‘খালেদা-তারেকের নির্দেশে গ্রেনেড হামলার পরিকল্পনা করা হয়েছিল’

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২১ আগস্ট ২০১৮, ২০:৪৩

ভোলা, ২১ আগস্ট, এবিনিউজ : আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য ও বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, আগস্ট মাসেই বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করা হয়েছিল। সেই আগস্ট মাসই আবার বেছে নেওয়া হয়েছিল বঙ্গবন্ধুর জ্যেষ্ঠ কন্যা শেখ হাসিনাকে হত্যা করার জন্য। কাজটি খালেদা জিয়ার নির্দেশে, তারেক জিয়ার নির্দেশে হাওয়া ভবনে বসে তৎকালীন স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বাবরসহ অন্যরা পরিকল্পনা করে গ্রেনেড হামলা করেছিলেন। ওই গ্রেনেড হামলা মামলার রায় এই সেপ্টেম্বর মাসে হবে বলে আশা প্রকাশ করেন মন্ত্রী।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে ভোলা সদর উপজেলার চরসামাইয়া ইউনিয়নের খেয়াঘাট ব্রিজ চৌরাস্তার মোড় এলাকায় স্থানীয় আওয়ামী লীগ আয়োজিত পথসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, ২০০৪ সালের আজকের এই দিনে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে হত্যা করতেই গ্রেনেড নিক্ষেপ করেছিল বিএনপি। সেইদিন আইভি রহমানসহ ২২ জন মৃত্যুবরণ করেছিলেন। আল্লাহর রহমতে শেখ হাসিনাসহ আমাদের নেতৃবন্দ রক্ষা পেয়েছিলেন।

বিএনপিকে নির্বাচনে আসার আহ্বান জানিয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী আরো বলেন, নির্বাচন অবাধ ও নিরপেক্ষ হবে। বিএনপি যতই বলুক ওদের নির্বাচনে আসা ছাড়া কোনো বিকল্প নেই। বিএনপি যদি নির্বাচনে না আসে ভবিষ্যতে ওদের দলের কোনও অস্তিত্ব থাকবে না।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, ২০১৪ সালের নির্বাচন বানচাল করার চেষ্টা করা হয়েছিল। কিন্তু পারেননি তাঁরা। ব্যর্থ হয়েছেন। নির্বাচন বানচাল করার ক্ষমতা তাঁদের নেই। শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের অধীনে সংবিধান অনুসারে আগামী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচন পরিচালনা করবে নির্বাচন কমিশন। সেই নির্বাচন হবে অংশগ্রহণমূলক। কোনো দল যদি নির্বাচন না করে নির্বাচন হবেই। আমাদের কিছু করার নেই।

ভোলা চরসামাইয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতিত্বে এ সময় উপস্থিত ছিলেন ভোলা সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মোশারেফ হোসেন, ভাইস চেয়ারম্যান মো. ইউনুস, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম  সম্পাদক এনামুল হক আরজু, সাংগঠনিক সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লব প্রমুখ।

এবিএন/মাইকেল/জসিম/এমসি

এই বিভাগের আরো সংবাদ