তেঁতুল তত্ত্বের লোকেরাই নুসরাতকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিয়েছে : ইনু

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৩ এপ্রিল ২০১৯, ২১:৫২

সাবেক তথ্য মন্ত্রী ও জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেছেন, তেঁতুল তত্ত্বের লোকেরাই ফেনীর মাদরাসার ছাত্রী নুসরাতকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিয়েছে। তিনি বলেন, নুসরাত হত্যাকা- আবারো প্রমাণ করল ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের জন্য আসলে তেঁতুলতত্ত্ব দায়ী।

শনিবার রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে ‘অনলাইন সাংবাদিকতা: চ্যালেঞ্জ ও সম্ভবনা’ শীর্ষক গোলটেবিল আলোচনা অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন। একটি অনলাইন পোর্টালের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে তিনি আরো বলেন,

হাসানুল হক ইনু বলেন, তেঁতুল তত্ত্বের মালিকরা একাত্তরে নারীর গায়ে হাত দিয়েছিল। এই তেঁতুল তত্ত্বের লোকেরাই আজকে নারীর গায়ে হাত দিয়েছে। নুসরাতকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিয়েছে।

তিনি বলেন, গণমাধ্যমের আগের চ্যালেঞ্জ ছিল এইসব ধর্ম ব্যবসায়ী, সাম্প্রদায়িক শক্তি ও সৈরাচারের দালালেরা। তাদের অস্ত্র ছিল মিথ্যাচার, ইতিহাস বিকৃতি, হলুদ সাংবাদিকতা। সুতরাং এই মিথ্যাচার, ইতিহাস বিকৃতি ও হলুদ সাংবাদিকতা থেকে দেশকে রক্ষা করাই এখন গণমাধ্যমের চ্যালেঞ্জ।

গণমাধ্যমের আরেকটি চ্যালেঞ্জ হচ্ছে, তেঁতুল তত্ত্বের সাম্প্রদায়িকতা মোকাবেলা করা। ডিজিটাল সমাজের দায়বদ্ধতা সম্পর্কে সচেতনতা অর্জন করা। ডিজিটাল সমাজে থাকতে হলে ডিজিটাল সমাজের নিরাপত্তা প্রদান করা।

অনলাইন এবং আইপিটিভিকে প্রাতিষ্ঠানিক আওতার মধ্যে নিয়ে আসতে হবে উল্লেখ করে সাবেক এই তথ্যমন্ত্রী বলেন, সম্প্রচার নীতিমালা করার পর অনেকেই সমালোচনা করেছেন, কিন্তু এটা নিয়ে আলোচনার জন্য ডাকা হলে তখন কেউ সাড়া দেয়নি। এটা দুঃখজনক।

তথ্য অধিকার আইন প্রতিষ্ঠায় তথ্য কমিশন গঠন শেখ হাসিনা সরকারের একটি বড় অর্জন উল্লেখ করে সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, এই তথ্য অধিকার আইনটা প্রয়োগ করা নিয়েও গণমাধ্যমের কোনো মাথা ব্যথা নেই। খুবই দুঃখজনক ব্যাপার হলো, প্রত্যেকটি উপজেলায় তথ্য কর্মকর্তা রয়েছেন। কিন্তু সেখান থেকে কেউ সেই সুযোগটা নেয় না। বর্তমান সরকার গণতন্ত্রের যাত্রা শুরু করেছে সুশাসন প্রতিষ্ঠা ও সাম্প্রদায়িকতা মুক্ত রাখতে। এই যাত্রায় নিত্য সঙ্গী হিসেবে গণমাধ্যমকে শকিক করেছে। সেই জন্য তথ্য অধিকার আইন, তথ্য কমিশন গঠন করা হয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক রোবায়েত ফেরদৌসের সঞ্চলনায় অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন, প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, তথ্য কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান ড. গোলাম রহমান, সারাবাংলা.নেটের নির্বাহী সম্পাদক মাহমুদ মেনন খান, ড. আব্দুস শহীদ, সাংবাদিক রাহুল রাহা, সুভাষ সিংহ রায় প্রমুখ।
 
আইনের ভয় দেখিয়ে নিভৃত করা যাবে না জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশিদ ফনীর নুসরাত হত্যাকান্ডের বিচার দাবি করে বলেন, আইনের ভয় দেখিয়ে এদের নিভৃত করা যাবে না। নুসরাত হত্যাকারীদের একমাত্র শাস্তি হচ্ছে ক্রসফায়ার। যারা শিশু হত্যা, নারী ধর্ষণ, চলন্ত বাসে গণধর্ষণ করছে বুটেলের মাধ্যমে তাদের বিচার করতে হবে।

তিনি বলেন, যেসকল মানবাধিকার কর্মী ক্রসফায়ারের বিরোধীতা করেন তাদেরকে প্রশ্ন করতে চাই- আপনি নিজে ধর্ষিতা হলে কি বিচার চাইতেন? আইনের শাসনের ভয় দেখিয়ে নরপশুদের শায়েস্তা করা যাবে না। তিনি বলেন, কোন রাজনৈতিক পরিচয়ে যেনো এ ধরনের হিংস্র আসামীরা পার না পেয়ে যায় সেদিকে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে। শনিবার করাতিটোলা স্কুল এন্ড কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মহানগর আওয়ামী লীগের সাংহঠনিক সম্পাদক হেদায়াতুল ইসলাম স্বপনের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগ নেতা আশিকুর রহমান লাভলু, ওয়ারী জোনের পুলিশের ডিসি ফরিদ উদ্দিন, গেন্ডারিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল জলিল প্রমুখ।

এবিএন/মমিন/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ