‘সড়ক পরিবহন বিল-২০১৮’ সংসদে উত্থাপন

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২২:০৭

সড়ক পরিবহন বিল-২০১৮ জাতীয় সংসদে উত্থাপন করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। এরপর কণ্ঠ ভোটে পাস হয়ে বিল পাঠানো হয় সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির কাছে। আগামী সাত দিনের মধ্যে পরীক্ষা নিরীক্ষা করে স্থায়ী কমিটি তার পর্যবেক্ষণ সংসদকে জানাবে।

ওবায়দুল কাদের বিলটি সংসদে উত্থাপনের শুরুতে বলেন, মোটর ভেহিকলস অর্ডিন্যান্স, ১৯৮৩ (অর্ডিন্যান্স নং- এলভি অব ১৯৮৩) রহিতক্রমে উহার বিধানাবলি বিবেচনাক্রমে সময়ের চাহিদার প্রতিফলনে নতুন আইন প্রণয়নকল্পে আনীত একটি বিল [সড়ক পরিবহন বিল, ২০১৮] উত্থাপনের জন্য অনুমতি প্রার্থনা করছি।

অনুমতি পাওয়ার পর কাদের সংসদের কাছে অনুরোধ করেন, ‘সড়ক পরিবহন বিল-২০১৮’ পরীক্ষাপূর্বক রিপোর্ট প্রদানের জন্য ‘সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত’ স্থায়ী কমিটি’তে প্রেরণ করা হউক। এরপর প্রস্তাবনাটি কণ্ঠ ভোটে পাশ হলে স্থায়ী কমিটির কাছে পাঠানো হয়।

খসড়া আইনে যা থাকছে:

খসড়া আইনানুযায়ী গাড়ি চালানোর সময় কেউ মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে পারবেন না। করলে সর্বোচ্চ এক মাসের কারাদণ্ড বা ৫ হাজার টাকা জরিমানা বা উভয়দণ্ডের বিধান রয়েছে। সড়কের ফুটপাতের ওপর দিয়ে কোনো ধরনের মোটরযান চলাচল করতে পারবে না। করলে তিন মাসের কারাদণ্ড বা ৩৫ হাজার টাকা জরিমানা গুনতে হবে। আগে গাড়ি চালকদের লেখাপড়ার বিষয়ে কিছু না থাকলেও নতুন আইন অনুযায়ী ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য কমপক্ষে অষ্টম শ্রেণি পাস হতে হবে। কন্ডাক্টর বা চালকের সহযোগীকে কমপক্ষে লেখার ও পড়ার সক্ষমতাসহ পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়া থাকতে হবে।

যদি কেউ ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া গাড়ি চালায় তবে সর্বোচ্চ ৬ মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন। কেউ এই অপরাধ করলে তাকে বিনা পরোয়ানায় গ্রেফতার করা যাবে। চালকের সহকারীর লাইসেন্স লাগবে। কন্ডাক্টরের লাইসেন্স না থাকলে এক মাসের কারাদণ্ড বা ২৫ হাজার টাকা জরিমানা হবে।

জাল ড্রাইভিং লাইসেন্স ব্যবহার করলে আগে শাস্তি ছিল সর্বোচ্চ ২ বছরের কারাদণ্ড বা এক লাখ টাকা জরিমানা। প্রস্তাবিত আইনে মূল শাস্তি কারাদণ্ড আগের মতোই আছে, জরিমানা ৩ লাখ টাকা করা হয়েছে। ফিটনেস না থাকা মোটরযান চালালে বর্তমানে শাস্তি রয়েছে সর্বোচ্চ ৬ মাসের কারাদণ্ড বা ১০ হাজার টাকা জরিমানা। সেখানে এখন শাস্তি সর্বোচ্চ এক বছরের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ এক লাখ টাকা জরিমানা করার প্রস্তাব করা হয়েছে। এ শাস্তি পাবেন মূলত গাড়ির মালিক।

এবিএন/মমিন/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ