যেসব এলাকায় আজ গ্যাস সংযোগ বন্ধ থাকবে

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৯:৩৫

রাজধানীর বড় অংশে আজ মঙ্গলবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যা ৬টা থেকে বুধবার (২০ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৬টা পর্যন্ত গ্যাস থাকবে না। সোমবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) কারওয়ান বাজারে অবস্থিত তিতাসের প্রধান কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ  সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়। মেট্রোরেলের কাজ, গ্যাসের ভালব প্রতিস্থাপন এবং লিকেজ মেরামতের কারণে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে। সাময়িক এই অসুবিধার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছে তিতাস গ্যাস ।

যেসব এলাকায় গ্যাস সংযোগ বন্ধ থাকবে তার মধ্যে রয়েছে মিরপুর, শ্যামলী,  আগারগাঁও, মোহম্মদপুর, ধানমণ্ডি, কলাবাগান, হাজারীবাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বুয়েট, শাহবাগ, গ্রিনরোড, পুরান ঢাকার পুরো এলাকা, মিন্টু রোড, বঙ্গভবন, গণভবন, জাতীয় সংসদ ভবনসহ আশেপাশের এলাকা, নন্দীপাড়া, গোপীবাগ, স্বামীবাগ, রামপুরা, বনশ্রী, মতিঝিল, কমলাপুর, মনিপুরী পাড়া, সিদ্ধেশ্বরী, সেগুনবাগিচা, তেজগাঁও, বাসাবোসহ আশেপাশের এলাকা। আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে বুধবার সকাল ৬টা পর্যন্ত মোট ১২ ঘণ্টা গ্যাস সরবরাহ সম্পূর্ণ বন্ধ থাকবে এই অঞ্চলে। আবাসিক, বাণিজ্যিক, শিল্প ও সিএনজিসহ সব ধরনের গ্রাহকদের গ্যাস বন্ধ থাকবে। এর প্রভাবে ওই সময় এর আশেপাশের এলাকায়ও গ্যাস সরবরাহ কম বা স্বল্প থাকতে পারে।

একইসঙ্গে ধানমন্ডি, মগবাজার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় গ্যাস ভালব প্রতিস্থাপন এবং খিলগাঁও এলাকায় ১২ ইঞ্চি ব্যাসের উচ্চচাপ বিশিষ্ট পাইপলাইন লিকেজ মেরামতের কাজও করা হবে।

তিতাস জানায়, মেট্রোরেল প্রকল্পের কাজের জন্য শাহবাগ মোড় এলাকায় তিতাস গ্যাস বর্তমানে যে ৮ ইঞ্চি ব্যাসের পাইপলাইন আছে তা সরিয়ে নতুন করে পাইপলাইন স্থাপন করা হয়েছে। যার দুই প্রান্ত বিদ্যমান লাইনের সঙ্গে সংযোগ দেয়া বা টাই ইন করা প্রয়োজন। এ কাজের জন্য গ্যাস সরবরাহ বন্ধ রাখা প্রয়োজন। এই পাইপলাইন সারা ঢাকা শহরে প্রধান লাইন হিসেবে বিস্তৃত।

সাভারে একটি সংযোগ লাইনে ত্রুটির কারণে গত শনিবার থেকে আজিমপুর থেকে মিরপুর পর্যন্ত এলাকাজুড়ে গ্যাস সঙ্কট চলছিল। রোববার দুপুরের পর সেসব এলাকায় গ্যাস আসা শুরু হয়।

এসএসসি পরীক্ষার মধ্যে শনিবার হঠাৎ করে গ্যাস সঙ্কট দেখা দিলে নগরবাসীর দুর্ভোগ চরমে ওঠে। ঘরে রান্না করতে না পেরে অনেকে রেস্তারাঁয় ছুটলেও সেখানেও খাবার মেলেনি।

পাশাপাশি সিএনজি ফিলিং স্টেশনগুলোতেও গ্যাসের জন্য দীর্ঘ সময় লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হয় যানবাহনগুলোকে।

ওই অবস্থার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছে তিতাস। তবে গ্যাস বন্ধ রাখার বিষয়ে কোনো ঘোষণা না দেওয়ায় নগরবাসীর সমালোচনায় বিদ্ধ হতে হয়েছে তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডকে।

এবিএন/জনি/জসিম/জেডি

এই বিভাগের আরো সংবাদ
well-food