প্রত্যেকটি মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাবো : প্রধানমন্ত্রী

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৯ জানুয়ারি ২০১৯, ১৭:১৫ | আপডেট : ১৯ জানুয়ারি ২০১৯, ২২:০৭

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমার জীবন দিয়ে হলেও মানুষের সম্মান আমি রক্ষা করবো। সবার জন্য আমাদের সরকার কাজ করে যাবে। প্রত্যেকটি মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাবো। দেশের স্বার্থে সুষম উন্নয়ন করে যাবো। তিনি আরও বলেন, বিজয় পাওয়া যেমন কঠিন, তেমনি বিজয় রক্ষা করে কাজ করে যাওয়াও কঠিন। জনগণ শান্তি চায়। আমরা শান্তি প্রতিষ্ঠা করবো।  ক্ষুধামুক্ত, দারিদ্র্যমুক্ত দেশ গড়ে তোলবো। দলমত নির্বিশেষে সরকার সবার জন্য কাজ করবে।

আজ শনিবার বিকেলে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আয়োজিত সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

এসময় তিনি বলেন, নির্বাচনে জনগণ যে রায় দিয়েছে তা জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, দুর্নীতি ও মাদকের বিরুদ্ধে রায়। নির্বাচনে জনগণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে ভোট দিয়েছে। এই নির্বাচন প্রমাণ করেছে ঐক্যবদ্ধ শক্তি সবসময় বিজয় অর্জন করে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ভোটারদের সম্মান বজায় রাখতে এবং জনগণের স্বার্থে দেশের উন্নয়নের পাশাপাশি দলমত নির্বিশেষে সবার জন্য কাজ করবে বর্তমান সরকার। জনগণ আমাদের ওপর আস্থা ও বিশ্বাস রেখে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করেছেন। আমরা যেহেতু সরকার গঠন করার সুযোগ পেয়েছি, জনগণের সেবা করার সুযোগ পেয়েছি, আমরা সবার তরে সবার জন্য কাজ করবো। জনগণের ভোটের সম্মান যেন থাকে সেটা আমাদের নির্বাচিতদের মনে রাখতে হবে। আমরা সুষম উন্নয়ন করে যাবো, জনগণের স্বার্থে কাজ করে যাবো।

নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জনের বিষয়ে শেখ হাসিনা বলেন: এ রায় সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে, এ রায় জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে, মাদকের বিরুদ্ধে, দুর্নীতির বিরুদ্ধে রায়। এ রায় অন্ধকার থেকে আলোর পথে যাত্রার। মুক্তিযুদ্ধের আদর্শের প্রতি রায়, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় দেশকে গড়ে তোলার রায়।

দেশের জনগণ ও তরুণ প্রজন্ম আধুনিক ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তোলার জন্য আওয়ামী লীগকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছে জানিয়ে বঙ্গবন্ধু কন্যা বলেন, আমরা সে লক্ষ্যে কাজ করবো। আরও আধুনিক ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে উঠবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমার ব্যক্তিগত কোনও চাওয়া পাওয়া নেই। স্বজন হারানো বেদনা নিয়েও এ দেশকে গড়ে তুলবো- যে বাংলাদেশে একটি মানুষও ক্ষুধার্ত থাকবে না, গৃহহীন থাকবে না। বাংলাদেশ হবে উন্নত সমৃদ্ধ দেশ।

তিনি বলেন, মাদকমুক্ত, সন্ত্রাসমুক্ত দেশ গড়ে তুলতে হবে। রাজনৈতিক কর্মী হিসেবে মনে করি কী পেলাম, না পেলাম, সেটা কোনও বড় কথা নয়। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা আদর্শ নিয়েই দেশ সেবা করে যাচ্ছি, করে যাব। আমি সহযোগিতা চাই দেশের মানুষের কাছে।

সকল শ্রেণিপেশার মানুষের সহযোগিতা চেয়ে তিনি বলেন, আসেন আমাদের বর্তমানকে উৎসর্গ করি ভবিষ্যতের প্রজন্মের জন্য।

এর আগে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের নেতা সাবেক মন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, আমির হোসেন আমু, মতিয়া চৌধুরী, যোগাযোগ মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের প্রমুখ।

রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগ আয়োজিত ‘বিজয় উৎসব’। সকাল থেকেই সমাবেশ স্থলে ভিড় জমান বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী। সবার মুখে ‘জয় বাংলা’ স্লোগান। মুখরিত হয়ে উঠে জনসভার উদ্যান।

মূল অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন দলের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এবং উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন।

এদিকে বেলা সাড়ে ১২টায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শুরুর পর এখন পর্যন্ত সংগীত পরিবেশন করেন লোকশিল্পী শাহে আলম, সংগীতশিল্পী রফিকুল আলম, স্পন্দন শিল্প গোষ্ঠীর শিল্পী জানে আলম। গান পরিবেশন করেন ফাহমিদা নবী, মমতাজসহ দেশবরেণ্য শিল্পীরা।

এবিএন/রাজ্জাক/জসিম/এআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ
well-food