সোস্যাল মিডিয়া প্রভাব ফেলছে দৈনন্দিন খাদ্য নির্বাচনে

  হেলথলাইন

১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ২০:৫২ | অনলাইন সংস্করণ

অনলাইন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে, বিশেষত ফেসবুকে আজকাল খাদ্যসংক্রান্ত অনেক পোস্ট দেখা যায়। নিউজফিড খুললেই দেখা যায় রেস্টুরেন্টে তোলা ছবি থেকে শুরু করে কিটো বা প্যালিওসহ নানা ধরনের ডায়েটের ডেইলি আপডেটের ছড়াছড়ি। এতে সহজেই অনলাইন বন্ধুদের খাদ্যাভ্যাস এবং পছন্দের খাদ্য সম্পর্কে জানার সুযোগ তৈরি হয়। গবেষকরা বলছেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে খাদ্য সম্পর্কিত বন্ধুদের পোস্ট আমাদের নিজেদের খাদ্য নির্বাচনেও ভূমিকা রাখে।

এ গবেষণায় গবেষকরা ৩৬৯ জন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীকে তাদের ফলমূল, সবজি, উচ্চ ক্যালরির স্ন্যাকস এবং চিনিযুক্ত পানীয় গ্রহণের তথ্য জানতে

চান। একই সঙ্গে তাদের ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার এবং অনলাইন বন্ধুদের খাদ্যাভ্যাস ও পছন্দ সম্পর্কে মতামত জানতে চান। গবেষণায় দেখা গেছে, খাদ্য সম্পর্কে অনলাইন বন্ধুদের পোস্ট মানুষের খাদ্য নির্বাচনে ভূমিকা রাখে। যেমন একটি গ্রুপে কেউ যখন ফলমূল ও শাকসবজি গ্রহণের কথা জানায়, তখন বাকিদের মধ্যেও এসব খাদ্য গ্রহণের প্রবণতা বেড়ে যায়।

গবেষণাপত্রটির রচয়িতা ও যুক্তরাজ্যের অ্যাস্টন ইউনিভার্সিটির পিএইচডি শিক্ষার্থী লিলি হকিন্স জানান, এ গবেষণায় দেখা গেছে, নির্দিষ্ট খাদ্য নির্বাচনের সময় আমরা সামাজিক বন্ধুদের দ্বারা যতটুকু না ভাবি, তার চেয়ে বেশি প্রভাবিত হই। আসলে খাদ্য নিয়ে নিজেদের পছন্দ তৈরির সময় আমরা অবচেতনভাবে অন্যদের দ্বারা প্রভাবিত হচ্ছি।

ফিলাডেলফিয়ার শিশু হাসপাতালের পলিসি ল্যাবের গবেষক এলিক্স টিমকু বলেন, এ গবেষণা মানুষের খাদ্যাভ্যাসে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সরাসরি প্রভাব সম্পর্কে খতিয়ে দেয়া হয়নি, বরং গবেষকরা নির্দিষ্ট খাদ্য গ্রহণে বিভিন্ন ধরনের সামাজিক রীতিনীতি মানুষকে কীভাবে প্রভাবিত করে তা পরীক্ষা করে দেখেছেন।

অনলাইন জগতের বাইরেও এসব সামাজিক রীতিনীতির অস্তিত্ব আছে। তবে গবেষকরা এ গবেষণায় শুধু অনলাইনের ওপর জোর দিয়েছেন, কারণ এসব মাধ্যমে মিথস্ক্রিয়া এখন অনেক বেশি।

এবিএন/জনি/জসিম/জেডি

এই বিভাগের আরো সংবাদ