পদ্মা সেতু যারা চায়নি তারাই ছেলেধরা গুজবের হোতা : তথ্যমন্ত্রী

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৪ জুলাই ২০১৯, ১৫:১৬

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, পদ্মা সেতু যারা চায়নি এবং যারা দেশের উন্নয়ন চায় না তারাই ছেলেধরা গুজবের মূল হোতা।

আজ বুধবার সচিবালয়ে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে তিনি এ কথা বলেন।
তথ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা জানি, গত কয়েকদিন ধরে সমগ্র বাংলাদেশে ছেলেধরা গুজব ছড়িয়ে অনেক নিরীহ মানুষকে গণপিটুনি দিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এগুলো সবই হত্যাকাণ্ড। যারা এই কাজগুলো করছে, তারা সবাই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত। সরকার তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনি ব্যবস্থা নিচ্ছে। একই সঙ্গে এ ধরনের গুজব যাতে না ছড়াতে পারে, তার জন্য নানাবিধ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। আপনারা জানেন যে, ঘটনার সত্যতা হচ্ছে- পদ্মা সেতুতে শিশুবলি দিতে হবে বলে গুজব ছড়ানো হয়েছে। সেটির পরিপ্রেক্ষিতেই কিছু ডালপালা ছড়িয়ে এ হত্যাকাণ্ড হয়।

তিনি বলেন, ছেলেধরা বলে অনেকের ওপর হামলা করা হয়েছে, যা অত্যন্ত অনভিপ্রেত, ন্যক্কারজনক ও আইন বহির্তভূত। আইন  নিজের হাতে তুলে নিতে পারেন না। তবে এটির সঙ্গে পদ্মা সেতুতে শিশুবলি দিতে হবে বলে তারাই গুজব ছড়িয়েছে, যারা পদ্মা সেতু চায় না। যারা বলেছিল এই সরকার পদ্মা সেতু করতে পারবে না এবং দেশের উন্নয়ন যারা চায় না, তারাই পদ্মা সেতুতে শিশুবলি দিতে হবে বলে গুজব ছড়িয়েছে। এই গুজব ছড়ানোর কারণে এরই মধ্যে ৪৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আমি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে কথা বলেছি। তাদের অনেকের রাজনৈতিক পরিচয় জানা গেছে। তবে এটিকে সূত্র ধরে যে কাজগুলো হচ্ছে, তা কখনও হওয়া উচিত নয়। এ জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। তথ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে আমরা গুজব প্রতিরোধে নানাবিধ ব্যবস্থা  নিয়েছি।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, জনগণকে সর্তক করার জন্য তথ্য অধিদফতরের পক্ষ থেকে তথ্য বিবরণী দেওয়া হয়েছে। রেডিও, টেলিভিশনসহ সব জায়গায় এগুলো প্রচারের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

এ সময় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সংবাদপত্র শিল্পে কর্মরত সাংবাদিক-কর্মচারীদের জন্য নবম ওয়েজবোর্ড সম্পর্কিত একটি মিটিং আগামীকাল বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হবে। ওই মিটিংয়ের পর তা মন্ত্রিপরিষদ বৈঠকে উপস্থাপন করা হবে।

এবিএন/সাদিক/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ