আজকের শিরোনাম :

এই সরকারের অধীনে সুষ্ঠু ভোট সম্ভব নয়: রাজশাহীতে সমাবেশে বিএনপি

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০২ মার্চ ২০২১, ১৯:০২

বর্তমান সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়, রাজশাহীতে সমাবেশে বলছেন বিএনপি নেতারা। তাদের অভিযোগ, সমাবেশে আসার সময় নেতাকর্মীদের পথে পথে বাধা দেয়া হয়েছে। বিএনপি নেতারা আরো বলেন, বাস বন্ধ করে দিয়ে সরকার প্রমাণ করেছে, তারা বিএনপিকে ভয় পায়।

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন, ভোট কারচুপি, নিত্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে রাজশাহীতে বিভাগীয় সমাবেশের আয়োজন করে বিএনপি। ঘোষণা ছাড়াই দু'দিন বাস বন্ধ থাকলেও মঙ্গলবার (২ মার্চ) সকাল থেকেই সমাবেশস্থলে আশপাশের বিভিন্ন জেলা থেকে আসতে শুরু করেন বিএনপির নেতাকর্মীরা।

বেলা ৩টায় নগরীর নাইস কনভেনশেন সেন্টারে শুরু হয় সমাবেশ। যোগ দেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুসহ ছয় সিটির বিএনপির পরাজিত মেয়রপ্রার্থীরা। তবে, সমাবেশে যোগ দিতে আসা নেতাকর্মীদের পথে পথে বাধা দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়।

রাজশাহী মহানগর বিএনপির সভাপতি মিজানুর রহমান মিনু বলেন, ‘সরকার আন্দোলনের ভয়ে আগে থেকেই বিভিন্ন পরিকল্পনার মাধ্যমে বিএনপির আন্দোলনকে বিফল করার চেষ্টা করেছে। যার কারণে ইচ্ছাকৃতভাবেই একদিন আগেই যান চলাচল বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। আজও পরিবহণ বন্ধ। এজন্য অনেক নেতাকর্মী দূরদূরান্ত থেকে সমাবেশে আসতে পারেননি। বিনা বাধায় সমাবেশ করতে দিলে রাজশাহীর এই বিভাগীয় সমাবেশে গণজোয়ারের সৃষ্টি হতো।’

এসময় বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা বলেন, এই সরকারের অধীনে আর ভোট চায় না বিএনপি।

দলটির সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু বলেন, 'শেখ হাসিনার অধীনে কোন ভোট বাংলাদেশে হবে না। তার অধীনে কোন ভোট চাই না। সমস্ত বাস বন্ধ করে দিয়েছে। তারপরও মানুষ সমাবেশে উপস্থিত হয়েছে। ২১ সাল শেখ হাসিনার শেষ সাল। আমরা শেখ হাসিনাকে দেখতে চাই না।'

জিয়াউর রহমানের খেতাব বাতিল প্রস্তাবকে নির্লজ্জ তামাশা বলেন বিএনপি নেতারা। জিয়ার খেতাব কেড়ে নিলে সারা দেশে আন্দোলন গড়ে তোলার হুমকিও দেয়া হয়।

বিএনপি নেতা প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন বলেন, 'কালো আইনে সাংবাদিক মুশতাককে হত্যা করা হয়েছে। জিয়াউর রহমানের খেতাব বাতিল নির্লজ্জ তামাশা। পুলিশ একটি দলীয় সরকারের পেটোয়া বাহিনীতে পরিণত হয়েছে। দালাল সরকার ভারতের সহযোগিতায় ও পেটোয়া বাহিনীর সহযোগিতায় ক্ষমতায় বসে আছে। এটি স্বাধীনতার ৫০ বছরে কাম্য না। আমরা অন্যায়ের প্রতিবাদ করবো, প্রয়োজনে পাল্টা আঘাত করবো। এই আন্দোলন সারাদেশে ছড়িয়ে দিতে হবে। আমরা পঞ্চদশ সংশোধনী বাতিল চাই।'

বিএনপি নেতা তাবিথ আউয়াল বলেন, 'রাজশাহীতে প্রবেশে বাধা দিয়েছে আমাকে। এটা হাস্যকর। আজ নির্বাচন কমিশন জাতীয় ভোটার দিবস পালন করছে যা তামাশা। কারণ তারা নির্বাচনের নামে মাফিয়াদের ক্ষমতায় বসায়। বিএনপি কালো আইন ডিজিটাল আইন বাতিল দাবি করে না, এটা বাতিল করিয়ে ছাড়বে। সরকার বাস বন্ধ করে প্রমাণ করেছে তারা বিএনপিকে ভয় পাচ্ছে।'

ভোটের আগে গায়েবি মামলায় এজেন্টদের গ্রেপ্তার করা হয়; আর যারা গ্রেপ্তার করেন- তারা বলেন, এটা উপরের চাপে করা হয় বলে অভিযোগ তোলেন বিএনপি নেতারা। এছাড়া, পদ্মা সেতু ও মাতারবাড়িসহ বিভিন্ন প্রকল্পের ব্যয় নিয়ে প্রশ্ন তোলেন বিএনপি নেতারা।

বিএনপি নেতা ডা. শাহাদাত হোসেন বলেন, 'পদ্মা সেতুর বাজেট ১০ হাজার কোটি টাকা থেকে দাঁড়িয়েছে ৫৪ হাজার কোটি টাকা। আর ভারতে এরকম একটি ব্রিজ হয় ১২০০ কোটি টাকায়। মাতারবাড়ি প্রকল্পেও একই অবস্থা বাজেট বেড়েই চলে। এই থেকে বোঝা যায় দুর্নীতির এই টাকা পাঠানো হয় কানাডার বেগম পাড়ায়। আজ রাজশাহীর হোটেল বন্ধ করে প্রমাণ করেছে তারা ভাতে মারতে পারদর্শী। ভোটের আগে গায়েবি মামলায় এজেন্টদের গ্রেপ্তার করা হয়। আর যারা করেন তারা বলেন এটা ওপরের চাপে করা হয়। যখন নিম্নচাপ শুরু হবে তখন বুঝবেন কি অবস্থা।'

এবিএন/মমিন/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ