পান্তা ভাতের পুষ্টিগুণ সম্পর্কে যে কথা না জানলেই নয়

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৫ এপ্রিল ২০১৯, ১১:৪৪

ভাত বেশ কিছুক্ষণ পানিতে ভিজিয়ে রেখে খেলে তা ‘শক্তিবর্ধক’ হিসেবে কাজ করে বলে ধারণা ছিল তখনকার গ্রামের মানুষদের। কিন্তু এ ধারণার বৈজ্ঞানিক ভিত্তি কতটা রয়েছে?

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পুষ্টিবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক নজরুল ইসলাম খান বলেন, ‘পান্তা ভাত হলো এনার্জি গিভিং ফুড (শক্তিদায়ক খাবার)। তবে এতে সাধারণ ভাতের চেয়ে খুব একটা বেশি পুষ্টিগুণ নেই। তবে ভাত পানিতে ভিজিয়ে রাখা হয় বলে এটি কিছুটা ফারমেন্টেড (গাঁজানো) হয়। এটি হজমে সুবিধা করে এবং গরমের দিনে এটি খেলে মানুষের আরামের ঘুম হয়।’

তবে কিছু বিশেষ পুষ্টি উপাদানের ক্ষেত্রে সাধারণভাবে রান্না করা ভাতের চেয়ে পান্তা ভাত কয়েকগুণ বেশি সমৃদ্ধ থাকে বলে প্রকাশিত হয়েছে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের সাম্প্রতিক এক গবেষণায়।

কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের পুষ্টি বিভাগের পরিচালক মনিরুল ইসলাম বলেন, সাধারণ রান্না করা ভাতে মাইক্রো নিউট্রিয়েন্ট আবদ্ধ অবস্থায় থাকে যা শরীর শোষণ করতে পারে না। রান্না করা ভাতকে ৮ থেকে ১২ ঘণ্টা পানিতে ভিজিয়ে রাখলে সেই ভাতের মধ্যে থাকা ক্যালসিয়াম এবং আয়রন বহুগুণ বেড়ে যায় এবং তা সহজে শরীর শোষণ করতে পারে।

তিনি জানান, ক্ষেত্র বিশেষে এই ভাতের ক্যালসিয়াম সাড়ে ৩শ গুণ পর্যন্ত এবং আয়রন প্রায় ৬০ গুণ পর্যন্ত বাড়তে পারে।

তবে পান্তা ভাতে ব্যবহার করা পানির জীবাণুমুক্ত হওয়ার বিষয়টিতে গুরুত্ব দিয়ে মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘ভাত ভেজানোর পানি অবশ্যই বিশুদ্ধ খাবার পানি হওয়া উচিত, না হলে সেখানে ই-কোলাই [এক ধরনের নেগেটিভ ব্যাকটেরিয়া] থাকতে পারে।’
তথ্যসূত্র : বিবিসি

এবিএন/সাদিক/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ
well-food