শেখ হাসিনার সঙ্গে বন্দী গণতন্ত্রও মুক্ত হয়েছিল : তথ্যমন্ত্রী

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১১ জুন ২০১৯, ২২:০৪

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, আওয়ামী লীগের সভাপতি গণতন্ত্র কন্যা শেখ হাসিনার মুক্তির সঙ্গে বন্দী গণতন্ত্রও মুক্ত হয়েছিল। তিনি আজ ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ৭ জুন শুধু শেখ হাসিনার মুক্তির দিন নয়, এটি গণতন্ত্রের মুক্তিরও দিন। তথ্যমন্ত্রী বলেন, ২০০৮ সালের এই দিনে শেখ হাসিনা ১১ মাস বন্দী থাকার পর সাব-জেল থেকে মুক্তি পেয়েছিলেন।

আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীদের দাবিও চাপের মুখে তৎকালীন সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকার আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাকে মুক্তি দিতে বাধ্য হয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের অব্যাহত প্রতিবাদের মুখে বেগম খোলেদা জিয়াও মুক্তি পেয়েছিলেন।

হাছান বলেন, ১/১১ এর কুশিলবরা এখনও সক্রিয় এবং তারা দেশে আবার অগণতান্ত্রিক সরকার ক্ষমতায় আসার স্বপ্ন দেখছে। বিএনপি ষড়যন্ত্রকারীদের সঙ্গে সরকার উৎখাতের পরিকল্পনা করছে। বিএনপি ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে ২০১৪ সালের নির্বাচনে অংশ নেয়নি। তারা পেট্রোলবোমা মেরে অনেক মানুষ হত্যা করেছে। ২০১৮ এর নির্বাচনে তারা প্রথমে ঘোষণা দেয় তারা নির্বাচনে অংশ নিবে না। কিন্তু পরে তারা নির্বাচনে অংশ নেয়। আসলে তারা ১/১১ এর ষড়যন্ত্রকারীদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছিল।

আওয়ামী লীগের মুখপাত্র বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে দেশ এখন এগিয়ে যাচ্ছে। কেউ তা প্রতিহত করতে পারবে না। এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, বিএনপি এখন অস্থিরতার মধ্যে রয়েছে। আর তাদের ছাত্র সংগঠন ছাত্রদল কতৃক নয়াপল্টনে তাদের দলীয় কার্যালয়ে তালা দেয়ার মাধ্যমে তা প্রমাণিত হয়েছে বিএনপিতে কোন শৃঙ্খলা নেই।

এরপর ড. হাছান মাহমুদের সভাপতিত্বে আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে দলের প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটির এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে কমিটির সদস্য ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার, আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা উপ-সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, প্রধানমন্ত্রীর উপ প্রেস সচিব আশরাফ সিদ্দিকী বিটু, সৈয়দ নুরুল ইসলাম, তারেক সুজাত, মোহাম্মদ রাশিদুল ইসলাম রাসেল উপস্থিত ছিলেন।

এবিএন/মমিন/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ