ডব্লিউআইএফ সম্মেলনে যোগ দিতে জেনেভা পৌঁছেছেন রাষ্ট্রপতি

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৩ অক্টোবর ২০১৮, ১৫:৫১

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বিশ্ব বিনিয়োগ ফোরাম ২০১৮-এর শীর্ষ সম্মেলনে যোগদানের জন্য সুইজারল্যান্ডে ৫ দিনের সরকারি সফরে এখানে এসে পৌঁছেছেন।

রাষ্ট্রপতি ও তার সফর সঙ্গীদের বহনকারী আমিরাত এয়ারলাইন্সের একটি বিমান ২২ অক্টোবর স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৭টা ৪৫ মিনিটে জেনেভার কোয়েনট্রিন বিমানবন্দরে অবতরণ করে। 

এর আগে তিনি দুবাইয়ে বিকাল ৩টা পর্যন্ত সাড়ে ১০ ঘন্টা যাত্রাবিরতি করেন। আমিরাত এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট (ইকে ৫৮৫) রাষ্ট্রপতি ও তার সফরসঙ্গীদের নিয়ে সোমবার বাংলাদেশ সময় রাত ২টা ৩ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর ত্যাগ করে।

২২ অক্টোবর থেকে আগামী ২৬ অক্টোবর পর্যন্ত ইউরোপের জাতিসংঘ সদরদপ্তর জেনেভার প্যালেইস দ্যাস নেশন্সসে এ শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সম্মেলনের প্রতিপাদ্য হচ্ছে ‘টেকসই উন্নয়নের জন্য বিনিয়োগ’।

পরে সুইজারল্যান্ডে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এবং জাতিসংঘ অফিসে স্থায়ী প্রতিনিধি শামীম আহসান, জেনেভা সরকারের স্থানীয় প্রতিনিধি এবং বাণিজ্য ও উন্নয়ন বিষয়ক জাতিসংঘ সম্মেলনের (ইউএনসিটিএডি) প্রতিনিধি রাষ্ট্রপতিকে বিমানবন্দরে অভ্যর্থনা জানান।

বিমানবন্দর থেকে রাষ্ট্রপতিকে মোটর শোভাযাত্রা সহকারে গ্রান্ড হোটেল কেমপিনস্কিতে নিয়ে যাওয়া হয়। সুইজারল্যান্ড সফরকালে তিনি এখানেই অবস্থান করবেন।

মঙ্গলবার স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় রাষ্ট্রপতি ‘বিশ্বায়নের নতুন যুগে বিনিয়োগ’ বিষয় গ্লোবাল লিডার্স ইনভেস্টমেন্ট সামিটে (সেশন-১) প্রথম বক্তা হিসেবে ভাষণ দেবেন।

রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব এ কথা বলেন।

বিনিয়োগ সম্মেলনে ভবিষ্যত পরিকল্পনা ও লক্ষ্য নিয়ে মতবিনিময়ে রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানগণ,মন্ত্রীবৃন্দ এবং বিশ্বের কোম্পানীগুলোর সিইও’রা যোগ দেবেন। বিশ্বের বিনিয়োগ সংক্রান্ত ক্রমবর্ধমান চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সংলাপ ও কর্মপরিকল্পনা নির্ধারণে ডবিউআইএফের দ্বিবার্ষিক এ উচ্চপর্যায়ের সম্মেলনে বহুপাক্ষিক স্টেকহোল্ডাররা সমবেত হয়েছেন। এতে বিশ্বায়ন ও শিল্পায়নের নতুন যুগের আন্তর্জাতিক বিনিয়োগের বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ নিয়ে আলোচনা গুরুত্ব পাবে। টেকসই ও অন্তর্ভুক্তিমূলক উন্নয়নে অবদান রাখতে ‘উন্নয়নের জন্য বিনিয়োগ’ নিয়ে আলোচনা ও সংলাপের একটি প্লাটফরম এই সম্মেলন।

এর ফলে বৈশ্বিক বিনিয়োগ পরিস্থিতির ওপর প্রভাব ফেলতে পারেন এ ধরনের সর্বোচ্চ পর্যায়ের স্টেকহোল্ডার ও জাতিসংঘ সদস্যদেশগুলোকে একটি প্লাটফরমে নিয়ে আসতে বিশ্ব বিনিয়োগ ফোরাম সক্ষম হবে। এই দ্বিবার্ষিক সম্মেলনে ১৬০ টি দেশের ৪ হাজারেরও বেশি স্টেকহোল্ডার সমবেত হয়েছেন।

ফোরামের এই শীর্ষ সম্মেলনের ফাঁকে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে বিভিন্ন দেশের নেতাদের দ্বিপাক্ষিক বৈঠক হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

পাঁচ দিনের সফর সমাপ্ত করে রাষ্ট্রপতি ২৭ অক্টোবর দেশে ফিরবেন।
খবর বাসস

এবিএন/সাদিক/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ