বেনজির আহমেদ সেলিম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের গণমাধ্যম এখন স্মরণকালে সবচেয়ে বিকশিত ও প্রসারমান উল্লেখ করে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘বাংলাদেশ টেলিভিশনের সমস্ত অনুষ্ঠান আগামী মাস থেকে সমগ্র ভারতে দেখা যাবে, যা দেশের মানুষের দীর্ঘদিনের দাবি ছিল।’

বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধেও ঘোষণা প্রসংগে তিনি বলেন, ‘জিয়াউর রহমান বেঁচে থাকার সময় তিনি কখনও নিজেকে স্বাধীনতার ঘোষক বলেননি। সকল সেক্টর কমান্ডারগণ ৫০০ টাকা বেতনে কাজ করতেন। জিয়াউর রহমান তাদের মাঝে একজন।’
বাংলাদেশ আজ উন্নত বিশ্বের অংশ হবার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আগামী কয়েক বছরে বাংলাদেশে ১০০ ভাগ এলাকায় বিদ্যুৎ যাবে।’

এ সময়ে তিনি সর্ব ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সাম্প্রতিক কর্মকান্ডের প্রশংসা করেন।

সভায় বেলজিয়াম আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল হক বলেন, হাছান মাহমুদের দিক নির্দেশনাতেই এক এগারোর সময় গ্রেপ্তার হওয়া শেখ হাসিনার মুক্তির জন্য ইউরোপে আন্দোলন শুরু হয়।

সভাশেষে সাংস্কৃতিক পর্বে স্থানীয় শিশুরা নৃত্য এবং লন্ডন থেকে আগত শিল্পী শতাব্দী কর সংগীত পরিবেশন করে।

এর আগে তথ্যমন্ত্রী ইউরোপিয়ান এক্সটার্নাল একশন সার্ভিসের ম্যানেজিং ডিরেক্টর অর্থাৎ ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) এর পররাষ্ট্র বিভাগের সচিব গানার ভাইগ্যান্ডের সাথে বৈঠকে তথ্য ও সম্প্রচার জগতের আধুনিক ও নিরাপদ ব্যবস্থাপনা নিয়ে আলোচনা করেন। সফরশেষে ৯ জুলাই মঙ্গবার তথ্যমন্ত্রীর দেশে ফেরার কথা রয়েছে।

এবিএন/মমিন/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ