চকবাজার অগ্নিকান্ড

নিহতদের ১ কোটি ও আহতদের ৫০ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণের দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১০:৩০

গতকাল সোমবার সকাল ১১ টায়, জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে গণতান্ত্রিক বাম ঐক্য’র উদ্যোগে চকবাজারের অগ্নিকান্ডে নিহতদের ১ কোটি টাকা ও আহতদের ৫০ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ প্রদানের দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। 

মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্কসবাদী)- সিপিবি (এম)’র সাধারণ সম্পাদক ও গণতান্ত্রিক বাম ঐক্য’র সমন্বয়ক কমরেড এম.এ সামাদ। অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক কমরেড হারুন চৌধুরী, জাতীয় বিপ্লবী পার্টির আহ্বায়ক আবুল কালাম আজাদ, সমাজতান্ত্রিক মজদুর পার্টির সাধারণ সম্পাদক ডা. কমরেড সামছুল আলম, বাংলাদেশে কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা কমরেড মোস্তফা আল খালিদ, কমরেড আবদুল্লাহ আল মামুন, কমরেড রফিকুল ইসলাম, কমরেড মাসুদুল আলম জয়, সাম্যবাদী দলের কেন্দ্রীয় নেতা আবু মাছুম প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, চকবাজারে অগ্নিকা-ে নিহতদের ১ কোটি টাকা ও আহতদের ৫০ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। ভয়াবহ এই অগ্নিকা-ের ঘটনা নিছক দুর্ঘটনা বলে এড়িয়ে যাওয়ার কোন সুযোগ সরকারের নেই। একটি সভ্য দেশের আবাসিক এলাকায় এমন ভয়ানক রাসায়নিক কারখানা থাকতে পারে না। এর দায় সরকারসহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কেই নিতে হবে। তাদের অযোগ্যতা, অদক্ষতা ও সীমাহীন দুর্নীতির কারণেই এই দুর্ঘটনা ঘটেছে। তাছাড়া ২০১০ সালের নিমতলী অগ্নিকা-ে ১২৫ জনের মৃত্যু এবং বহু হতাহত ও সম্পদের বিনাশ হওয়া সত্ত্বেও সরকার কেন কার্যকর ব্যবস্থা নিলেন না- এটাই জনগণের প্রশ্ন।

বক্তারা আরো বলেন, অবিলম্বে বিচার বিভাগীয় তদন্তের মাধ্যমে দায়ী ব্যক্তিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে এবং আবাসিক এলাকা থেকে রাসায়নিক গোডাউনসহ সকল ধরনের গোডাউন সরিয়ে নিতে হবে।

সভাপতির বক্তব্যে কমরেড ডা. এম.এ সামাদ বলেন, যেহেতু জনগণের জানমাল রক্ষায় এই সরকার ব্যর্থ হয়েছে সেহেতু এর দায়ভার সরকারকেই নিতে হবে। 

মানববন্ধন শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল জাতীয় প্রেসক্লাব থেকে শুরু করে সচিবালয়, পল্টন মোড় প্রদক্ষিণ করে শিশু কল্যাণ ভবনে জোটের কার্যালয়ে সামনে এসে শেষ হয়। 

এবিএন/জনি/জসিম/জেডি

এই বিভাগের আরো সংবাদ