রংপুর এক্সপ্রেসে আগুন: চার সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ১৯:৫১

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় লালমনিরহাটগামী রংপুর এক্সপ্রেসের ইঞ্জিন ও ছয়টি বগি লাইনচ্যুত হয়েছে। এসময় ইঞ্জিন ও দুটি বগিতে আগুন ধরে যায়। এ ঘটনায় অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থলে পৌঁছে দেড় ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে ফায়ার সার্ভিস। লাইনের ত্রুটির কারণেই এই দুর্ঘটনা বলে জানিয়েছেন রেল সচিব মোফাজ্জেল হোসেন। 

মাত্র দু’দিন আগের ব্রাহ্মণবাড়িয়া মন্দাবাগের ভয়াবহ ট্রেন দুর্ঘটনার রেশ না কাটতেই আবারো ট্রেন দুর্ঘটনা। এবারে ঘটনা সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায়

রেল কর্তৃপক্ষ জানায়, বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) দুপুরে সোয়া ২টার দিকে ঢাকা থেকে যাত্রী নিয়ে লালমনিরহাটের উদ্দেশে ছেড়ে যায় রংপুর এক্সপ্রেস।

ট্রেনের টিটি রফিকুল জানান, সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া রেল স্টেশনের সিগন্যালে দুই নম্বর লাইন থেকে এক নম্বর লাইনে ঢোকার সময় ট্রেনটির ইঞ্জিন লাইনচ্যুত হয়ে আগুন ধরে যায়। সেই সঙ্গে পাওয়ার কারসহ ৬টি বগি লাইনচ্যুত হওয়ার পাশাপাশি আগুন ধরে যায় আরো দুটি বগিতে।

রংপুর এক্সপ্রেসের এটেনন্ডেন্স ম্যানেজার মো. সফিকুল ইসলাম বলেন, লাইন পরিষ্কার ছিল। পয়েন্টে সমস্যা থাকার কারণে ইঞ্জিন লাইনচ্যুত হয়ে পড়ে গেছে পড়ে। তারপর শর্টসার্কিট হয়ে আগুন ধরে গেছে।  

খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের বেশ কয়েকটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার কাজে অংশ নেয়। দেড় ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন তারা। সর্বশেষ ১০ জনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসা দেয়া হয়। 

এই ঘটনায় চার সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব মোফাজ্জেল হোসেন বলেন, দুপুর দুইটা পনেরো মিনিটে যখন ট্রেন উল্লাপাড়ায় ঢুকে তখন ইঞ্জিলসহ সামনের পাঁচ বা ছয়টি কোচ লাইনচ্যুত হয়। বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিটের কারণে লাইনচ্যুত হতে পারে। যার কারণে ইঞ্জিন এবং সামনের একটি কোচে কিছুটা অগ্নিকাণ্ড ঘটেছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে, কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। দুর্ঘটনার পর থেকে ঢাকার সঙ্গে উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গের রেল যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে।

এবিএন/মমিন/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ