সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে নেতাকর্মীদের ঢল

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৯ জানুয়ারি ২০১৯, ১৩:৩৭

একাদশ জাতীয় নির্বাচনে নিরঙ্কুশ জয়ের পর আজ শনিবার রাজধানীর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিজয় সমাবেশ করছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ প্রধান শেখ হাসিনা বক্তব্য রাখবেন। বেলা আড়াইটায় সমাবেশের মূল কার্যক্রম শুরু হবে। তবে এর আগের সকাল থেকে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল ও ঢাকার আশপাশের জেলাগুলো থেকে আসতে শুরু করেছে নেতাকর্মী-সমর্থকরা। উৎসবমুখর পরিবেশে জনতার ঢল দেখা গেছে সমাবেশস্থল ও এর আশপাশে।

সমাবেশ শুরু হবে দুপুর আড়াইটায়। তবে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শুরু হয়েছে দুপুর ১২টায়। বেলা ১১টায় সমাবেশস্থলে প্রবেশের গেট খুলে দেওয়া হয়।

রাজধানী ঢাকা ছাড়াও আশপাশের জেলাগুলো থেকে নেতাকর্মীরা আসছেন এ বিজয় উৎসবে। তাদের অনেকের গায়ে একই রঙের টি-শার্ট, মাথায় একই রঙের ক্যাপ শোভা পাচ্ছে। সবার চোখে মুখে উৎসবের আমেজ। এ ছাড়া মহানগরীর বিভিন্ন থানা থেকে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে যাচ্ছেন সমাবেশস্থলে। রাজধানীর বিভিন্ন ওয়ার্ড থেকে আসা যুবলীগের নেতাকর্মীরা লাল-সবুজের পতাকা ও লাল ফিতা হাতে নিয়ে মাঠে ঢুকছেন।\

গতানুগতিক সমাবেশের বাইরে উৎসবের আবহে উদযাপন করতেই এ ‘বিজয় উৎসব’। দেশবরেণ্য শিল্পীরা নাচ-গানের মাধ্যমে প্রাণবন্ত করে রাখছেন সমাবেশস্থল। বিজয় সমাবেশকে বিজয় আনন্দে রূপ দিতে বরণ্যে শিল্পীরা বিভিন্ন গান পরিবেশন করছেন। তাই মহাসমাবেশের মঞ্চের পাশে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের জন্য আরেকটি মঞ্চও করা হয়েছে। আঁখি আলমগীর, রফিকুল আলম, ফাহমিদা নবী, কল্পনা মজুমদার ও জলের গান দলের মতো বরণ্য শিল্পীরা গান পরিবেশন করছেন।

আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা গেছে, জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী মমতাজের গানে গানে বেলা আড়াইটার দিকে বিজয় সমাবেশের মঞ্চে উপস্থিত হবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর পর নির্বাচনে সাড়া জাগানো ‘জিতবে এবার নৌকা’ গানের শিল্পীদের পরিবেশনা শুনবেন।

সরেজমিনে দেখা যায়, শাহবাগ মোড় থেকে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র মিছিল আসছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসির দিকে। এরপর নেতাকর্মীরা সুশৃঙ্খলভাবে সমাবেশস্থলের দিকে প্রবেশ করছেন। এ ছাড়া রাজধানীর অন্যান্য সড়ক দিয়েও নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে সোহরাওয়ার্দীর দিকে আসছেন। তাদের আগমনে সোহরাওয়ার্দী এলাকায় অন্যরকম উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে।

এ মহাউৎসবকে ঘিরে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানসহ আশপাশের এলাকায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবিসহ সরকারের উন্নয়ন ও অর্জনের তথ্যসংবলিত পোস্টার, ফেস্টুন ও ব্যানার লাগানো হয়েছে।

এবারের মহাসমাবেশে সর্বসাধারণের প্রবেশের জন্য গেটের সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে। নারীদের জন্য রয়েছে আলাদা গেটের ব্যবস্থা। এ ছাড়া অন্যান্যবারের তুলনায় এবার টয়লেটের সংখ্যাও বাড়ানো হয়েছে।

সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ছাড়াও শাহবাগ, টিএসসি চত্বর, দোয়েল চত্বরেও মানুষের ভিড় বাড়ছে। এদিকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও আশেপাশের এলাকায় পুলিশের সরব উপস্থিতি লক্ষ করা গেছে। সঙ্গে রয়েছে জলকামান, এপিসি ও রায়টকার। বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিটও সতর্কাবস্থায় রয়েছে। রাস্তার মোড়ে মোড়ে পুলিশের পাশাপাশি নিরাপত্তায় অংশ নিয়েছে র‌্যাবের টহল টিমও। সঙ্গে দেখা গেছে ডগ স্কোয়াডকে। নিরাপত্তা যাতে কেউ বিঘ্নিত করতে না পারে সেজন্য সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের আশেপাশের এলাকাগুলোর সড়ক দিয়ে যান চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে।

এবিএন/সাদিক/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ