একের পর এক অগ্নিকাণ্ড খতিয়ে দেখা হচ্ছে: হানিফ

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০১ এপ্রিল ২০১৯, ২০:৫৫

'রাজধানীর ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডগুলো যে নাশকতা নয়, সে আশঙ্কা একেবারে উড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে না', বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ। সোমবার (১ এপ্রিল) দুপুরে কুষ্টিয়া জেলা শহরের পৌর চত্বরে কুষ্টিয়া পৌরসভার ১৫০ বছর পূর্তি উদযাপন উপলক্ষে ১৪ দিনব্যাপী নেওয়া অনুষ্ঠানমালার উদ্ধোধনের আগে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, 'রাজধানীর বনানীর এফ আর টাওয়ার, ডিএনসিসি মার্কেটে একের পর এক অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা দুর্ঘটনা, না কি নাশকতা সে বিষয়টি উড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে না'।

বনানীর এফ আর টাওয়ারের মালিক তাসভীর-উল ইসলামকে গ্রেফতার রাজনৈতিক কারণে বিএনপির এমন বক্তব্যের বিষয়ে তিনি বলেন, 'বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে আন্দোলনের নামে দেশে ৯৩ দিন আগুণ দিয়ে মানুষ পুড়িয়ে হত্যার যে রাজনীতি শুরু করেছিল, তা মানুষ ভোলেনি। সে কারণেই রাজধানীতে সম্প্রতি ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার পেছনেও কোন নাশকতামুলক ষড়যন্ত্র জড়িত আছে কি-না সেটিও খতিয়ে দেখা হবে'।

পরে হানিফ বেলুন উড়িয়ে পৌরসভার ১৫০ বছর পুর্তি উপলক্ষ্যে পক্ষকাল ব্যাপী অনুষ্ঠানের উদ্ধোধন করেন। পৌর মেয়র আনোয়ার আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মো. আসলাম হোসেন, পুলিশ সুপার এস এম তানভির আরাফাত, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সদর উদ্দিন খান, সিনিয়র সহ-সভাপতি রবিউল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আজগর আলী ও শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা প্রমুখ।

এর আগে পৌর মেয়র আনোয়ার আলীর নেতৃত্বে পৌর নাগরিক, পৌর কর্মকর্তা, কর্মচারীসহ বিভিন্ন পেশাজীবির মানুষের অংশগ্রহণে কুষ্টিয়া শহরে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালিটি শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে পৌর চত্বরে এসে শেষ হয়।

উল্লেখ্য ১৮৬৯ সালের ১ এপ্রিল কুষ্টিয়া পৌরসভার যাত্রা শুরু হয়েছিল। আজ পৌরসভার ১শ’ ৫০ বছর পুর্তি হলো। এ উপলক্ষে প্রতিদিন বিকেল ৩টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত কুষ্টিয়া পৌরসভা পৌর চত্বরে দেশের বিশিষ্টজনদের নিয়ে আলোচনা সভা এবং পরে আবহমান গ্রামবাংলার ঐতিহ্য লাঠিখেলা, পুতুল নাচ, যাত্রাপালা, গম্ভিরা, পালাগান সেই সাথে উন্মুক্ত মঞ্চে বাংলাদেশ ও ভারতের প্রখ্যাত শিল্পীদের পরিবেশনায় নজরুল, রবীন্দ্র সংগীত, নৃত্যসহ নানা আয়োজন করা হয়েছে।

এবিএন/মমিন/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ
well-food